• সোমবার   ০৬ এপ্রিল ২০২০ ||

  • চৈত্র ২৩ ১৪২৬

  • || ১২ শা'বান ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়ন হলে অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াবে: অর্থমন্ত্রী করোনা: ৭৩ হাজার কোটি টাকার আর্থিক সহায়তা প্যাকেজ ঘোষণা বেসরকারি হাসপাতাল চিকিৎসা না দিলেই ব্যবস্থা: স্বাস্থ্যমন্ত্রী প্রতি উপজেলা থেকে নমুনা সংগ্রহ করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে সমালোচনা করছে বিএনপি : কাদের দেশে আক্রান্তদের মধ্যে এ পর্যন্ত ২৬ জন সুস্থ : স্বাস্থ্যমন্ত্রী সেনাবাহিনী কতদিন মাঠে থাকবে সরকার বিবেচনা করবে: সেনাপ্রধান করোনায় খাদ্য ঘাটতি হবে না : কৃষিমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে বক্তব্য রাখ‌ছেন প্রধানমন্ত্রী আজ সকালে ৬৪ জেলার কর্মকর্তাদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর কনফারেন্স পিপিই যেন নষ্ট না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনা মোকাবিলায় সরকার জনগণের পাশে আছে -প্রধানমন্ত্রী ছুটিতে কর্মস্থল ছাড়া যাবে না : সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন করোনা সংকটকালে জনগণের পাশে থাকবে আ.লীগ: কাদের আমি করোনায় আক্রান্ত হইনি : স্বাস্থ্যমন্ত্রী বাংলাদেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত নেই : আইইডিসিআর পদ্মা সেতু‌তে বসলো ২৭তম স্প্যান, দৃশ্যমান হলো ৪ হাজার ৫০ মিটার সব পোশাক কারখানা বন্ধের নির্দেশ পবিত্র শবে বরাত ৯ এপ্রিল অতি প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে যাবেন না : প্রধানমন্ত্রী
৪১৬

দুঃখপ্রকাশ করে ক্ষমা প্রার্থনা বুয়েট ভিসির

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ১১ অক্টোবর ২০১৯  

বাংলাদেশের প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় আনুষ্ঠানিকভাবে দুঃখপ্রকাশ করে ক্ষমাপ্রার্থনা করেছেন উপাচার্য অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম।

শুক্রবার (১১ অক্টোবর) বুয়েট অডিটোরিয়ামে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনায় তিনি ক্ষমা চান। 

তিনি বলেন, আবরার আমার সন্তানের মতো ছিল। তোমাদের যেমন কষ্ট লাগছে, তার মৃত্যুতে আমারও অনেক খারাপ লেগেছে। এটি আমি মেনে নিতে পারিনি। তার মৃত্যুতে দুঃখ তোমরা পেয়েছ, আমিও পেয়েছি। আমরা সবাই মর্মাহত। আমার কিছুটা ভুল হয়েছে, আমি তোমাদের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করছি।

বক্তব্যের শুরুতে তিনি বলেন, আবরার হত্যার জন্য আমরা মর্মাহত। আবরার আমাদের প্রিয় ছাত্র। আবরার তোমাদের ভাই। আমার সন্তান। আমি তোমাদের ১০ দফা দাবি গতকাল নীতিগতভাবে মেনে নেয়েছি।

শিক্ষার্থীদের দাবি অনুযায়ী ফাহাদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, অবরারের পরিবারের ক্ষতিপূরণের ব্যাপারে নোটিশের মাধ্যমে জানিয়ে দেবো। এজন্য যেভাবে কাজ করা দরকার আমরা করবো।

বুয়েট ভিসি বলেন, আমার জানা নেই এত দ্রুত সময়ের মধ্যে কোনো মামলায় এতজন আসামি আটক করা হয়েছে কিনা। আমি ওই ভোররাত থেকে কাজ করেছি। আমি আবরার হত্যার ব্যাপারে ডিআইজির সঙ্গে কথা বলেছি। এ হত্যায় আমি উদ্বিগ্ন ও মর্মাহত।

‘হত্যাকাণ্ডের পর পুলিশ আলামত নিয়ে গেছে। হত্যার আলামত নিয়ে যাওয়ার পর আমি তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। তারা আমাদের আন্তরিকভাবে সহযোগিতা করেছেন। আবরার তোমাদের ভাই আমার সন্তান। আমি দেরি করে তোমাদের সামনে এসেছি, আমি দুঃখপ্রকাশ করছি এবং ক্ষমা চাচ্ছি।

বরগুনার আলো
শিক্ষা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর