শনিবার   ২৩ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৮ ১৪২৬   ২৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
সরকার আলেমদের সঙ্গে নিয়ে দেশের উন্নয়ন করতে চায়: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী নরসিংদীর এমপি বুবলীকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার চালের বাজার অস্থিতিশীল করলে কাউকে ছাড় নয়: খাদ্যমন্ত্রী ভারত মুক্তিযুদ্ধের সময় পাশে ছিল তা ভুলিনি: প্রধানমন্ত্রী চিকিৎসকদের নৈতিক শিক্ষা খুবই প্রয়োজন: পরিকল্পনামন্ত্রী সামাজিক মাধ্যমে গুজব বন্ধে বিধিমালা হচ্ছে- তথ্যমন্ত্রী শুক্রবারের মধ্যে যান চলাচল স্বাভাবিক হবে: কাদের ঘণ্টা বাজিয়ে খেলার উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সশস্ত্র বাহিনীকে গড়ে তোলা হবে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে সশস্ত্র বাহিনীকে কাজ করার আহ্বান সড়ক পরিবহন আইনের অসঙ্গতি দূর করা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ‘বিএনপি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব সৃষ্টি করছে’- কাদের অনার্স ২য় বর্ষের ২৫ নভেম্বরের পরীক্ষা স্থগিত কোন অপপ্রচারে কান না দিতে জনগণের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান ‘গোলাপি’ যাত্রা রাঙ্গাতে কাল মাঠে নামছে বাংলাদেশ সারাবিশ্বে বাংলাদেশ এখন সম্মানের দেশ: প্রধানমন্ত্রী সশস্ত্র বাহিনী দিবসের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী আজ সন্ধ্যায় আ. লীগের অভ্যর্থনা উপকমিটির সভা ইউনেস্কোর সাধারণ অধিবেশনে অংশ নিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী শিখা অনির্বাণে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
৭২

এবছর হজের খুতবা দেবেন যিনি

প্রকাশিত: ৯ আগস্ট ২০১৯  

 

এবারের হজে খুতবা দেওয়ার দায়িত্ব পেয়েছেন সৌদি আরবের বিশিষ্ট আলেম, শায়খ মুহাম্মদ বিন হাসান আলে  আশ-শায়খ। তিনি সৌদি আরবের সর্বোচ্চ ওলামা পরিষদ এবং গবেষণা-মুফতি বোর্ডের সদস্য। পাশাপাশি খাদেমুল হারামাইন শরিফাইন হাদিস কমপ্লেক্সর পরিচালক।

শনিবার (১০ আগস্ট) ঐতিহাসিক আরাফার ময়দানে অবস্থিত মসজিদে নামিরায় তিনি এবছরের হজের খুতবা দেবেন। ধারাবাহিকতায় তিনি সৌদির দশ নম্বর হজের খতিব। সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিয ইতোমধ্যে এ সংক্রান্ত একটি রাজকীয় ফরমান জারি করেছেন, যা বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমগুলোতে প্রকাশ হয়েছে।

শায়খ মুহাম্মাদ বিন হাসান বর্তমান বিশ্বে হাদিস ও তাফসিরশাস্ত্রের অন্যতম প্রাজ্ঞ-পণ্ডিত আলেমে দীন। প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পড়াশোনা সম্পন্ন করেন। এরপর ইমাম মুহাম্মদ বিন সাউদ আল-ইসলামিয়া ইউনিভার্সিটির শরিয়াহ অনুষদ থেকে অনার্স সম্পন্ন করেন। এরপর উচ্চতর বিচারব্যবস্থা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে মাস্টার্স সম্পন্ন করেন।

প্রায় দশ বছর তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের শরিয়াহ অনুষদে লেকচাচার হিসেবে দায়িত্বে ছিলেন। এরপর শীর্ষস্থানীয় আদেশের মাধ্যমে উচ্চতর গবেষণা ও ফতোয়া বিভাগের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত ফতোয়া বোর্ডের সদস্যপদ লাভ করেন ১৯৯৮ সালে। এর পাঁচ বছর পর রাজকীয় আদেশে সৌদি আরবের সর্বোচ্চ ওলামা পরিষদের সদস্য হন। এছাড়াও তিনি সৌদি আরবের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বোর্ড-পরিষদের সদস্য।

এই বিভাগের আরো খবর