শনিবার   ১৭ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ২ ১৪২৬   ১৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
চামড়ার দরপতনের সঙ্গে জড়িতদের বিচার হবে: তথ্যমন্ত্রী বোর্ডের কাছে দুই মাসের সময় চাইলেন মাশরাফি মোটরসাইকেলসহ দুই চোর গ্রেফতার ডেঙ্গুজ্বর থেকে মুক্তি পেতে ‘স্টপ ডেঙ্গু’ অ্যাপ চালু দেশব্যাপী সিরিজ বোমা হামলার ১৪ বছর আজ মেসিহীন হার দিয়ে লা লিগা শুরু বার্সার আজ থেকে হজের ফিরতি ফ্লাইট শুরু কবি শামসুর রাহমানের ১৩তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ সোমবার ঢাকায় আসছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী কবিরা গুনাহকারীরা কি চিরকাল জাহান্নামে থাকবে? মিরপুরে বস্তির আগুন নিয়ন্ত্রণে ২০ ইউনিট ১৯ হাজার ৪০০ পিস ইয়াবাসহ আটক দুই বাড়তি ভাড়া আদায়ের অপরাধে ১৭ পরিবহনকে জরিমানা ‘সবসময় যারা আমাদের বাড়িতে ঘোরাঘুরি করতো তারাই সেই খুনি’   হাতঘড়ির ফ্যাশন ফিরে এসেছে দেশে শেখ হাসিনার জীবনই এখন বেশি ঝুঁকিপূর্ণ : কাদের বিশ্বের আট গুরুত্বপূর্ণ শহরে ‘মুজিববর্ষ’ উদযাপন করা হবে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের জন্য প্রাথমিক দল ঘোষণা বাংলাদেশের জিরো টলারেন্স নীতিতে জঙ্গি দমন সম্ভব হয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রবি শাস্ত্রীই কোচের দায়িত্বে থাকছেন: সিএসি
৬৫২

কোরবানির কিছু জরুরি বিধান

প্রকাশিত: ৭ আগস্ট ২০১৯  

প্রত্যেক মুসলমানদের উপর কোরবানির কিছু জরুরি বিধান রয়েছে ঃ

(১) কোনো ব্যক্তি যদি পশু কেনার করার সময় শরিক না নেয়ার ইচ্ছা থাকে, পরবর্তীতে শরিক নিতে চায়, তাহলে ক্রেতা গরিব হলে শরিক নিতে পারবে না, ধনী হলে পারবে।

(২) যার সব উপার্জন বা অধিকাংশ উপার্জন হারাম, তাকে শরিক হিসেবে নিলে অন্যদের কোরবানিও নষ্ট হয়ে যাবে।

(৩) যদি কোরবানির পশু কেনার সময় সব অংশীদারের ওয়াজিব কোরবানি আদায় করার নিয়ত থাকে, তাহলে পশু খরিদ করার পর ৭ জন পর্যন্ত নতুন অংশীদার নেয়া যাবে। কিন্তু যদি তাদের মধ্য থেকে একজন নফল কোরবানি করার ইচ্ছা করেন, তাহলে আর অতিরিক্ত শরিক নেয়া যাবে না।

তাই শরিক নেয়ার বিষয়টি পশু খরিদ করার আগেই চূড়ান্ত করে নেয়া উচিত।

ঋণ করে কোরবানি করা

কোনো ব্যক্তির ওপর সম্পদের হিসাবে কোরবানি করা ওয়াজিব। কিন্তু তার কাছে নগদ অর্থ নেই, আবার সে কোরবানির জন্য সম্পদ বিক্রিও করতে চায় না, তাহলে সে প্রয়োজনে ঋণ করে হলেও কোরবানি করবে। যেমন সে তার অন্য প্রয়োজনে ঋণ করে থাকে।

মৃত ব্যক্তির নামে কোরবানি

মৃত ব্যক্তির নামে কোরবানি করা জায়েজ আছে। এটি হাদিস দ্বারা প্রমাণিত। এক্ষেত্রে মৃত ব্যক্তি সওয়াবের অধিকারী হবেন এবং এ কোরবানির গোশত সাধারণ কোরবানির মতো যা ইচ্ছা তা-ই করতে পারবে- খেতেও পারবে আবার দানও করতে পারবে।

তবে কোরবানি যদি মৃত ব্যক্তির ওসিয়তের ভিত্তিতে হয়, তাহলে সে কোরবানির গোশত কোরবানিদাতার ওপর খাওয়া জায়েজ নয়, বরং তা সদকা করে দিতে হবে।

জীবিত মানুষের নামে কোরবানি

জীবিত মানুষ একজন অপরজনের পক্ষ থেকে কোরবানি করলে কোরবানি শুদ্ধ হয় এবং যার পক্ষ থেকে করা হয়েছে, সে তার সওয়াব পেয়ে যায়। আর যদি তার নির্দেশক্রমে হয়, তাহলে তার ওয়াজিব কোরবানি আদায় হয়ে যায়।

এই বিভাগের আরো খবর