বৃহস্পতিবার   ২১ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৭ ১৪২৬   ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
অনার্স ২য় বর্ষের ২৫ নভেম্বরের পরীক্ষা স্থগিত কোন অপপ্রচারে কান না দিতে জনগণের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান ‘গোলাপি’ যাত্রা রাঙ্গাতে কাল মাঠে নামছে বাংলাদেশ সারাবিশ্বে বাংলাদেশ এখন সম্মানের দেশ: প্রধানমন্ত্রী সশস্ত্র বাহিনী দিবসের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী আজ সন্ধ্যায় আ. লীগের অভ্যর্থনা উপকমিটির সভা ইউনেস্কোর সাধারণ অধিবেশনে অংশ নিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী শিখা অনির্বাণে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা দুদকের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ সশস্ত্র বাহিনী নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করবেন- প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে আইভোরি কোস্টের রাষ্ট্রদূতের বিদায়ী সাক্ষাৎ সশস্ত্র বাহিনী জাতির গর্বের প্রতীক : রাষ্ট্রপতি আজ বিশ্ব টেলিভিশন দিবস সারাদেশের পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহার ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন লিখতে হবে স্পষ্ট অক্ষরে: হাইকোর্ট আজ সশস্ত্র বাহিনী দিবস শাহজালালে পৌঁছেছে পাকিস্তানের ৮২ টন পেঁয়াজ ক্রিকেটের সঙ্গে টেনিসও এগিয়ে যাচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী রিফাত হত্যা : চার্জ গঠন ২৮ নভেম্বর চালের দাম বাড়ানোর চেষ্টা করলে কঠোর ব্যবস্থা: খাদ্যমন্ত্রী
২৪৩

কোকা-কোলার গোপন কথা!

প্রকাশিত: ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮  

বর্তমান বিশ্বে প্রশ্নাতীতভাবে সবচেয়ে জনপ্রিয় কোমল পানীয়র ব্র্যান্ডটি হলো কোকা-কোলা। পৃথিবীর এমন কোনো স্থান নেই যেখানে এই কোমল পানীয়টির অস্তিত্ব নেই! দ্য কোকা কোলা কোম্পানি প্রতিষ্ঠিত হয় আজ থেকে ১৩২ বছর আগে, ১৮৮৬ সালে। শুরুতে কোম্পানিটির পেটেন্ট করা হয়েছিল ঔষধ প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান হিসেবে! এই সুপ্রাচীন কোমল পানীয়র ইতিহাসের পরতে পরতে লুকিয়ে আছে আরো অনেক গোপন ও আশ্চর্যজনক তথ্য। সেদিকেই চোখ বুলানো যাক!

১. ১৯০৫ সালের আগ পর্যন্ত কোকা-কোলাতে কোকেন ব্যবহার করা হতো। পরে অবশ্য জনস্বাস্থ্যের কথা চিন্তা করে এ কাজ থেকে সরে আসে কোকা-কোলা কোম্পানি।

২. শুরুর দিকে মাথা ব্যথা ও ভ্রমণ ক্লান্তি দূর করতে ঔষধ হিসেবে কোকা-কোলা সেবন করা হতো !

৩. কোকা-কোলা শব্দটি মূলত চাইনিজ। যার অর্থ, ' টু মেক মাউথ হ্যাপি'!

৪. এ পর্যন্ত যত বোতল কোকা-কোলা প্রস্তুত করা হয়েছে সবগুলো তার বোতলকে যদি পাশাপাশি বসানো হতো তবে পৃথিবী থেকে চাঁদের দূরত্ব পাড়ি দিয়েও আরো ১ হাজার ৬৭৭ মাইল দূরে পৌঁছানো সম্ভব হতো !

৫. মানুষের মৃত্যুর পর তার দাঁত শত শত বছর মাটির নিচে থেকেও অক্ষত থাকতে পারে। কিন্তু এই দাঁত মাত্র এক রাত কোকা-কোলায় ডুবিয়ে রাখলে নরম হওয়া শুরু করে, কোকা-কোলার ক্ষয়কারী ক্ষমতা এতই বেশি!

৬. রক্তের দাগ মুছতে কোকা-কোলার জুড়ি নেই! এ কারণেই যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন সড়ক দুর্ঘটনার পর রাস্তার ওপর পড়ে থাকা রক্তের দাগ মুছতে কোকা-কোলা ব্যবহার করা হয়।

৭. কাপড়ের তেল চিটচিটে দাগও সহজেই কোকা-কোলা ব্যাবহার করে তুলে ফেলা যায়। এজন্য প্রথমে কোকা-কোলা তারপর ডিটারজেন্ট ব্যবহার করে কাপড় ধুতে হয়।

৮. পি এইচ স্কেলে এক বোতল কোকাকোলার মান ২ দশমিক ৮, যা প্রচণ্ড এসিডিক। মানুষের একটি নখ কোকাকোলা পূর্ণ একটি বোতলে মাত্র ৪ দিন রাখলেই তা নিশ্চিহ্ন হয়ে যায়!

৯. ২০০৬ সালে কোকা-কোলা ব্ল্যাক নামের একটি ফ্লেভার বাজারে আসে। এটি ছিল মূলত কফি ফ্লেভারের। পরবর্তীতে ইংল্যান্ড ও কানাডাতেও কোকাকোলা ব্ল্যাক ছড়িয়ে পড়ে। কিন্তু মাত্র দুই বছর পর ২০০৮ সালে কোকা-কোলা কোম্পানি ব্ল্যাক এর উৎপাদন আনুষ্ঠানিকভাবে বন্ধ করে দেয়।

১০. আধুনিক সান্টা-ক্লজের প্রতিকৃতি তৈরিতেও কোকাকোলার অবদান অনেকখানি!