শুক্রবার   ২৪ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ১১ ১৪২৬   ২৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে পাখি মেলা শিক্ষার অন্যতম উদ্দেশ্য মানবসম্পদ তৈরি: শিক্ষা সচিব মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের লক্ষ্যেই আ’লীগ কাজ করে যাবে-শেখ হাসিনা সোলেইমানি হত্যার নিন্দা জানানোয় কসোভোতে নারীর কারাদণ্ড বরিশাল বোর্ডে এসএসসিতে অনিয়মিত পরীক্ষার্থী ২১ শতাংশ টুঙ্গিপাড়া যাত্রায় টোল পরিশোধ করলো আওয়ামী লীগ বিক্ষোভে জনসমুদ্র বাগদাদ, স্লোগানে কাঁপছে রাজপথ বিএনপি ভোট কারচুপির রাজত্ব সৃষ্টি করেছিল বলেই ইভিএম আনা হয়েছে বরগুনায় জেলেদের জালে ধরা পড়লো ৪শ কেজি ওজনের শাপলাপাতা মাছ বৈশ্বিক স্বাস্থ্যে এখনো ঝুঁকি নয় করোনা ভাইরাস: ডব্লিউএইচও সাকিবকে ছাড়িয়ে নতুন রেকর্ড গড়লেন তামিম বাবার কবরের পাশে বসে প্রধানমন্ত্রীর কোরআন তেলাওয়াত বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদন চিকিৎসকদের ফি নির্ধারণ করে দেবে সরকার : স্বাস্থ্যমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী টুঙ্গিপাড়া যাচ্ছেন কাল পদ্মাসেতুতে বসলো ২২তম স্প্যান, দৃশ্যমান হলো ৩৩০০ মিটার জাতীয় প্রশিক্ষণ দিবস আজ এ খাবারগুলো খেলেই বিপদ! ১২৭ যাত্রী নিয়ে মাঝ আকাশে জ্বালানি শেষ, অতঃপর...! জাদুকরী স্বপ্ন দেখাব না : তাপস

ধর্ষণ করেননি! নাতনি সম্পর্কের চার শিশুকে `যৌন শিক্ষা` দিয়েছেন

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

 


পঞ্চাশোর্ধ জয়নাল আবেদীন পেশায় রিকশা ভ্যানের চালক। স্ত্রী ঢাকায় গার্মেন্টে কর্মরত। ধুনটের গোপালপুর খাদুলী গ্রামে জয়নালের বসবাস। মঙ্গলবার সকালে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে দুটি ধর্ষণ মামলার আসামি হিসেবে। প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়া চার শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ রয়েছে জয়নালের বিরুদ্ধে। পুলিশ হেফাজতে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জয়নাল স্বীকার করেছেন তার অপকর্ম। ঘটনার শিকার চার শিশুকে শারীরিক পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, তিন সন্তানের জনক জয়নাল আবেদীন মূলত গ্রামের বাড়িতে একা থাকেন। স্ত্রী ঢাকার একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করেন। রিকশা ভ্যান চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করা জয়নালের বিরুদ্ধে হঠাৎ করেই অভিযোগ উঠেছে ধারাবাহিকভাবে শিশু ধর্ষণের। চলতি সপ্তাহে প্রতিবেশী চার শিশুকে ধর্ষণ করার অভিযোগে দুটি মামলা হয়েছে। গ্রেপ্তারের পর জয়নালের দাবি, নাতনী সম্পর্কীয় চার শিশুকে যৌন শিক্ষা দিয়েছেন, ধর্ষণ করেননি।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ধর্ষণের শিকার চার শিশু দরিদ্র পরিবারের। তাদের দুরসম্পর্কের আত্মীয় জয়নাল। কাছাকাছি হওয়ায় শিশুদের যাতায়াত ছিল জয়নালের বাড়িত। শুক্রবার দুপুরের দিকে তৃতীয় শ্রেণিতে পড়া দুই শিশু জয়নালের বাড়িতে যায় জলপাই কুড়াতে। এ সময় জয়নাল তাদের জলপাই খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে ঘরের ভেতর নিয়ে যান। এরপর পর্যায়ক্রমে ২ শিশুকে ধর্ষণ করেন। এরপর রবিবার দুপুরের দিকে জয়নালের বাড়িতে যায় প্রথম শ্রেণিতে পড়া দুই শিশু। তাদেরকেও জয়নাল কৌশলে ঘরে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করেন। শিশুদের মাধ্যমে বাবা ও মা ঘটনা সম্পর্কে জানতে পারেন। তখন তারা স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের কাছে যান। বিচার প্রার্থী অভিভাবকদের বক্তব্য শুনে চেয়ারম্যান কৌশলে মথুরাপুর বাজার এলাকা থেকে জয়নাল আবেদীনকে আটক করেন। পরে তাকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়। ধর্ষণের শিকার দুই শিশুর বাবা বাদী হয়ে জয়নাল আবেদীনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জয়নাল আবেদীন দাবি করেছেন, চার শিশু যৌন মিলনের কৌশল শিখতে চেয়েছিল। তাদের বিবস্ত্র করে যৌন মিলনের প্রশিক্ষণ দেন তিনি। এ সময় তারা সামান্য ব্যাথা পেয়েছে। জোরপূর্বক তাদের ধর্ষণ করা হয়নি।

ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক অংকিতা রব চৈতি জানান, প্রাথমিক পর্যবেক্ষণে চার শিশুর যৌনাঙ্গে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। তাদের চিকিৎসা চলছে।

বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গাজিউর রহমান বলেন, 'প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জয়নাল আবেদীন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। চার শিশুকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় জয়নালের বিরুদ্ধে থানায় দুটি মামলা দায়ের হয়েছে। চার শিশুকে শারীরিক পরীক্ষার জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।'

বরগুনার আলো
এই বিভাগের আরো খবর