বুধবার   ০১ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ১৭ ১৪২৬   ০৭ শা'বান ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
করোনায় খাদ্য ঘাটতি হবে না : কৃষিমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে বক্তব্য রাখ‌ছেন প্রধানমন্ত্রী আজ সকালে ৬৪ জেলার কর্মকর্তাদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর কনফারেন্স পিপিই যেন নষ্ট না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনা মোকাবিলায় সরকার জনগণের পাশে আছে -প্রধানমন্ত্রী ছুটিতে কর্মস্থল ছাড়া যাবে না : সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন করোনা সংকটকালে জনগণের পাশে থাকবে আ.লীগ: কাদের আমি করোনায় আক্রান্ত হইনি : স্বাস্থ্যমন্ত্রী বাংলাদেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত নেই : আইইডিসিআর পদ্মা সেতু‌তে বসলো ২৭তম স্প্যান, দৃশ্যমান হলো ৪ হাজার ৫০ মিটার সব পোশাক কারখানা বন্ধের নির্দেশ পবিত্র শবে বরাত ৯ এপ্রিল অতি প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে যাবেন না : প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী মুক্তি পেলেন খালেদা জিয়া সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে আজ ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী নিষেধাজ্ঞা অক্ষরে অক্ষরে পালন করুন : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরগুনায় সকল প্রকার যানবাহন চলাচল বন্ধ রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশেই খালেদা জিয়াকে মুক্তির সিদ্ধান্ত
৪৩

খালেদার স্বাস্থ্য প্রতিবেদন দেখেই আদালত আদেশ দিয়েছেন : আইনমন্ত্রী

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের বিষয়ে বিএনপির পক্ষ থেকে ওঠা দাবিকে অযৌক্তিক বলে মন্তব্য করেছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। তিনি বলেন, ‌‘আদালত খালেদা জিয়ার একটি স্বাস্থ্য প্রতিবেদন চেয়েছিলেন। সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগ অত্যন্ত গভীরভাবে সেই প্রতিবেদন দেখেছেন। দেখার পর সুচিন্তিত আইনি সিদ্ধান্ত দিয়েছেন।’ বৃহস্পতিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) গুলশানে মন্ত্রীর আবাসিক ভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

আনিসুল হক বলেন, “সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে আগে খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন করা হয়েছিল। তখন আপিল বিভাগ কিছু অবজারভেশন দিয়ে সেই আবেদন খারিজ করে দেন। পরে আবার বিএনপির আইনজীবীরা খালেদা জিয়ার জামিনের জন্য আবেদন করেন। সেখানে আদালত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ডাক্তারদের একটা প্রতিবেদন চান। আদালত বলেছেন সেই প্রতিবেদন পাওয়ার জন্য আমাদের বেশ কিছু প্রশ্ন ছিল। সেখানে মৌলিক প্রশ্ন ছিল ‘খালেদা জিয়ার অ্যাডভান্স ট্রিটমেন্টের জন্য তার অনুমতির বিষয়ে জানতে চেয়েছিল আপিল বিভাগ, তিনি সেই অনুমতি দিয়েছেন কিনা।’ ডাক্তারদের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, তিনি নাকি সেই অনুমতি দেননি। যেহেতু চিকিৎসাটা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে করা সম্ভব এবং সেখানে যেহেতু তারা খালেদা জিয়ার অনুমতি পাননি, তাই তারা চিকিৎসা শুরু করতে পারেননি।’”

মন্ত্রী বলেন, ‘আদালত আরও বলেছেন, তিনি যেহেতু অনুমতি দেননি এতে আমাদের করার কিছু নেই। সেজন্য আবেদনটি খারিজ করে দেওয়া হয়েছে।’ আইনমন্ত্রী দাবি করেন, ‘আমার মনে হয় হাইকোর্ট বিভাগ বিষয়টি অত্যন্ত গভীরভাবে দেখেছেন এবং দেখার পরে আইনি যে সিদ্ধান্ত সেটি দিয়েছেন।’

বরগুনার আলো
এই বিভাগের আরো খবর