শুক্রবার   ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০   ফাল্গুন ১৬ ১৪২৬   ০৪ রজব ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন খারিজ বঙ্গবন্ধু অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ দিয়েছেন : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মশা যেন ভোট খেয়ে না ফেলে, নতুন মেয়রদের প্রধানমন্ত্রী তাপস-আতিককে শপথ পড়ালেন প্রধানমন্ত্রী আমার কাছে রিপোর্ট আসছে, কাউকে ছাড়ব না : প্রধানমন্ত্রী দ্বিতীয় কিস্তির ২৭ কোটি ৬০ লাখ টাকা বিটিআরসিকে দিল রবি মাধ্যমিক পর্যন্ত বিজ্ঞান বাধ্যতামূলকের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ওপর নজরদারি বাড়াতে বললেন প্রধানমন্ত্রী বরগুনায় ওয়ারেন্ট ভুক্ত দুই আসামী গ্রেপ্তার আজকের স্বর্ণপদক প্রাপ্তরা ২০৪১ এর বাংলাদেশ গড়ার কারিগর যে কোন অর্জনের পেছনে দৃঢ় মনোবল এবং আত্মবিশ্বাস গুরুত্বপূর্ণ ‘প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক’ পেলেন ১৭২ শিক্ষার্থী আজ ১৭২ শিক্ষার্থী প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক পাচ্ছেন অশান্ত দিল্লিতে কারফিউ, নিহত ১৭ পিকে হালদারসহ ২০ জনের ব্যাংক হিসাব জব্দের আদেশ বহাল ৭ মার্চ জাতীয় দিবস ঘোষণা করে হাইকোর্টের রায় ১৪ দিনেই ভালো হচ্ছেন করোনা রোগী : আইইডিসিআর মুশফিক-নাঈমে ইনিংস ব্যবধানে দূর্দান্ত জয় টাইগারদের পিলখানা ট্র্যাজেডি দিবস আজ রিফাত হত্যা মামলার আসামি সিফাতের বাবা গ্রেফতার
৫০৮

প্রশ্নপত্র ফাঁস মুক্ত এইচএসসি পরীক্ষা সম্পন্ন হওয়ার পথে

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ২৩ এপ্রিল ২০১৯  

চলতি বছরের পয়লা এপ্রিল থেকে শুরু হওয়া উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এইচএসসি) পরীক্ষায় কোনো প্রকার প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনা ঘটেনি। প্রশ্নপত্র ফাঁসের মতো ঘটনা ছাড়াই শেষ হয়েছে বেশকিছু বিষয়ের পরীক্ষা। এছাড়া ২০১৯ সালের শুরুতে অনুষ্ঠিত মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) পরীক্ষার পর এবার এইচএসসিতেও প্রশ্নপত্র ফাঁস মুক্ত পরীক্ষা সম্পন্ন হওয়ার পথে। আগামী ১২ মে শেষ হবে এইচএসসি পরীক্ষা- ২০১৯।

প্রশ্নপত্র ফাঁস মুক্ত শিক্ষা ব্যবস্থা গড়তে বরাবরই তৎপর ছিলো সরকার। তা নতুন মাত্রায় শুরু হয় নতুন বছরে শুরুতে। ২০১৯ সালের এসএসসি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে প্রশ্নপত্র ফাঁসের মতো অপতৎপরতা রুখে দিতে কঠোর অবস্থান নেয় সরকার। যার ফলে বছরের শুরুতে এসএসসি পরীক্ষায় কোন প্রকার প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনা ঘটেনি। আর সেই সফলতার ধারা ধরে রাখা হয়েছে এইচএসসি পরীক্ষাতেও।

শিক্ষাবিদরা বলছেন, সরকারের এই প্রচেষ্টা ধরে রাখতে পারলেই অশিক্ষা ও দুর্নীতির হাত থেকে মুক্তি পাবে জাতি। কেননা, ফাঁসকৃত প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা দিয়ে একজন শিক্ষার্থী নামমাত্র পাস করলেও তা মূলত অশিক্ষারই নামান্তর।

প্রশ্ন ফাঁস সংক্রান্ত অপতৎপরতায় সরকার কঠোর হয় ২০১৮ সালের শুরুতে। বিভিন্ন পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের মতো গুজব ও অপতৎপরতা রোধে কঠোর অবস্থান নেয় বর্তমান সরকার ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এতে প্রশ্নপত্র ফাঁসের মতো ঘটনা ছাড়াই সফলভাবে শেষ হয় গত বছরের পাবলিক পরীক্ষাগুলো। সেই ধারাবাহিকতায় চলতি বছরের এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষাকে প্রশ্ন ফাঁস মুক্ত রাখতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করে সরকার। প্রশ্ন ফাঁসকারীদের গ্রেফতার করতে বিশেষ অভিযানও পরিচালনা করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এ কারণেই পাবলিক পরীক্ষাগুলোতে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।

এ প্রসঙ্গে আরেক শিক্ষাবিদ বলেন, বর্তমান সরকারের আন্তরিক প্রচেষ্টায় প্রশ্নপত্র ফাঁস নামক সামাজিক ব্যাধি প্রায় শূন্যের কোটায় নেমে এসেছে। ফলে রক্ষা পেয়েছে শিক্ষা খাত। তবে সমাজ থেকে প্রশ্নপত্র ফাঁস, নকলের মতো সামাজিক ব্যাধিসমূহ পুরোপুরি নির্মূল করতে হলে সরকারের পাশাপাশি শিক্ষার্থী, শিক্ষক, অভিভাবকসহ শিক্ষা সংশ্লিষ্ট সকলকে নিজ নিজ জায়গা থেকে সোচ্চার হতে হবে।

তিনি আরও বলেন, প্রশ্ন ফাঁস রোধ করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যেসব পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে, সেগুলো অব্যাহত রাখলে আর কেউ এমন অপতৎপরতায় জড়াতে সাহস পাবে না। সরকারের আন্তরিকতায় প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধ করা সম্ভব হয়েছে। ফলে অশিক্ষার হাত থেকে অচিরেই মুক্তি পাবে জাতি।

বরগুনার আলো
এই বিভাগের আরো খবর