• মঙ্গলবার   ০৭ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২২ ১৪২৭

  • || ১৬ জ্বিলকদ ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
চলে গেলেন বরেণ্য সংগীতশিল্পী এন্ড্রু কিশোর করোনায় আরও ৪৪ মৃত্যু, শনাক্ত ৩২০১ ভিসার মেয়াদ বাড়ালো সৌদি আরব: পররাষ্ট্রমন্ত্রী গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত ২৭৩৮, মৃত্যু ৫৫ কাউকেই ভূতুড়ে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করতে হবে না: বিদ্যুৎ সচিব আজ থেকে অধস্তন আদালতে আত্মসমর্পণ করা যাবে করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ২৯ মৃত্যু, শনাক্ত ৩২৮৮ বেতন-ভাতা পরিশোধে মালিকরা সহমর্মিতার নজির দেখাবেন : কাদের পাটকল শ্রমিকরা দুই ধাপে সব পাওনা পাবে: পাটমন্ত্রী গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত ৪০১৯, মৃত্যু ৩৮ চালের বাজার অস্থিতিশীল করলে কঠোর ব্যবস্থা : খাদ্যমন্ত্রী গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত ৩৭৭৫, মৃত্যু ৪১ যত্রতত্র পশুরহাটের অনুমতি দেওয়া যাবে না- ওবায়দুল কাদের জঙ্গিবাদ দমনে সফলতা ধরে রাখতে কাজ করে যাচ্ছি: র‌্যাব ডিজি ৩৮তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৬৪ মৃত্যু, শনাক্ত ৩৬৮৩ শিগগিরই আরও ৪ হাজার নার্স নিয়োগ: প্রধানমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৪৫ মৃত্যু, শনাক্ত ৪০১৪ অর্ধশত যাত্রী নিয়ে বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবি, উদ্ধার কাজ চলছে করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৪৩ মৃত্যু, শনাক্ত ৩৮০৯
১০৭

আমতলীর ইউএনওকে ফোন, আপনার বদলি ঠেকিয়েছি টাকা দেন

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

 

বরগুনার আমতলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মনিরা পারভীনের কাছে মোবাইল ফোনে ১০ হাজার টাকা দাবি করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এপিএস পরিচয় দেওয়া সোহেল রানা নামের ব্যক্তি। ওই ব্যক্তির দাবি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ইউএনওকে বদলির আদেশ দিয়েছেন আর তিনি তা ঠেকিয়ে দিয়েছেন। 

সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) দুপুর সোয়া ১২ টার দিকে আমতলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে থাকাকালীন সময়ে এ ঘটনা ঘটে। 

জানা গেছে, আমতলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মনিরা পারভীনের কাছে দুপুর সোয়া ১২ টার সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এপিএস পরিচয় দিয়ে সোহেল রানা নামে একজন ফোন করেন। তিনি বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ইউএনওকে বদলির আদেশ দিয়েছেন। ওই বদলির আদেশ তিনি ঠেকিয়ে দিয়েছেন। বদলি ঠেকানোর কারণে তিনি ইউএনওর কাছে মিষ্টি খাওয়ার জন্য ১০ টাকা দাবি করেন। 

এ ঘটনার তিন মিনিট পরে ওই এপিএস ইউএনওর কাছে একটি বিকাশ নম্বর দেন। ওই সময়ে আমতলী থানার ওসি (তদন্ত) মনোরঞ্জন মিস্ত্রি ইউএনওর কার্যালয়ে উপস্থিত ছিলেন। 

ইউএনওর মুঠোফোনটি ওসি (তদন্ত) কাছে দিলে তিনি ওই কথিত এপিএস সোহেল রানার সঙ্গে কথা বলার কিছুক্ষণ পরে সে ফোনের লাইটি কেটে দেয়। ওই সময় থেকে তার মোবাইল এবং বিকাশ নম্বর বন্ধ রয়েছে। 

আমতলী থানার ওসি (তদন্ত) মনোরঞ্জন মিন্ত্রী বলেন, আমি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এপিএস পরিচয়ে দেওয়া সোহেল রানার সঙ্গে কথা বলেছি। তিনি মুঠোফোনে মিষ্টি খাওয়ার জন্য ইউএনওর কাছে ১০ হাজার টাকা দাবি করেছেন। কথিত এপিএসর মুঠোফোন নম্বর ও বিকাশ নম্বর এনেছি। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 
এ ব্যাপারে আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনিরা পারভীন  জানান, সোহেল রানা নামে একজন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এপিএস পরিচয় দিয়ে আমাকে ফোন দেন। তারপর তিনি বলেন, ‘আপনাকে এলাকার কেউ ভালো জানে না, সকলেই অসন্তুষ্ট। তাই  স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আপনাকে বদলির আদেশ দিয়েছেন। ওই বদলীর আদেশ আমি ঠেকিয়েছি এজন্য আমাকে মিষ্টি খাওয়ার জন্য ১০ হাজার টাকা দেন।’ পরে সে একটি বিকাশ নম্বর দেয়। 
মনিরা পারভীন বলেন, আমি তখনই বুজেছি এটা কোনো প্রতারক চক্র। কথিত এপিএসর মুঠোফোন নম্বর ও বিকাশ নম্বর পুলিশেকে দেওয়া হয়েছে।
আমতলী থানার অফিসার ইনচার্জ  মো. আবুল বাশার  বলেন, এ বিষয়ে আমাকে ইউএনও কোনো লিখিত অভিযোগ দেননি। শুধু মৌখিকভাবে জানিয়েছেন। তবে মোবাইল নম্বর দুটি যাচাই করে দেখা হচ্ছে।

বরগুনার আলো
উপজেলা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর