শুক্রবার   ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২১ ১৪২৬   ০৮ রবিউস সানি ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
বিএনপিপন্থিদের হট্টগোল কলঙ্কজনক-আদালত অবমাননা অন-অ্যারাইভাল ভিসাসহ বাংলাদেশ-ভারতের নৌপথে খুলছে অনেক জট ‘বিশ্বসুন্দরী’র রোমান্টিক গান নিয়ে হাজির সিয়াম-পরী মেয়েদের রৌপ্য, বাকী জিতেছেন ব্রোঞ্জ আইনজীবী তালিকাভুক্তি নিবন্ধন পরীক্ষা ২৮ ফেব্রুয়ারি পদক পাচ্ছেন ডিজিসহ বিজিবির ৬০ সদস্য আখেরাতের জীবন চিরস্থায়ী ডাক ও টেলিযোগাযোগের নতুন সচিব নূর-উর রহমান মানুষের রক্ত চুষে বড় লোক হবেন না: রাষ্ট্রপতি অপরাধীদের স্থান আওয়ামী লীগে নেই: ওবায়দুল কাদের সরকারিভাবে স্যানিটারি ন্যাপকিন ফ্রি পাবে মেয়েরা হ‌লি আ‌র্টিজান মামলার ডেথ রেফারেন্স হাইকোর্টে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্রের বিরুদ্ধে একজোট হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রসহ ইউরোপ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের স্নেহশীল হওয়ার আহ্বান রাষ্ট্রপতির কিডনি দান করা যাবে, কেনাবেচা যাবে না: হাইকোর্ট বাংলাদেশে কোনো আর্থিক সংকট নেই: স্পিকার টেলিযোগাযোগ বিভাগে নতুন সচিব, ট্যারিফ কমিশনে চেয়ারম্যান গণতন্ত্র এখন মজবুত ভিতের ওপর প্রতিষ্ঠিত: রাষ্ট্রপতি বাড়াবাড়ির একটা সীমা থাকা দরকার: প্রধান বিচারপতি তরুণদের মেধাশ্রম মানব কল্যাণে ব্যয় করার আহ্বান
৭৯

কাশ্মীরে নতুন যুগের সূচনা : জাতির উদ্দেশে ভাষণে মোদি

প্রকাশিত: ৮ আগস্ট ২০১৯  

জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের পক্ষে সাফাই গাইলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ভারতীয় সংবিধানের অনুচ্ছেদ ৩৭০ বাতিলে পাকিস্তানের সঙ্গে উত্তেজনা শুরুর পর বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৮টার দিকে জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেন ভারতের এই প্রধানমন্ত্রী।

এ সময় অনুচ্ছেদ ৩৭০ বাতিল হওয়ার ব্যাপারে তিনি বলেন, এটি এ অঞ্চলের মানুষকে মুক্ত করবে এবং দেশের অন্যান্য অংশের সঙ্গে তাদের আরো ঘনিষ্ঠতা বাড়বে।

৫ আগস্ট কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল হওয়ার পর থেকে কাশ্মীর কার্যত পুরো বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন। এর মধ্যে বৃহস্পতিবার দেশবাসীর উদ্দেশে দেয়া ভাষণে কাশ্মীর ঘিরে ভারত সরকারের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার কথা জানান নরেন্দ্র মোদি।

প্রায় ৪০ মিনিট ধরে দেয়া ভাষণে মোদি বলেন, জম্মু-কাশ্মীর এবং লাদাখের মানুষ তাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত হতো। বল্লব ভাই প্যাটেল থেকে বিআর আম্বেদকর, এসপি মুখার্জি, অটল বিহারি বাজপেয়ী এবং কোটি কোটি ভারতীয়র স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। জম্মু-কাশ্মীরে নতুন যুগের সূচনা হয়েছে। এখন দেশের প্রত্যেকেই সমান অধিকার এবং সুবিধা ভোগ করবেন। আমি জম্মু-কাশ্মীর, লাদাখ এবং দেশের সব মানুষকে অভিনন্দন জানাই।

কিছু সময় থাকে যখন কিছু জিনিস থমকে থাকে, পরিবর্তন হয় না। অনুচ্ছেদ ৩৭০ এর ক্ষেত্রেও তেমন ঘটনা ঘটল। অনুচ্ছেদ ৩৭০ মানুষের ক্ষতি করেছে, জম্মু-কাশ্মীরের শিশুদের ক্ষতি করেছে; কিন্তু এটা নিয়ে কোনো কথা হয়নি।

মোদি বলেন, অনুচ্ছেদ ৩৭০ ও ৩৫-এ জম্মু-কাশ্মীরকে সন্ত্রাসবাদ, বংশীয় পরম্পরা ও দুর্নীতির দিকে টেনে নিয়ে গেছে। এসবের মাঝে সেখানকার জনগণ পাকিস্তানের অস্ত্র হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে। গত তিন দশকে কাশ্মীরে নিষ্পাপ ৪২ হাজার মানুষের প্রাণ গেছে। ৪২ হাজার নিষ্পাপ মানুষ!

ভারতের এই প্রধানমন্ত্রী বলেন, যে গতিতে জম্মু-কাশ্মীরের উন্নয়ন হওয়ার কথা ছিল, সেভাবে হয়নি। এখন জম্মু-কাশ্মীর এবং লাদাখের মানুষের ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল হবে। জাতির মঙ্গলের জন্য পার্লামেন্টে খসড়া আইন পাস হয়েছে; কোন সরকার বা জোট ক্ষমতায় থাকলো সেটি কোনো বিষয় নয়।

‘কাশ্মীরের ঘটনায় সংসদ আইন তৈরি করেছিল কিন্তু সেই আইন থেকে সেখানকার মানুষ কোনো উপকার পায়নি। পুরো দেশের জন্য খসড়া শিক্ষা আইন প্রস্তুত করা হলেও জম্মু-কাশ্মীরের দেড় কোটি মানুষ কোনো উপকার পায়নি। তাদের অপরাধ কি ছিল?’

তিনি বলেন, জম্মু কাশ্মীরের কন্যা শিশুরা তাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত হয়েছে, কিন্তু দেশের অন্যান্য প্রান্তের শিশুরা উপকৃত হয়েছে। দলিতদের ওপর নৃশংসতা ঠেকাতে আইন হয়েছে, কিন্তু জম্মু কাশ্মীরে এ ধরনের আইন নেই।

‌জম্মু-কাশ্মীরের শ্রমিকরা তাদের কাজের নিশ্চয়তা এবং অধিকার থেকে বঞ্চিত ছিল। জম্মু-কাশ্মীর মানুষ কখনোই কোটা থেকে উপকার পায়নি। তবে অনুচ্ছেদ ৩৭০ এবং ৩৫-এ এখন ইতিহাস। কেন্দ্র এখন এটা নিশ্চিত করছে যে, জম্মু-কাশ্মীরের সব মানুষ, এমনকি পুলিশ সদস্যরা অন্যান্য রাজ্যের মতো সুযোগ সুবিধা ভোগ করবে।

 

এই বিভাগের আরো খবর