বৃহস্পতিবার   ১৭ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ১ ১৪২৬   ১৭ সফর ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
কমছে রাতের তাপমাত্রা, প্রকৃতিতে শীতের আগমনী বার্তা কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা এসআই আকরামসহ ১১ জন জেলহাজতে মানবতাবাদী নাট্যকার আর্থার মিলারের জন্ম মুখের কথায় চলে সাইদের ‘আশ্চর্য মোটরসাইকেল’ নীলনদের তীরে মিললো ‘গুরুত্বপূর্ণ’ প্রাচীন কফিন    পর্দা নামলো ডিজিটাল ডিভাইস অ্যান্ড এক্সপোর কুষ্টিয়ায় শুরু হলো তিনদিন ব্যাপী লালনমেলা বাংলাদেশই বিশ্বসেরা, প্রবৃদ্ধি হবে ৭.৮ শতাংশ হাজার কোটি টাকার চেকের কপি প্রতারক চক্রের বাসায়! ৯ কর্মীকে তলব, একজনের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ ইন্দোনেশিয়া থেকে সরাসরি পণ্য আমদানির সুযোগ চায় বাংলাদেশ পার্বত্য জেলায় সন্ত্রাস-মাদক নির্মূল করা হবে-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাবেক সহকারী কর কমিশনারকে গ্রেপ্তার করল দুদক র‌্যাগিংয়ের অভিযোগ পেলেই শাস্তি: আইনমন্ত্রী একাদশ সংসদের পঞ্চম অধিবেশন শুরু ৭ নভেম্বর যেখানে দুর্নীতি-টেন্ডারবাজি সেখানে অভিযান- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ফাহাদ হত্যা মামলায় বিশেষ প্রসিকিউশন টিম হবে: আইনমন্ত্রী ন্যাম সম্মেলনে যোগ দিতে বাকু যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী রিফাত হত্যা : প্রধান আসামির জামিন নামঞ্জুর
১৭

টি-ব্যাগে ১১ বিলিয়ন প্লাস্টিকের কণা, জানুন কী খাচ্ছেন !

প্রকাশিত: ১০ অক্টোবর ২০১৯  

অফিসে বা পথেঘাটে চা খেতে হলে টি ব্যাগই বেশি পছন্দ করি আমরা অনেকেই। চা ছাঁকার ঝামেলা না থাকায় টি ব্যাগ সহজেই ব্যবহার করা যায়। কিন্তু শরীরে টি ব্যাগের মারাত্মক প্রভাবের কথা তাঁর গবেষণায় সামনে এনেছেন নাখাইল টুফেনজি।

কয়েক বছর আগে, নাথালি টুফেনকজি কাজ করার পথে মন্ট্রিলের ক্যাফেতে নেমে এক কাপ চা অর্ডার করেন। চায়ের উষ্ণতা উপভোগ করতে গিয়ে হঠাৎই তাঁর মনে হয় প্লাস্টিকের তৈরি টি ব্যাগগুলি যথেষ্ট ক্ষতিকারক।

“আমি ভেবেছিলাম, ফুটন্ত জলে প্লাস্টিক লাগানো কোনও জিনিস ডুবিয়ে সেটা পান করা খুব একটা ভাল বিষয় নয়,” ওয়াশিংটন পোস্টকে জানিয়েছেন তিনি ।

টুফেনকজি আশঙ্কা করেছিলেন যে ওই প্লাস্টিকের ব্যাগগুলি পানীয়ের মধ্যে অসংখ্য প্লাসটিকের কণা যোগ করছে এবং এটা মারাত্মক। ম্যাকগিল বিশ্ববিদ্যালয়ের রাসায়নিক বিভাগের অধ্যাপক হিসাবে কাজ করা নাথালি টুফেনকজি তখন ঠিক করেন যে, তিনি বিষয়টি নিয়ে পরীক্ষা করবেন।

যা ভাবা, তাই কাজ। তিনি তাঁর ছাত্র লারা হার্নান্দেজকে স্থানীয় দোকান থেকে কিছু টি ব্যাগ কিনে তাঁর ল্যাবে নিয়ে আসতে বলেন। দেখা যায়, টুফেনকজির আশঙ্কা একদম ঠিক ছিল। ওই টি ব্যাগগুলি থেকে গরম চায়ের মধ্যে অসংখ্য প্লাস্টিকের কণা প্রবেশ করছিল।

হার্নান্দেজ, টুফেনকজি এবং ম্যাকগিল বিশ্ববিদ্যালয়ে তাঁদের সহ গবেষকরা ফুটন্ত জলে চার ধরণের প্লাস্টিকের টি ব্যাগ ডুবিয়ে পরীক্ষা করেন এবং দেখতে পান যে একটি ব্যাগই ১১ বিলিয়ন মাইক্রোপ্লাস্টিক এবং ৩ বিলিয়ন ন্যানোপ্লাস্টিক কণা ছড়াচ্ছে। আপনি হয়তো সাধারণ চোখে ওই দূষণ দেখতে সক্ষম হবেন না; গবেষকরা একটি বৈদ্যুতিন মাইক্রোস্কোপ ব্যবহার করে দেখতে পারেন এটি।

তাঁদের এই গবেষণার বিস্তারিত বিবরণ চলতি মাসে আমেরিকান কেমিক্যাল সোসাইটি জার্নাল এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজিতে প্রকাশিত হয়েছিল।

তাঁরা জানান, বেশ কিছু চা বিক্রয়কারীরা কাগজের টি ব্যাগের পরিবর্তে প্লাস্টিকের টি ব্যাগগুলিতে চা বিক্রি করছেন। এ বিষয়ে জনসাধারণকেই সচেতন হতে হবে। তাঁরা জানেন কীভাবে স্টিক আমাদের শরীরের এবং সমগ্র প্রকৃতির ক্ষতি করছে। এই টি ব্যাগে ব্যবহৃত প্লাস্টিক গ্রহণের ফলে স্বাস্থ্যের প্রভাবগুলি এখনও যদিও অজানা তবু এটা নিশ্চিত যে এগুলি যথেষ্ট ক্ষতিকারক। যদিও বিশ্বজুড়ে মানুষ অজান্তেই প্রচুর পরিমাণে টি ব্যাগ ব্যবহার করে চা পান করেন।

তাই গবেষকদের পরামর্শ, দোকান থেকে টি ব্যাগ কেনার আগে যাচাই করে নিন সেগুলি প্লাস্টিকের তৈরি নাকি কাগজের তৈরি! কাগজের তৈরি হলে তবেই সেই টি ব্যাগ কিনুন, নিজের স্বাস্থ্যের সুরক্ষার জন্য়েই বর্জন করুন প্লাস্টিক।