বুধবার   ১৩ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ২৮ ১৪২৬   ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
প্রধানমন্ত্রী ৭ বিদ্যুৎকেন্দ্র উদ্বোধন করবেন আজ নেপালের উন্নয়ন প্রকল্পে সহায়তা প্রদানে রাষ্ট্রপতির আশ্বাস পুরুষদের জন্য সিল্ক, লাল ও হলুদ কাপড় নিষিদ্ধ মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে ২ বিল পাস নবায়নযোগ্য জ্বালানিতে বিদ্যুৎ উৎপাদনে গুরুত্ব সরকারের বরগুনায় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ র‌্যাবের অভিযানে জঙ্গি সংগঠন `আল্লাহর দল`র সদস্য গ্রেফতার এবার মোবাইল ব্যাংকিংয়ে দেওয়া যাবে আয়কর কেবল ওমানি ছাড়া বাংলাদেশ-ওমান ম্যাচ দেখতে টিকেট লাগবে সবার: ওএফএ বৈশ্বিক সমস্যা সমাধানে সংসদীয় কূটনীতি গুরুত্বপূর্ণ-স্পিকার বন্দরে ঘুষ, অনিয়মসহ ৫২ অভিযোগ দুদকের শুনানিতে ১৫ মেডিকেল কলেজের ১৬৫ শিক্ষার্থীর ‘স্কিল স্কুল এন্ড ওয়ার্কশপ সহজ শর্তে ঋণ বাড়াতে বিশ্বব্যাংকের কাছে আহ্বান ডায়াবেটিস জার্নি অ্যাপ চালু বিতর্কিতদের অপসারণ করা হবে: হানিফ বৈদেশিক মুদ্রার বিনিময় হার ‘ইন্দো প্যাসিফিকে চীন-যুক্তরাষ্ট্রের উদ্যোগ পরিপূরক’ প্রধান শিক্ষকের বেতন ১১তম গ্রেডে, একধাপ এগোলো সহকারীরা ‘রোহিঙ্গা হোস্টিংয়ে বাংলাদেশ সর্বোচ্চ বিবেচনার দাবিদার’ সম্রাট ও আরমানের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদের অভিযোগে মামলা
৩৮

ঘূর্ণিঝড়ের সময় করণীয় আমল

প্রকাশিত: ৯ নভেম্বর ২০১৯  


 
আল্লাহ তায়ালা পৃথিবীতে নানাবিধ আপদ-বিপদ ও মুসিবত দিয়ে বান্দাকে পরীক্ষা করেন। অনেক সময় বান্দার গুনাহের শাস্তিস্বরূপ লঘু শাস্তি দিয়ে সতর্ক করা হয়। তবে এসব আসমানি বিপদ-আপদে হিফাজতে থাকার বিভিন্ন আমল কুরআন-হাদিসে এসেছে। 

মেঘের গর্জন বা বজ্রপাতের সময় পড়ার দুয়া :

اَللّٰهُمَّ لَا تَقْتُلْنَا بَغَضَبِكَ. وَ لَاتُهْلِكْنَا بَعَذَابِكَ. وَ عَافِنَا قَبْلَ ذٰلِكَ

উচ্চারণ: আল্লাহুম্মা লা তাকতুল না বিগাদাবিকা, ওয়া লা তুহলিক না বিআযাবিকা, ওয়া আফি না কবলা যালিকা।
অর্থ: হে আল্লাহ! আপনি গজব দিয়ে আমাদের নিপাত করবেন না, আপনি আজাব দিয়ে আমাদের ধ্বংস করবেন না; তার আগেই আপনি আমাদের ক্ষমা করে দিন।

ঘূর্ণিঝড় ও ঝড়ো বাতাস প্রবাহের সময় পড়ার দুয়া : 

প্রবল ঝড়োহাওয়া প্রবাহের কালে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আল্লাহর কাছে সাহায্য চাইতেন। কেননা মহান আল্লাহই মানুষের সবচেয়ে বড় আশ্রয়দাতা। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলতেন, ‘তোমরা বাতাসকে গালি দিও না। তবে যদি তোমরা একে তোমাদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে দেখতে পাও, তবে এ দোয়া করবে-

اَللَّهُمَّ اِنَّا نَسْئَالُكَ مِنْ خَيْرِ هَذِهِ الرِّيْحِ وَ خَيْرِ مَا فَيْهَا وَ خَيْرِمَا أُمِرَتْ بِهِ وَ نَعُوْذُبِكَ مِنْ شَرِّ هَذِهِ الرِّيْحِ وَ شَرِّ مَا فَيْهَا وَ شَرِّ مَا أُمِرَتْ بِهِ

উচ্চারণ : আল্লাহুম্মা ইন্না নাসআলুকা মিন খাইরি হাজিহির রিহি ওয়া খাইরি মা ফিহা ওয়া খাইরি মা উমিরাত বিহি, ওয়া নাউযুবিকা মিন শাররি হাজিহির রিহি ওয়া শাররি মা ফিহা ওয়া শাররি মা উমিরাত বিহি। 
অর্থ : হে আল্লাহ! আমরা তোমার নিকট এ বাতাসের ভালো দিক, এতে যে কল্যাণ রয়েছে তা এবং যে উদ্দেশ্যে তা নির্দেশপ্রাপ্ত হয়ে এসেছে তার উত্তম দিকটি প্রার্থনা করছি। আর তোমার নিকট এর খারাপ দিক হতে, এতে যে অকল্যাণ রয়েছে তা হতে এবং এটা যে উদ্দেশ্যে আদেশপ্রাপ্ত হয়ে এসেছে, তার মন্দ দিক হতে আশ্রয় প্রার্থনা করছি।

বেশি বেশি ইস্তিগফার করা : 

যেহেতু মানুষের পাপাচারের ফলে আল্লাহ তায়ালা ঘূর্ণিঝড়, তুফানের মতো শাস্তি দিয়ে থাকেন সুতরাং এমতাবস্থায় আমাদের উচিত গুনাহ থেকে তাওবা করা। আল্লাহর কাছে ফিরে যাওয়া। বিশেষ করে একটি হাদিসে এসেছে যে, যখন কোনো সম্প্রদায় আল্লাহর আইনের পরিবর্তে মানবরচিত আইন-কানুন দিয়ে রাষ্ট্র-সমাজ পরিচালনা করে, তখন আল্লাহ তায়ালা এ ধরনের আজাব-গজব বান্দার ওপর চাপিয়ে দেন। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন,

«ما حكم قوم بغير ما أنزل الله إلا وقع بأسهم بينهم»

‘কোনো সম্প্রদায় যখন আল্লাহর নাযিলকৃত বিধানের পরিবর্তে অন্য কোনো বিধান দিয়ে শাসনকার্য পরিচালনা করে, আল্লাহ তায়ালা তখন তাদেরকে দুর্যোগ, বিপদাপদে পাকড়াও করেন।’
[বাইহাকি, আসসুনান; আলবানি রহ. সহিহ বলেছেন : আততারগিব ওয়াত তারহিব : ১/৩২১]

এই বিভাগের আরো খবর