মঙ্গলবার   ২৮ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ১৫ ১৪২৬   ০২ জমাদিউস সানি ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
মৌলভীবাজারে অগ্নিকাণ্ডে একই পরিবারের ৫ জন নিহত একনেকে ৯ প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী করোনা ভাইরাস: সর্বত্র সতর্ক থাকার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর আমেরিকা ও ইসরায়েলের কমান্ডাররাও পালানোর পথ খুঁজে পাবে না সাকিবকে ওজন কমাতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী মুজিববর্ষে সব সরকারি কলেজে বসবে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য শিল্প-বৈদেশিক বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানের নামজারি ৭ দিনে মানসিক চাপ কমাতে সাহায্য করে যেসব খাবার নেহা-আদিত্যর বিয়ে ১৪ ফেব্রুয়ারি সোয়া ৯ কোটি টাকা আত্মসাতে তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা আড়ংয়ের ট্রায়াল রুমে গোপনে ভিডিও,গ্রেপ্তার -১ নৌকার গণজোয়ারে দিশেহারা বিএনপি প্রার্থী: তাপস এবার বিএনপি ছাড়ছেন কোষাধ্যক্ষ সিনহা! নারীর নিরাপত্তায় ৪৮ হাজার এলইডি লাইট লাগানোর প্রতিশ্রুতি আতিকের দেশে বর্তমানে মাদরাসার সংখ্যা সাড়ে ৯ হাজার সীমান্তে বিজিবির অভিযান, দেড় কেজি স্বর্ণালঙ্কার উদ্ধার আতিকের নির্বাচনী কার্যালয়ে রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক হাতিরঝিল—বনশ্রী হয়ে চট্টগ্রাম রোডে মিলবে পৃথক চারলেন ব্যাংককের ইমিগ্রেশন হচ্ছে শাহ আমানত বিমানবন্দরেও চীনে আটকে পড়াদের দেশে ফেরাতে বিশেষ ফ্লাইট পাঠাবে সরকার
৪৩

এসডিজি অর্জনে দুই দিকে গুরুত্ব দিয়ে বিনিয়োগ করতে হবে

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ১১ ডিসেম্বর ২০১৯  

সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা মো. মির্জা আজিজুল ইসলাম বলেছেন, এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জন করতে চাইলে দুই দিকে গুরুত্ব দিয়ে বিনিয়োগ করতে হবে।

তিনি বলেন, ‘কিছু ক্ষেত্রকে বিনিয়োগের মাধ্যমে উৎসাহিত করতে হবে এবং কিছু ক্ষেত্রে বিনিয়োগ থেকে বিরত থাকতে নিরুৎসাহিত করতে হবে।’

বুধবার রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিন্যান্টালে ‘ইনক্লুসিভ ফাইন্যান্সিং ফর এসডিজি ইন এশিয়া অ্যান্ড দ্য প্যাসিফিক’ শীর্ষক এক সেশনে তিনি এই কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করতে হলে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পে বিনিয়োগ বাড়াতে হবে। সেই সঙ্গে বনভূমি ধ্বংস করে, মানবদেহের ক্ষতি করে, শিশু শ্রমকে উৎসাহিত করে, মাদক খাতে বিনিয়োগে নিরুৎসাহিত করা প্রয়োজন।’

তিনি বলেন, ‘এমন ক্ষেত্রগুলোতে বিনিয়োগ করতে হবে যেন একেবারে প্রান্তিক পর্যায়ের মানুষও যেন তাতে যুক্ত হতে পারে। দারিদ্র দূরীকরণে, অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে নারীদের সমানাধিকার প্রতিষ্ঠা, পণ্যে বৈচিত্রতা আনা, প্রযুক্তিগত উন্নয়নে বিনিয়োগ করতে হবে। সেই সঙ্গে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তারা যেন অর্থনীতি যুক্ত হতে পারে, সেই ধরনের অর্থনৈতিক পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে।’

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, ‘২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ উন্নত দেশে পরিণত হবে। এ জন্য সবার সহযোগিতা প্রত্যাশা করি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। বিশেষ করে অবকাঠামো, গ্রামে গ্রামে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেয়া, শিক্ষায় ব্যাপক উন্নয়ন সাধিত হয়েছে।’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন কম্বোডিয়ার বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ভাইস মিনিস্টার বুন চান্থি, শ্রীলঙ্কার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের বান্দুলা গুনাওয়ারডেনা, নেপালের জাতীয় পরিকল্পনা কমিশনের ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. পুষ্প রাজ কাদেল প্রমুখ।
 

বরগুনার আলো
এই বিভাগের আরো খবর