রোববার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৬ ১৪২৬   ২২ মুহররম ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
ক্যাসিনো মালিকদের গল্প প্রয়োজনে ঋণ নেব, তবু ডোনেশন নয়-পরিকল্পনামন্ত্রী খেলাধুলার বিকল্প নেই: সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী কুরআনের ১০০ নির্দেশনা গ্রানাদার কাছে বার্সার পরাজয় চলমান অভিযান জনমনে প্রত্যাশার সৃষ্টি করবে: টিআইবি ৪০ কোটি টাকা নিয়ে পালানো সেই টার্কি বাবলু স্ত্রীসহ গ্রেপ্তার নারায়ণগঞ্জে পুলিশের ওপর হামলা, গুলিবিদ্ধ ১ ৪ দিনের সফরে ঢাকায় ভারতের নৌবাহিনী প্রধান ধোনির বাড়িতে প্রতিদিন লোডশেডিং, বিরক্ত স্ত্রী আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করছে সরকার : প্রধানমন্ত্রী পদোন্নতি না নিলে শাস্তি ব্যক্তিগত গাড়ির ওপর নির্ভরশীলতা কমাতে হবে : রাষ্ট্রপতি পাঁচ বছর আফগানিস্তানকে হারাল বাংলাদেশ ভূতের আড্ডায় অভিযান, বাতি জ্বালাতেই অপ্রীতিকর দৃশ্য কথাসাহিত্যিক শরদিন্দুর প্রয়াণ বিষাক্ত মদ পান করে ২ যুবকের মৃত্যু ঠাকুরগাঁওয়ের বাস কাউন্টারে মিলল মানুষের ৪ বস্তা খুলি ও হাড় রিফাত হত্যা মামলার আলামত আদালতে দাখিল, সাক্ষী ৭৫ কুমিল্লায় আগ্নেয়াস্ত্র ও ইয়াবাসহ যুবক আটক
১৪

ফ্রিল্যান্সারদের জন্য সুখবর

প্রকাশিত: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯  


 
বাংলাদেশ ব্যাংক দেশের ফ্রিল্যান্সারদের জন্য সুখবর এনে দিয়েছে। দেশের বাইরে অর্থ পাঠানোর ক্ষেত্রে ফ্রিল্যান্সারদের জন্য সুবিধা বাড়িয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

তথ্যপ্রযুক্তি খাতের ফ্রিল্যান্সাররা এখন থেকে ভার্চুয়াল (ডেবিট,ক্রেডিট ও প্রিপেইড) কার্ডের পাশাপাশি মোবাইল ওয়ালেটের মাধ্যমেও বাংলাদেশের বাইরে অর্থ পরিশোধ করতে পারবেন। এ ব্যবস্থায় একজন বছরে সর্বোচ্চ ৫০০ ডলার পর্যন্ত খরচ করতে পারবেন।

বাংলাদেশ ব্যাংক সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। প্রজ্ঞাপনটি দেশের ব্যাংকগুলোর প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ফ্রিল্যান্সারদের পক্ষে মোবাইল ওয়ালেট সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান অনলাইন ব্যবস্থায় অর্থ পরিশোধ করতে পারবে। সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান বৈদেশিক মুদ্রায় অর্থ পরিশোধের পর গ্রাহকের অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা কেটে নেবে।

সেবা রপ্তানির বিষয়ে নিবন্ধনসহ নানা কাজের জন্য ফ্রিল্যান্সারদের দেশের বাইরে অর্থ পরিশোধ করতে হয়। ফ্রিল্যান্সাররা অনলাইন প্ল্যাটফর্মে বিভিন্ন গেম ও সফটওয়্যারের লাইসেন্স ফি, ভেন্ডার সার্টিফিকেশন পরীক্ষার ফি, মোবাইল কিংবা গেমস অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপের নিবন্ধন ফি, ওয়েবসাইট তৈরি, সার্ভার ভাড়া, অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট, যেকোনো ডোমেইন নিবন্ধন, ক্লাউড ইত্যাদি সেবা রপ্তানি করে থাকেন। এত দিন তারা শুধু আন্তর্জাতিক কার্ডের মাধ্যমে সর্বোচ্চ ৩০০ ডলার অর্থ পরিশোধ করতে পারতেন।