• মঙ্গলবার   ২৪ নভেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১০ ১৪২৭

  • || ০৮ রবিউস সানি ১৪৪২

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২৮, শনাক্ত ২৪১৯ শিক্ষার্থী সাওদা হত্যাকাণ্ডে আসামির যাবজ্জীবন করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৩৮, শনাক্ত ২০৬০ স্বাধীনতার ইতিহাস বিকৃত করাই বিএনপির গণতন্ত্র: কাদের প্রখ্যাত আলেম পীরজাদা গোলাম সারোয়ার সাঈদী আর নেই মানুষের কঙ্কালসহ গ্রেফতার বাপ্পী তিন দিনের রিমান্ডে শ্রাবন্তীকে কুপ্রস্তাবের অভিযোগে খুলনায় যুবক গ্রেফতার ডিসেম্বরের মাঝামাঝিতে বসবে পদ্মাসেতুর অবশিষ্ট ৪ স্প্যান: কাদের করোনায় আরও ৩০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৩৬৪ ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় মজনুর যাবজ্জীবন ২০২১ সালের মধ্যে ১২৯ নতুন ফায়ার স্টেশন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এএসপি আনিসুল হত্যা মামলা: রিমান্ড শেষে কারাগারে আরও ৪ টিউশন ফি ছাড়া অন্য খাতে অর্থ নিতে পারবে না স্কুল-কলেজ বিএনপির রাজনীতিতে হতাশা আর ব্যর্থতা ভর করেছে: কাদের শাহজালালে যাত্রীর কাছ থেকে ৫ কোটি টাকার স্বর্ণের বার উদ্ধার নেপালের বিপক্ষে সিরিজ জয় বাংলাদেশের বিএনপি বাসে আগুন দিয়ে অবলীলায় মিথ্যা বলছে: তথ্যমন্ত্রী ফাতেহা-ই-ইয়াজদাহম ২৭ নভেম্বর সাবেক ডেপুটি স্পিকার শওকত আলী আর নেই মিথ্যা বলায় পুরস্কার থাকলে প্রথমটি পেতেন ফখরুল: তথ্যমন্ত্রী

কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণ করলো শিবির ক্যাডার ফয়সাল

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ১১ মে ২০২০  

ফেনীতে আবারো বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণ করার ঘটনা ঘটিয়েছে এক শিবির ক্যাডার। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সেই কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় ইসলামী ছাত্রশিবির নেতা আজিজ আল ফয়সালকে আটক করে পুলিশ। পরে ৪ লাখ টাকায় পারিবারিক মীমাংসার নামে রফাদফা করার অভিযোগ করছে ভুক্তভোগী মেয়ের পরিবার। ঘটনাটি জানাজানি হলে নারী নেত্রীদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে বলে সূত্র নিশ্চিত করেছে।

শনিবার রাতে ফেনী মডেল থানায় সমঝোতার এ ঘটনা ঘটেছে বলে ভুক্তভোগীর পরিবার গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছে। অভিযুক্ত ফয়সাল ফেনী শহরের ডাক্তারপাড়া হাজী ইমাম বক্স সড়ক এলাকার মনিরুল হকের ছেলে। শিবির নেতা আজিজ আল ফয়সালের বিরুদ্ধে জামায়াত-শিবিরের সঙ্গে যুক্ত হয়ে নাশকতা কাজে জড়িত থাকার অভিযোগও রয়েছে।

পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা গেছে, প্রায় এক বছর পূর্বে ফেনী শহরের ডাক্তারপাড়া হাজী ইমাম বক্স সড়ক এলাকার মনিরুল হকের ছেলে শিবির নেতা আজিজ আল ফয়সালের সাথে দাগনভূঞা উপজেলার সিন্দুরপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা ফেনী সরকারি কলেজের এক ছাত্রীর সাথে পরিচয় হয়। এরপর থেকে উভয়ের মাঝে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। বিয়ে করার আশ্বাস দিয়ে ওই ছাত্রীকে নিয়ে বিভিন্নস্থানে নিয়ে ধর্ষণ করে ফয়সাল। এছাড়া প্রায় সময় বিভিন্ন অজুহাতে কলেজছাত্রী থেকে বিকাশের মাধ্যমে ফয়সাল টাকা নিতো। কিছুদিন আগে বিয়ে করে এই ছাত্রীকে ঘরে তুলে নিতে ফয়সালের উপর চাপ আসে। এতে নানা টালবাহানা শুরু করে। একপর্যায়ে বিয়ে থেকে রক্ষা পেতে কলেজ ছাত্রীর বিরুদ্ধে কল্পকাহিনী সাজিয়ে ৩ মে ফেনী মডেল থানায় অভিযোগ দেয় ফয়সাল।

জানা গেছে, গত ৮ মে শুক্রবার বিকালে ফেনী থানার এসআই বিকাশ চক্রবর্তী ওই কলেজছাত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে মূল ঘটনা বেরিয়ে আসে। ওই ছাত্রী ফয়সালের বিরুদ্ধে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করার অভিযোগ দিয়ে পুলিশ কর্মকর্তাকে উভয়ের ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের নানা ভিডিও, ছবি ও কল রেকর্ড দেখান। ফয়সালকে ওই দিন সন্ধ্যায় থানায় ডেকে এনে আটক করে পুলিশ। পরে সাংবাদিক নামধারী শিবির নেতাদের একটিচক্র ৪ লাখ টাকায় মীমাংসার নামে রফাদফা করলে ৯ মে শনিবার রাতে থানা থেকে মুক্তি পান শিবির নেতা ফয়সাল। ঘটনাটি জানাজানি হলে নারী নেত্রীদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

রহিমা আক্তার নামে কলেজ ছাত্রীর এক আত্মীয় জানান, ফয়সালকে বিয়ের চাপ দিলে সে নিজেকে সময় মিডিয়া ও সময় পত্রিকার সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে নানা হুমকি দিয়েছে বলে জানতে পারছি। বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ করার সব প্রমাণ থাকার পরেও সমঝোতার কথা বলে গরিব পরিবারের এক মেয়েকে ন্যায়বিচার থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ফেনী পৌর আওয়ামী লীগের এক নেতা জানান, জামায়াত-শিবিরের নাশকতা কাজে জড়িত ছিল ফয়সাল। কিছু লোকের কারণে সে পুলিশের মামলা থেকে রক্ষা পায়। এখনো ফয়সালের ঘরে জামায়াত-শিবিরের গোপন বৈঠক হয় বলে এ নেতা জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে ফেনী মডেল থানার এসআই ও তদন্তকারী কর্মকর্তা বিকাশ চক্রবর্তী আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ছেলেমেয়ে একে অপরের বিরুদ্ধে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দিয়েছে। পরে উভয়ের পরিবার বসে সমঝোতা করেছে।

বরগুনার আলো