শুক্রবার   ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৪ ১৪২৬   ২০ মুহররম ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
ছাত্রলীগের পর যুবলীগকে ধরেছি : প্রধানমন্ত্রী ছাত্রলীগকে সংযমের সঙ্গে চলার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর প্রধানমন্ত্রীর সাথে যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি দলের সাক্ষাত অবৈধ জুয়ার আড্ডা বা ক্যাসিনো চলতে দেওয়া হবে না: ডিএমপি কমিশনার পটুয়াখালীতে ধর্ষণ মামলার বাদীকে পেটানো প্রধান আসামিসহ গ্রেপ্তার-৪ শাহজালালে বিমানের জরুরি অবতরণ শুক্রবার নিউইয়র্ক যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী রাজধানীর তিনটি ক্যাসিনোতে র‌্যাবের অভিযান জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে বাংলাদেশ টস হেরে ব্যাটিং এ বাংলাদেশ রিফাত হত্যা : পলাতক ৯ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা রোহিঙ্গা সংকট : ত্রিপক্ষীয় বৈঠকে বসছে চীন-মিয়ানমার-বাংলাদেশ আমাদের কাজই হচ্ছে জনগণকে সেবা দেয়া : প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গা ইস্যুতে চীন বাংলাদেশের পক্ষে: মোমেন আজ গাজীপুর যাবেন প্রধানমন্ত্রী পরিবেশ দূষণ: ৪ প্রতিষ্ঠানকে কোটি টাকা জরিমানা স্বর্ণজয়ী রোমান সানার মায়ের চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন প্রধানমন্ত্রী আরো দু’টি বোয়িং বিমান কেনার ইঙ্গিত দিলেন প্রধানমন্ত্রী কারাবন্দির তথ্য ডাটাবেজে থাকবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ: প্রধানমন্ত্রী
৩৮

গ্রহণযোগ্যতার অভাবে রাজপথে দাঁড়ানোর সক্ষমতা হারিয়েছে বিএনপি!

প্রকাশিত: ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

সরকারবিরোধী আন্দোলনের ডাক দিয়ে, বক্তৃতা দিয়েও কর্মীদের রাজপথের আন্দোলনে নামাতে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি দিন দিন দলীয় ভঙ্গুরাবস্থার প্রমাণ দিচ্ছে। দীর্ঘ ২০ মাস ধরে দলটির নেত্রী কারাবন্দী থাকলেও কার্যকর কোন আন্দোলন গড়ে তুলতে পারেনি দলটি। মূলত কর্মীদের সমর্থন হারিয়ে ফেলায় বিএনপি নেতাদের বক্তৃতা, আন্দোলনের হুমকি রাজনীতিতে হাস্যরসের জন্ম দিচ্ছে।

বিএনপির বর্তমান রাজনৈতিক অবস্থান ও নেতাদের বক্তৃতার গ্রহণযোগ্যতার বিষয়ে জানতে চাইলে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা দলটি সম্পর্কে এমনটাই মন্তব্য করেছেন।

বিএনপির রাজনৈতিক অচলাবস্থার বিষয়ে জানতে চাইলে রাজনৈতিক বিশ্লেষক অধ্যাপক এ আরাফাত বলেন, আজ শুনলাম বিএনপি নেত্রীর উপদেষ্টা জয়নাল আবদীন ফারুক হুমকি দিয়েছেন যে, চেয়ারপারসনের কারামুক্ত করতে আন্দোলনের ডাক দিলে তা প্রতিহতের শক্তি বর্তমান সরকারের নেই। বিষয়টি আমার কাছে হাস্যকর মনে হয়েছে। আন্দোলন গড়ে তুলতে যৌক্তিক ও সত্য ইস্যু প্রয়োজন হয়। বেগম জিয়ার দুর্নীতি প্রমাণিত হওয়ায় তার সাজা হয়েছে। যা দলটির নেতা-কর্মীরাও জানেন। যার কারণে মিথ্যা ও অযৌক্তিক ইস্যুতে তারা আন্দোলনের নামে বিশৃঙ্খলায় জড়াতে চাচ্ছেন না।

তিনি আরো বলেন, বিএনপির নেতা-কর্মীরা হর-হামেশা আন্দোলনের হুমকি দিচ্ছেন। কথার ফুলঝুরি ঝরাচ্ছেন। লাভের লাভ কিছু হচ্ছে না। সত্যি বলতে, জনসম্পৃক্ততা নেই বিএনপির। যার কারণে আন্দোলনও গড়ে উঠছে না। রাজনীতিতে যখন আপনার প্রতারক চরিত্র উন্মোচিত হয়ে যায়, তখন আসলে বক্তৃতা, হুংকারই আপনার সম্বল। নীতি-নৈতিকতা হারিয়ে বিএনপির আজ সেই অবস্থাই হয়েছে। রাজপথে নামার যাদের সাহস নেই, তারাই কেবল বাক্যবাণে যুদ্ধে জড়াতে পারে।

এদিকে বিষয়টিকে ভিন্নভাবে ব্যাখ্যা করে বিএনপিপন্থী বুদ্ধিজীবী ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, রাজপথের কর্মসূচি না থাকায় আজকে বিএনপিকে নিয়ে নানা মুখরোচক গল্প সাজানো হচ্ছে। বলা হচ্ছে নেতারা মুখে আন্দোলনের ফেনা তুললেও সাংগঠনিকভাবে দলকে গোছাতে পারছেন না। কিছু প্রেক্ষাপটে এমন অভিযোগ সত্য। কারণ কিছু বিতর্কিত বিষয় নিয়ে বিএনপি আন্দোলনে প্রেক্ষাপট রচনার চেষ্টা করছে, যা জনমনে নানা প্রশ্নের উদ্রেক করছে। রাজনীতিতে হাসি-ঠাট্টা করাটা সমীচীন নয়। আশাকরি বিএনপির দুর্বলতা নিয়ে আর কেউ মশকরা করবেন না।

এই বিভাগের আরো খবর