রোববার   ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৪ ১৪২৬   ১০ রবিউস সানি ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
বরগুনায় তিন দিনব্যাপি কৃষি প্রযুক্তি মেলা শুরু নারীরা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে এগিয়ে যাবেন  নারীর স্বনির্ভরতা অর্জনে সকলকে একযোগে কাজ করতে রাষ্ট্রপতির আহবান সচিবালয়ের আশপাশে হর্ন বাজালেই জেল-জরিমানা পরস্পরের সালাম শুভেচ্ছা বিনিময়ের শ্রেষ্ঠ প্রথা মানবাধিকার দিবসে প্রকাশ্যে আসছেন এসিডদগ্ধ দীপিকা দেশের প্রথম আইটি বিজনেস ইনকিউবেটর নির্মাণকাজের উদ্বোধন   শুরু হলো বঙ্গবন্ধু বিপিএলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বিজয়ীদের চলচ্চিত্র পুরস্কার তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী বিপিএল উদ্বোধনীতে সালমান খান ও ক্যাটরিনা কাইফ মঞ্চ প্রস্তুত, অপেক্ষা কিছুক্ষণের রাত পোহালেই সমাবর্তন বরিশাল মহানগর আ’লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর, সম্পাদক সাদিক মরা গাঙে জোয়ার আর আসে না, বিএনপিকে কাদের ‘পানিপথ’ বনাম ‘পতি পত্নী অউর ওহ’ বেগম রোকেয়া পদক পাচ্ছেন ৫ বিশিষ্ট নারী ক্রিকেটেও স্বর্ণ জিতলো বাংলাদেশের মেয়েরা পবিত্র ফাতিহা-ই-ইয়াজদাহম সোমবার বিজয় র‌্যালিতে বিএনপির হামলা, ছাত্রলীগ নেতাসহ আহত ২০ বিজয় দিবসে অভ্যর্থনায় ভারত যাচ্ছেন ৩০ মুক্তিযোদ্ধা
৪২

চালকের অবহেলায় কসবায় দুর্ঘটনা: রেলমন্ত্রী

প্রকাশিত: ২০ নভেম্বর ২০১৯  

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় মন্দবাগ রেলস্টেশনে দুই ট্রেনের সংঘর্ষের ঘটনায় তূর্ণা নিশীথার চালক তাহের উদ্দিন, সহকারী চালক অনুপ দেব ও পরিচালক (গার্ড) আব্দুর রহমানের দায়িত্বে অবহেলাকে দায়ী করা হয়েছে। দুর্ঘটনা নিয়ে গঠিত ৫টি কমিটির মধ্যে ৩টির প্রতিবেদনে সাময়িক বরখাস্ত এই তিনজনকে দায়ী করা হয়েছে। বুধবার (২০ নভেম্বর) বিকালে এক সংবাদ সম্মেলনে রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন এসব কথা জানান।
গত ১২ নভেম্বর ঢাকা-চট্টগ্রাম লাইনের মন্দবাগ স্টেশনের আউটার ক্রসিংয়ে রাত পৌনে ৩টার দিকে সিলেট থেকে ছেড়ে আসা আন্তঃনগর উদয়ন এক্সপ্রেস ও চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা আন্তঃনগর তূর্ণা নিশীথার মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে ১৭ জন নিহত হন। এ দুর্ঘটনার কারণ তদন্তে ৫টি কমিটি গঠন করা হয়। এর মধ্যে জেলা প্রশাসন একটি, বাংলাদেশ রেলওয়ে তিনটি এবং রেলপথ মন্ত্রণালয় একটি কমিটি গঠন করে।
নুরুল ইসলাম সুজন বলেন, ‘৫টি কমিটির মধ্যে ৩টিই তদন্ত করে ঘটনার বিস্তারিত বিবরণ দিয়েছে। কমিটির সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন, সাক্ষ্য প্রমাণ পর্যালোচনা এবং পারিপার্শ্বিক অবস্থা বিবেচনা করে যে সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন, তা প্রায় একইরকম। কমিটিগুলোর প্রতিবেদন বলছে, আন্তঃনগর ৭৪১ নম্বর তূর্ণা-নিশীথার লোকোমাস্টার, সহকারী লোকোমাস্টার ও গার্ড সিগন্যাল যথাযথভাবে পর্যবেক্ষণ না করায় এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। এমতাবস্থায় কমিটিগুলো তূর্ণা-নিশীথার লোকোমাস্টার তাহের উদ্দিন, সহকারী লোকোমাস্টার অনুপ দেব এবং গার্ড মো. আব্দুর রহমানকে দায়ী করেছে।’
তিনি বলেন, ‘দুর্ঘটনার আগে চালক যে সময় পেয়েছেন, চাইলে তিনি ট্রেন থামাতে পারতেন। কিন্তু তিনি সঠিক সময়ে সঠিক ব্রেক প্রয়োগ করেননি।’
রেলমন্ত্রী আরও বলেন, কমিটিগুলো ভবিষ্যতে এ ধরনের দুর্ঘটনা এড়ানোর জন্য কিছু সুপারিশ করেছে। সেগুলো হলো—

১. ট্রেনের লোকোমাস্টার, সহকারী লোকোমাস্টার ও গার্ডের কার্যক্রম নিবিড়ভাবে তদারকির জন্য লোকোমোটিভ সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা;
২. ট্রেনের অপারেশনের সঙ্গে যুক্ত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়মিত প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা;
৩. ট্রেনের অপারেশনের সঙ্গে যুক্ত কর্মচারীদের শূন্য পদ পূরণে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়া;
৪. স্টেশন ও ট্রেনের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষার জন্য ক্লোজ ইউজার গ্রুপের মোবাইল ফোন অথবা আধুনিক অন্য যোগাযোগ ব্যবস্থা প্রবর্তন করা এবং
৫. বাংলাদেশ রেলওয়েতে এটিএস (অটোমেটিক ট্রেন স্টপ) ব্যবস্থা প্রবর্তন করা।
এসব সুপারিশ বাস্তবায়নে ভবিষ্যতে এ ধরনের দুর্ঘটনা এড়ানো সম্ভব হবে বলে কমিটিগুলো আশা প্রকাশ করেছে।

এই বিভাগের আরো খবর