রোববার   ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৪ ১৪২৬   ১০ রবিউস সানি ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
বরগুনায় তিন দিনব্যাপি কৃষি প্রযুক্তি মেলা শুরু নারীরা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে এগিয়ে যাবেন  নারীর স্বনির্ভরতা অর্জনে সকলকে একযোগে কাজ করতে রাষ্ট্রপতির আহবান সচিবালয়ের আশপাশে হর্ন বাজালেই জেল-জরিমানা পরস্পরের সালাম শুভেচ্ছা বিনিময়ের শ্রেষ্ঠ প্রথা মানবাধিকার দিবসে প্রকাশ্যে আসছেন এসিডদগ্ধ দীপিকা দেশের প্রথম আইটি বিজনেস ইনকিউবেটর নির্মাণকাজের উদ্বোধন   শুরু হলো বঙ্গবন্ধু বিপিএলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বিজয়ীদের চলচ্চিত্র পুরস্কার তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী বিপিএল উদ্বোধনীতে সালমান খান ও ক্যাটরিনা কাইফ মঞ্চ প্রস্তুত, অপেক্ষা কিছুক্ষণের রাত পোহালেই সমাবর্তন বরিশাল মহানগর আ’লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর, সম্পাদক সাদিক মরা গাঙে জোয়ার আর আসে না, বিএনপিকে কাদের ‘পানিপথ’ বনাম ‘পতি পত্নী অউর ওহ’ বেগম রোকেয়া পদক পাচ্ছেন ৫ বিশিষ্ট নারী ক্রিকেটেও স্বর্ণ জিতলো বাংলাদেশের মেয়েরা পবিত্র ফাতিহা-ই-ইয়াজদাহম সোমবার বিজয় র‌্যালিতে বিএনপির হামলা, ছাত্রলীগ নেতাসহ আহত ২০ বিজয় দিবসে অভ্যর্থনায় ভারত যাচ্ছেন ৩০ মুক্তিযোদ্ধা
৪৪২

ক্যাসিনো ইস্যুতে গ্রেফতার হচ্ছেন মির্জা আব্বাস,ফখরুল ও নজরুল

প্রকাশিত: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

 যুবদলের সাবেক নেতা ও মাফিয়া ঠিকাদার জি কে শামীমের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার কারণে গ্রেপ্তার হতে যাচ্ছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, ও নজরুল ইসলাম খান।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জি কে শামীমের পৃষ্ঠপোষকতার বিষয়ে বিএনপি নেতা মির্জা আব্বাস ও নজরুল ইসলাম খানের নাম জানিয়েছেন বলেও জানা গেছে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সূত্রে জানা গেছে, জি কে শামীম বিএনপির একাধিক নেতার সঙ্গে তার সংশ্লিষ্টতার কথা স্বীকার করেছেন। মির্জা আব্বাসের তত্ত্বাবধানেই জি কে বিল্ডার্সসহ তার অন্যান্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো পরিচালিত হয় বলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে জানিয়েছেন শামীম। এই প্রেক্ষাপটে যেকোনো মুহূর্তে গ্রেপ্তার হতে পারেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস ও নজরুল ইসলাম খান।

জানা গেছে যে, মির্জা আব্বাসের হাত ধরেই জি কে শামীমের উত্থান। বিগত বিএনপির শাসনামলে মির্জা আব্বাস যখন গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী ছিলেন তখনই গণপূর্তে ঠিকাদারি ব্যবসা শুরু করেন শামীম। তার গডফাদার ছিলেন মির্জা আব্বাস।

এদিকে জি কে শামীমের অফিসে র‌্যাব অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ টাকা, অস্ত্রশস্ত্র ও অন্যান্য সামগ্রীর সঙ্গে একটি খাতাও খুঁজে পায়। ওই খাতায় দেখা যায় যে, বিএনপি শীর্ষস্থানীয় নেতা মির্জা আব্বাস এবং নজরুল ইসলাম খানকে নিয়মিত অর্থ দিতেন জি কে শামীম। উক্ত খাতাটি এখন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হেফাজতে রয়েছে বলে জানা গেছে। মির্জা আব্বাস এবং নজরুল ইসলাম খান শামীমের কাছ থেকে যে নিয়মিত টাকা পেতেন সে ব্যাপারে নিশ্চিত হতে পেরেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এই টাকার অংকটা কোটির ঘরে বলে জানিয়েছে একটি সূত্র। মির্জা আব্বাস এবং নজরুল ইসলাম খান বাদে আর কোন নেতা জি কে শামীমের কাছ থেকে টাকা পেতেন তা নিয়েও তদন্ত করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার (২০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রাজধানীর নিকেতনে জি কে শামীমের ব্যবসায়িক কার্যালয় জি কে বিল্ডার্স থেকে তাকে আটক করে র‌্যাব। সেখান থেকে বিপুল পরিমাণ টাকাও উদ্ধার হয়।

এই বিভাগের আরো খবর