বৃহস্পতিবার   ১৭ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ১ ১৪২৬   ১৭ সফর ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা এসআই আকরামসহ ১১ জন জেলহাজতে মানবতাবাদী নাট্যকার আর্থার মিলারের জন্ম মুখের কথায় চলে সাইদের ‘আশ্চর্য মোটরসাইকেল’ নীলনদের তীরে মিললো ‘গুরুত্বপূর্ণ’ প্রাচীন কফিন    পর্দা নামলো ডিজিটাল ডিভাইস অ্যান্ড এক্সপোর কুষ্টিয়ায় শুরু হলো তিনদিন ব্যাপী লালনমেলা বাংলাদেশই বিশ্বসেরা, প্রবৃদ্ধি হবে ৭.৮ শতাংশ হাজার কোটি টাকার চেকের কপি প্রতারক চক্রের বাসায়! ৯ কর্মীকে তলব, একজনের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ ইন্দোনেশিয়া থেকে সরাসরি পণ্য আমদানির সুযোগ চায় বাংলাদেশ পার্বত্য জেলায় সন্ত্রাস-মাদক নির্মূল করা হবে-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাবেক সহকারী কর কমিশনারকে গ্রেপ্তার করল দুদক র‌্যাগিংয়ের অভিযোগ পেলেই শাস্তি: আইনমন্ত্রী একাদশ সংসদের পঞ্চম অধিবেশন শুরু ৭ নভেম্বর যেখানে দুর্নীতি-টেন্ডারবাজি সেখানে অভিযান- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ফাহাদ হত্যা মামলায় বিশেষ প্রসিকিউশন টিম হবে: আইনমন্ত্রী ন্যাম সম্মেলনে যোগ দিতে বাকু যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী রিফাত হত্যা : প্রধান আসামির জামিন নামঞ্জুর বিএসএমএমইউয়ে বিশ্ব অ্যানেসথেসিয়া ও মেরুদণ্ড দিবস পালিত
১০

দলের দোহাই দিয়ে দুর্নীতিবাজরা ছাড় পাবে না: হানিফ

প্রকাশিত: ২ অক্টোবর ২০১৯  

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা যেকোন ধরনের অন্যায় ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিয়েছেন। সেই অন্যায় দলের ভিতরে হোক কিংবা বাইরে। যুবলীগ, আওয়ামী লীগ অথবা ছাত্রলীগ যেই অন্যায় ও দুর্নীতির সাথে যুক্ত হোক না কেন সে সমাজে চোখে অপরাধী। অপরাধীর কোন দল নেই। যে সন্ত্রাসী সে সমাজের চোখে সন্ত্রাসী। দেশব্যাপী এ ধরনের অপরাধীদের চিহ্নিত করা হচ্ছে। যাদের বিরুদ্ধে সুর্নিদিষ্ট অভিযোগ প্রমাণিত হবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কারো ব্যক্তিগত দুর্নীতির দায় দল নেবে না। দলের দোহাই দিয়ে কোন দুর্নীতিবাজ ও সন্ত্রাসী ছাড় পাবে না।

মঙ্গলবার (১ অক্টোবর) বিকালে সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, মোহামেডান ক্লাবের লোকমান বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার একজন বিশ্বস্থ অনুচর ক্যাসিনো থেকে ৪১ কোটি টাকা অস্ট্রেলিয়ায় পাচার করেছে। খালেদ ভূইয়া ফ্রিডম পার্টি করেছে, যুবদল করেছে, সুযোগ বুঝে কখন নাম লিখিয়ে সে এখন যুবলীগ সেজে গেছে। মির্জা আব্বাসের ক্যাডার টেন্ডারবাজ জিকে শামীম এখন সে যুবলীগ নেতা সেজে আওয়ামী লীগের গায়ে কালিমা লেপন করছে।

তিনি বলেন, এই অনুপ্রবেশকারীরা কেবল ঢাকার ক্যাসিনোর মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়, তারা তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত চলে এসেছে। ব্যক্তিগত দল ভারি করার জন্য আওয়ামী লীগের এই সমস্ত কলঙ্কের বোঝা টানতে পারে না। আমরা এদের ব্যাপারে বসে নেই। গোয়েন্দা সংস্থা দিয়ে এই ১০ বছরের মধ্যে অন্য দল থেকে কারা কারা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনে অনুপ্রবেশ করেছে তাদের তালিকা সংগ্রহ করা হয়েছে।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আরও আরও বলেন, অনুপ্রবেশকারী, জুয়াড়ি আর অপরাধীদের অপকর্মের দায় আওয়ামী লীগ নিতে পারে না। তাদের অপকর্মের জন্য জননেত্রী শেখ হাসিনার অর্জন ম্লান হতে দেওয়া যেতে পারে না। কেন্দ্র থেকে তৃণমূল পর্যন্ত বিভিন্ন সংস্থার মাধ্যমে অনুপ্রবেশকারীদের তালিকা তৈরি হচ্ছে। তাদের দল থেকে ঝেটিয়ে বিদায় করা হবে।

এই বিভাগের আরো খবর