শুক্রবার   ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৪ ১৪২৬   ২০ মুহররম ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
ছাত্রলীগের পর যুবলীগকে ধরেছি : প্রধানমন্ত্রী ছাত্রলীগকে সংযমের সঙ্গে চলার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর প্রধানমন্ত্রীর সাথে যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি দলের সাক্ষাত অবৈধ জুয়ার আড্ডা বা ক্যাসিনো চলতে দেওয়া হবে না: ডিএমপি কমিশনার পটুয়াখালীতে ধর্ষণ মামলার বাদীকে পেটানো প্রধান আসামিসহ গ্রেপ্তার-৪ শাহজালালে বিমানের জরুরি অবতরণ শুক্রবার নিউইয়র্ক যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী রাজধানীর তিনটি ক্যাসিনোতে র‌্যাবের অভিযান জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে বাংলাদেশ টস হেরে ব্যাটিং এ বাংলাদেশ রিফাত হত্যা : পলাতক ৯ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা রোহিঙ্গা সংকট : ত্রিপক্ষীয় বৈঠকে বসছে চীন-মিয়ানমার-বাংলাদেশ আমাদের কাজই হচ্ছে জনগণকে সেবা দেয়া : প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গা ইস্যুতে চীন বাংলাদেশের পক্ষে: মোমেন আজ গাজীপুর যাবেন প্রধানমন্ত্রী পরিবেশ দূষণ: ৪ প্রতিষ্ঠানকে কোটি টাকা জরিমানা স্বর্ণজয়ী রোমান সানার মায়ের চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন প্রধানমন্ত্রী আরো দু’টি বোয়িং বিমান কেনার ইঙ্গিত দিলেন প্রধানমন্ত্রী কারাবন্দির তথ্য ডাটাবেজে থাকবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ: প্রধানমন্ত্রী
২০৬

আফ্রিকার ‘অক্সপেকার’ বাংলাদেশের ‘ভাত-শালিক’

প্রকাশিত: ৯ জানুয়ারি ২০১৯  

এক ধরনের পাখি আছে যারা বন্যপ্রাণীর শরীরের ক্ষতিকর পোকা খায়। আফ্রিকায় এ পাখিটির নাম ‘অক্সপেকার’। এই অক্সপেকারের অনুরূপ পাখি আমাদের ‘ভাত-শালিক’। এরাও ‘অক্সপেকার’ পাখির মতো আমাদের দেশের বন্যপ্রাণী বা গৃহপালিত প্রাণীর শরীর থেকে পোকা খায়।

বন্যপ্রাণী গবেষক ও আলোকচিত্রী ‘অক্সপেকার’ সম্পর্কে আদনান আজাদ আসিফ বলেন, আফ্রিকায় ‘অক্সপেকার’ নামে একটি বিশেষ পাখি রয়েছে যারা বন্যপ্রাণীদের শরীরের নানা ধরনের পোকা খায়। প্রাণীদের লোমের ভেতরের ক্ষতিকর পোকাগুলো খেয়ে এরা প্রাণীগুলোকে নানান রোগ-বালাইয়ের হাত থেকে রক্ষা করে। আমাদের দেশের ‘ভাত-শালিকরাও তাই।
 
তিনি আরো বলেন, তারাও ‘অক্সপেকার’ পাখির মতো কাজ করে। আমাদের বিভিন্ন গবাদিপশুর শরীর থেকে ভাত-শালিকরা পোকা খায়। শুধু তাই নয়, গরু-মহিষের নাক-কানের ভেতর থেকে এরা পোকামাকড় টেনে বের করে খায়।
 
আদনান আজাদ আসিফ ‘ভাত-শালিক’ প্রসঙ্গে বলেন, দেশের এমন কোনো এলাকা নেই, যেখানে এই ভাত-শালিকের দেখা পাওয়া যায় না। পাখিটিকে আমাদের দেশের আনাচেকানাচে বেশি দেখা যায়। এটা হচ্ছে এমন পাখি- যাকে কাকের পরে ছেলেবুড়ো সবাই এক নামে চেনে।
তবে এই পাখিটিকে নিয়ে কুসংস্কার আছে যে- ‘আজ একটি শালিক দেখেছি, ভাগ্যটা আজ খারাপ যাবে।’ বা ‘দুইটা শালিক দেখেছি, আজ আমাদের ভাগ্য ভালো।’ শহরগ্রাম সব জায়গাতেই এই পাখিটাকে নিয়ে এমন কুসংস্কার রয়েয়ে বলে জানান আদনান।
 
ভাত-শালিকের গুণ ও খাদ্যগ্রহণ সম্পর্কে তিনি বলেন, এ পাখিটির বিশেষ গুণ হলো সে সুন্দর করে কথা বলতে পারে। অবিকল মানুষের স্বর নকল করে। ময়নার ইংরেজি নাম হলো- Common Myna। তাদের খাদ্যতালিকায় এমন কিছু নেই যে এরা খায় না; এরা সব খায়। এরা ডাস্টবিনের খাবার থেকে শুরু করে, বিভিন্ন পোকা-মাকড়, টিকটিকি-ব্যাঙ, খেজুরের রস, নানান ফুলের মধু, পেয়ারা-পেপেসহ নানা প্রকারের ফল-মূল এমন কিছু নাই যে এরা খায় না। তাই এদের আরেক নাম সর্বভুক পাখি। এরা আমাদের প্রকৃতির উপকারি পাখি।  
 
এই ভাত-শালিক ইচ্ছে করলে বাবুই পাখির মতো সুন্দর করে গাছে বাসা তৈরি করতে পারে আবার চড়ুই পাখির মতো বিল্ডিংয়ে বাসা বানিয়ে প্রজনন করতে পারে বলেন জানান বন্যপ্রাণী গবেষক আদনান আজাদ আসিফ।