শুক্রবার   ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৪ ১৪২৬   ২০ মুহররম ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
ছাত্রলীগের পর যুবলীগকে ধরেছি : প্রধানমন্ত্রী ছাত্রলীগকে সংযমের সঙ্গে চলার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর প্রধানমন্ত্রীর সাথে যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি দলের সাক্ষাত অবৈধ জুয়ার আড্ডা বা ক্যাসিনো চলতে দেওয়া হবে না: ডিএমপি কমিশনার পটুয়াখালীতে ধর্ষণ মামলার বাদীকে পেটানো প্রধান আসামিসহ গ্রেপ্তার-৪ শাহজালালে বিমানের জরুরি অবতরণ শুক্রবার নিউইয়র্ক যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী রাজধানীর তিনটি ক্যাসিনোতে র‌্যাবের অভিযান জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে বাংলাদেশ টস হেরে ব্যাটিং এ বাংলাদেশ রিফাত হত্যা : পলাতক ৯ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা রোহিঙ্গা সংকট : ত্রিপক্ষীয় বৈঠকে বসছে চীন-মিয়ানমার-বাংলাদেশ আমাদের কাজই হচ্ছে জনগণকে সেবা দেয়া : প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গা ইস্যুতে চীন বাংলাদেশের পক্ষে: মোমেন আজ গাজীপুর যাবেন প্রধানমন্ত্রী পরিবেশ দূষণ: ৪ প্রতিষ্ঠানকে কোটি টাকা জরিমানা স্বর্ণজয়ী রোমান সানার মায়ের চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন প্রধানমন্ত্রী আরো দু’টি বোয়িং বিমান কেনার ইঙ্গিত দিলেন প্রধানমন্ত্রী কারাবন্দির তথ্য ডাটাবেজে থাকবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ: প্রধানমন্ত্রী
১৬০

টমাসের ভয়ংকর সঙ্গীরা

প্রকাশিত: ২৯ নভেম্বর ২০১৮  

ভয়ংকর প্রাণীর সঙ্গেই তাঁর নিবিড় সখ্য। মাকড়সা, সাপ, বিচ্ছু, টিকটিকি, কুকুর, বিড়াল—এমন প্রাণীর তালিকা গিয়ে ঠেকবে এক শতে। অবিশ্বাস্য ঠেকছে? ১৯ বছর বয়সী টমাস পাসি শতাধিক প্রজাতির প্রাণীর সংগ্রহশালা গড়ে তুলেছেন। 
যুক্তরাষ্ট্রের নিউ জার্সির টমাস পাসি একজন ইউটিউবার। নিজের ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে তাঁর সংগ্রহ সবার মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন। বিভিন্ন প্রাণী দেখানোর পাশাপাশি তাদের খাওয়ানোর ভিডিও, পোষা প্রাণী পালনবিষয়ক কর্মশালার আয়োজন করে থাকেন তিনি। 
এত প্রাণীকে খাওয়ানোর, যত্ন নেওয়ার দুরূহ কাজটি একা পাসিই করেন। এসব করতে গিয়ে রীতিমতো ‘প্রাণিবিজ্ঞানী’ বনে গেছেন পাসি। 
পাসির সংগ্রহে সবচেয়ে বিষধর প্রাণী হলো ভিয়েতনামের বিছা। এই বহুপদী প্রাণীর জন্য বিশেষ মনোযোগ প্রয়োজন হয়। কারণ, অমেরুদণ্ডী বিছা লুকানোর বেলায় ওস্তাদ। তাই নিজের সুরক্ষার জন্যই বন্দী করে রেখেছেন পাসি। পাসির সংগ্রহে বেশি সংখ্যায় (১১০টি) আছে ট্যারান্টুলা প্রজাতির মাকড়সা। 
প্রাণীপ্রেমী টমাস পাসি বলেন, ‘মূলধারার গণমাধ্যমে এই প্রাণীগুলো সম্পর্কে যেভাবে প্রচার করা হয়, অবুঝ প্রাণীগুলো কিন্তু তেমনটি নয়। আমি আশাবাদী, মানুষ এখন বুঝতে পারবে। সেই সঙ্গে আমি চাই মানুষ প্রাণীদের ভালোবাসুক।’