• শনিবার   ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||

  • আশ্বিন ৪ ১৪২৭

  • || ০১ সফর ১৪৪২

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
নারায়ণগঞ্জের মসজিদে বিস্ফোরণে মৃত্যু বেড়ে ৩৩ আহমদ শফী কওমি শিক্ষার আধুনিকায়নে ভূমিকা রেখেছেন: প্রধানমন্ত্রী না.গঞ্জে মসজিদে বিস্ফোরণে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩২ করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৩৬, শনাক্ত ১৫৯৩ সরকার ওজোনস্তর রক্ষায় কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে: পরিবেশ মন্ত্রী শামুকের পাশাপাশি ঝিনুকও সংরক্ষণ করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৪৩, শনাক্ত ১৭২৪ পাটকল শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধের কার্যক্রম শুরু তুরস্কে বাংলাদেশ চ্যান্সারি ভবন উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২৬, শনাক্ত ১৮১২ এবার দুদকের মামলায় ওসি প্রদীপ গ্রেপ্তার প্রধানমন্ত্রী কাল আঙ্কারায় বাংলাদেশ চ্যান্সেরির উদ্বোধন করবেন প্রতিবেশীদের সাথে বাংলাদেশের আস্থার সম্পর্ক: ওবায়দুল কাদের ইউএনও’র ওপর হামলা: মালি রবিউল ৬ দিনের রিমান্ডে ২০২২ সালের মধ্যে ঢাকা-কক্সবাজার সরাসরি ট্রেন চলবে: রেলমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৩৪, শনাক্ত ১২৮২ শিক্ষার্থীদের আমরা এক হাজার করে টাকা দেব: প্রধানমন্ত্রী সিনহা হত্যা: জবানবন্দি শেষে কারাগারে চার পুলিশ করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৩৬, শনাক্ত ১৮৯২ বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ মোস্তফা কামালের মা আর নেই
৮২

কূটনৈতিকদের সঙ্গে বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের বৈঠকে প্রধান বাধা তারেক!

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

দীর্ঘদিন পর কূটনৈতিকদের সঙ্গে বসলো বিএনপি এবং ঐক্যফ্রন্ট। দেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে কূটনৈতিকদের ব্রিফ করার জন্যই ড. মঈন খানের বাসভবনে বৈঠকের আয়োজন করা হয়। কিন্তু বহুদিন পরে সে বৈঠকে নতুন করে আবারও তারেক রহমানের প্রসঙ্গ আসায় বৈঠক ফলপ্রসূ হয়নি বলেই জানা গেছে।

বৈঠকে বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবার্ট মিলার উপস্থিত ছিলেন। তিনিই মূলত কূটনৈতিকদের মধ্যে থেকে বিভিন্ন প্রশ্ন করেন। যেখানে বিএনপিতে তারেকের ভূমিকা, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে তার সম্পর্কসহ বিভিন্ন প্রশ্ন করেন। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির তরফ থেকে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এবং জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের তরফ থেকে ড. কামাল।

সূত্র বলছে, অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে রবার্ট মিলার বিএনপিতে তারেকের ভূমিকার কথা জানতে চান। তিনি তারেকের ব্যাপারে তিনটি প্রশ্ন করেন। প্রথম প্রশ্ন ছিলো- বিএনপি গঠনতন্ত্র অনুযায়ী একজন দণ্ডিত অপরাধী একটি দলের নেতৃত্বে থাকতে পারে কি না? দ্বিতীয় প্রশ্ন ছিলো, বিএনপিতে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের কোনো পদ আছে কি না? এবং সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে তারেক রহমান অন্য সিনিয়র নেতাদের মতামত নেন কি না? তৃতীয়ত, জামায়াতসহ বিভিন্ন জঙ্গি এবং সাম্প্রদায়িক শক্তির সঙ্গে তারেক রহমানের সংশ্লিষ্টতার যে অভিযোগ এবং তথ্য প্রমাণাদি রয়েছে সে ব্যাপারে বিএনপি নেতাদের বক্তব্য কী?

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নিয়ে প্রশ্নে রবার্ট মিলার ড. কামালের কাছে জানতে চান তারেকের নেতৃত্বে বিএনপির সঙ্গে তিনি ঐক্য করছেন কেন? ড. কামাল হোসেন উত্তরে বলেন, তিনি তারেকের সঙ্গে ঐক্য করেননি। তিনি বিএনপির সঙ্গে ঐক্য করছেন এবং এই ঐক্যে তারেক রহমানের কোনো ভূমিকা নেই। কিন্তু মির্জা ফখরুলের উত্তরের সঙ্গে ড. কামালের উত্তরের সামঞ্জস্যতা না পেয়ে কূটনীতিকরা কিছুটা বিব্রত হয়েছেন বলে জানা যায়।

এদিকে বৈঠকের পর বিভিন্ন কূটনৈতিকদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা এ ব্যাপারে তাদের অসন্তোষ এবং আপত্তির কথা জানিয়েছেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে বৈঠকে উপস্থিত একজন কূটনৈতিক বলেন, আমরা এ পর্যন্ত চার দফা বৈঠকে তারেকের ব্যাপারে সুস্পষ্ট আপত্তি উত্থাপন করেছি। আমরা বলেছি যে, একটা শক্তিশালী বিরোধী দলের স্বার্থেই তারেক রহমানের মতো বিতর্কিত ব্যক্তিদের সরে যাওয়া উচিত। সর্বোপরি তিনি যেহেতু দেশে নেই, ফলে দেশের রাজনীতিতে তার না থাকাই উত্তম। কিন্তু বিএনপিকে বারবার বলার পরও বিএনপি এ ব্যাপারে কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না বা নিতে পারছে না। একাধিক কূটনৈতিকরা বলেছেন যে, যতক্ষণ তারেক রহমান বিএনপির ভারপ্রাপ্ত নেতা হিসেবে থাকবেন ততক্ষণ বিএনপিকে সমর্থন দেওয়া বা বিএনপির দাবি দাওয়ার প্রতি সহানুভূতি জানানোর কোনো সুযোগ নেই। কারণ আন্তর্জাতিক রীতি অনুযায়ী, একজন দণ্ডিত ব্যক্তিকে সহযোগিতা করার কোনো রেওয়াজ কূটনৈতিকদের নেই।

বরগুনার আলো
রাজনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর