মঙ্গলবার   ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ২ ১৪২৬   ১৭ মুহররম ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
দুই মাসে এডিপি বাস্তবায়নের হার বেড়েছে ৪.৪৮ শতাংশ উদ্বোধনের দিনেই পদ্মাসেতুতে ট্রেন চলবে: রেলমন্ত্রী ৮ হাজার ৯৬৮ কোটি ৮ লাখ টাকার প্রকল্প একনেকে অনুমোদন ভারতীয় কোস্টগার্ড ডিজির সঙ্গে রীভা গাঙ্গুলির বৈঠক ইসির চুরি যাওয়া ল্যাপটপ উদ্ধার, আটক ৩ আজ মহান শিক্ষা দিবস প্রধানমন্ত্রী ‘রাজহংস’ উদ্বোধন করবেন আজ রোহিঙ্গা ভোটার: ইসি কর্মচারীসহ আটক ৩ রিফাত-মিন্নির নতুন ভিডিও, বেরিয়ে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য ‘বিজ্ঞান-প্রযুক্তির বিকাশ ছাড়া দেশ উন্নয়ন করা সম্ভব নয়’ রোহিঙ্গা ভোটার খতিয়ে দেখতে চট্টগ্রামে কবিতা খানম আগামী ১০মাসের রোডম্যাপ তৈরি ও তার বাস্তবায়ন করবো - জয় ও লেখক ডেঙ্গুতে সরকারি হিসেবে ৬৮ জনের মৃত্যু আ. লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর সভা ১৮ সেপ্টেম্বর বঙ্গবন্ধুর নাতনি টিউলিপের জন্মদিন আজ আজ থেকে ট্রাকে পেঁয়াজ বিক্রি করবে টিসিবি বিশ্ব ওজন দিবস আজ শিগগিরই বন্দর-ট্রেনে যুক্ত হচ্ছে ত্রিপুরা-বাংলাদেশ দিল্লিতে শেখ হাসিনা-মোদি বৈঠক ৫ অক্টোবর সারাদেশে ৭৫ প্রতিষ্ঠানকে পাঁচ লক্ষাধিক টাকা জরিমানা

`ডব্লিউ পজিশনে` বসা ক্ষতিকর অভ্যাস!

প্রকাশিত: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

বাচ্চাদের প্রিয় কাজগুলোর মধ্যে প্লাস্টিকের খেলনা কামড়ানো, মাটি মুখে দেয়া, মাটিতে খেলা ছাড়াও আরো নানান কিছু রয়েছে। তারা জানে না কোন জিনিসটা তাদের জন্য ভাল এবং কোন জিনিসটা তাদের জন্য খারাপ। আর এসব কাজে বাঁধা দিলেই ঘটে বিপত্তি।

আপনি যতই তাদের সুরক্ষিত রাখতে চান না কেন, অনুচিত কাজগুলো তারা করতে চাইবেই। এসব কাজের ফলে তাদের কি কি অসুবিধা হতে পারে তা তারা বুঝে না। তাই তাদের সব সময় বড়দের নজরদারিতে রাখতে হয়।

বিশেষজ্ঞদের মতে, ঠিক তেমনি ডব্লিউ (W) পজিশনে বসা বাচ্চাদের জন্য অনুচিত। তাই যদি কখনও কোনো বাচ্চাকে W পজিশনে বসতে দেখেন সাথে সাথে তাকে থামাবেন!

কেন? চলুন জেনে আসি-

এই বিশেষ পজিশনে বসলে পায়ের গোড়ালি শরীরের পেছনের দিকে এবং হাঁটু সামনের দিকে অবস্থান করে।  এতে হাঁটুর অংশে একটা V এর আকৃতি নেয় এবং দুই পা মিলিয়ে W এর আকার নেয়।

এখন বলবো এভাবে বসার ফলে প্রথমত, শরীরে খুব জলদি ক্লান্তি চলে আসে। কারণ এই পদ্ধতিতে বসলে প্রচুর শক্তি খরচ হয়। তাই বাচ্চারা অলস অনুভব করবে!

এটা বাচ্চাদের পায়ের অঞ্চলকেও ক্ষতিগ্রস্ত করবে। পায়ের পেশিকে টান টান করে দিবে, যা বাচ্চাদের জন্যে মোটেও ভাল না।

এটা লম্বা সময় ধরে বসলে আরো খারাপ ফল নিয়ে আসবে। এভাবে দীর্ঘসময় বসে থাকলে বাচ্চার স্নায়ুবিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। স্নায়ুবিক সমস্যা মানেই মগজের সঙ্গে জড়িত এবং এটা কখনই এড়িয়ে যাওয়ার মত বিষয় নয়।

এর ফলে পায়ের পেশি অসাড় করে দিবে এবং পায়ের অঙ্গবিন্যাস নষ্ট করে দিতে পারে। কারণ পায়ের পেশি এবং হাড় অনেক নরম হয়।

বাচ্চারা দীর্ঘদিন ধরে এভাবে বসার ফলে শরীর সমন্বয় এবং ভারসাম্য হারাবে। এর সঙ্গে সঙ্গে ঘটতে পারে হিপ ডিসপ্লেসিয়া বা কোমরের হাড়ের পাশাপাশি পায়ের হাড়ের অবস্থান পরিবর্তন। এর ফলে একটা স্বতঃস্ফূর্ত শিশুর ভবিষ্যৎ একেবারে বদলে যেতে পারে।

তাই আপনাদের বলবো যখনই কোনো শিশুকে W পজিশনে বসতে দেখবেন সঙ্গে সঙ্গে তার বসার পজিশন পরিবর্তন করে দিন। আর সবারই তো জানা আছে, প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধ ভাল। একটা বাচ্চার সুরক্ষার চেয়ে বড় আর কিছু কী হতে পারে?