• বুধবার   ০৩ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৯ ১৪২৭

  • || ১১ শাওয়াল ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
হাসপাতাল থেকে রোগী ফেরানো শাস্তিযোগ্য অপরাধ: তথ্যমন্ত্রী যেকোনো প্রতিবন্ধকতা মোকাবিলা করে এগিয়ে যেতে পারব: প্রধানমন্ত্রী সময় যত কঠিনই হোক দুর্নীতি ঘটলেই আইনি ব্যবস্থা: দুদক চেয়ারম্যান জেলা হাসপাতালগুলোতে আইসিইউ ইউনিট স্থাপনের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর করোনা বিশ্ব বদলে দিলেও বিএনপিকে বদলাতে পারেনি: কাদের করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৩৭ মৃত্যু, শনাক্ত ২৯১১ সীমিত আকারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার নির্দেশনা খাদ্য উৎপাদন আরও বাড়াতে সব ধরনের প্রচেষ্টা চলছে: কৃষিমন্ত্রী সারা দেশকে লাল, সবুজ ও হলুদ জোনে ভাগ করা হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ২৩৮১ জনের করোনা শনাক্ত পুরোপুরি স্বাস্থ্যবিধি মেনে ট্রেন চলছে: রেলমন্ত্রী দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৫৪৫ জনের করোনা শনাক্ত, মৃত্যু ৪০ জন বাস ভাড়া যৌক্তিক সমন্বয়, প্রজ্ঞাপন আজই: ওবায়দুল কাদের এখনই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলবো না: প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে এসএসসির ফল প্রকাশ করলেন প্রধানমন্ত্রী আগামীকাল ১২টার পরিবর্তে ১১টায় প্রকাশ হবে এসএসসির ফল করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ২৮ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৭৬৪ পদ্মাসেতুর সাড়ে ৪ কি.মি. দৃশ্যমান, বসল ৩০তম স্প্যান পদ্মা সেতুর ৩০তম স্প্যান বসছে আজ একদিনে সর্বোচ্চ আড়াই হাজার শনাক্ত, মৃত্যু ২৩ জনের
৮৩

বরগুনায় আম্ফানের প্রভাবে দমকা বাতাসসহ ভারী বর্ষণ শুরু

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ২০ মে ২০২০  

ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের প্রভাবে বরগুনায় দমকা বাতাস ও ভারী বর্ষণ শুরু হয়েছে।

বুধবার (২০ মে) ভোর ৬টা থেকে থেমে থেমে দমকা বাতাসের পাশাপাশি হালকা থেকে ভারী বর্ষণ শুরু হয়।

মঙ্গলবার (১৯ মে) রাত ৯টার পর থেমে থেমে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি শুরু হলে রাত ১০টার পর ভারী বর্ষণ শুরু হয়ে কিছুক্ষণ পর থেমে যায়। রাতভর তেমন কোনো বৈরী প্রভাব ছিলো না।

বুধবার ভোরে কলাপাড়া আবহাওয়া অধিদফতরের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বশির আহমেদ মুঠোফোনে জানান, ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবে বৃষ্টি ও দমকা বাতাস বইতে শুরু করেছে। বাংলাদেশের উপকূলে আঘাত হানার পর এর বাতাসের গতিবেগ থাকবে ঘণ্টায় ১৪০ থেকে ১৬০ কিলোমিটার।

পাউবো বরগুনা কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী কাওছার হোসেন জানান, রাত ৯টা পর্যন্ত স্বাভাবিকের চেয়ে বরগুনার নদ-নদীর জোয়ারের পানি দেড় ফুট বেশি উচ্চতায় প্রবাহিত হচ্ছে। রাতে ভারি বর্ষণ হলে বুধবার সকাল নাগাদ তা দ্বিগুণ হতে পারে।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাসুমা আক্তার বুধবার ভোরে জানান, এখন পর্যন্ত আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে মানুষ আশ্রয় নিতে শুরু করেনি। উপকূলবর্তী চরম ঝুঁকিপূর্ণ কিছু এলাকার আশ্রয় কেন্দ্রে সামান্যসংখ্যক মানুষ আশ্রয় নেয়ার খবর পাওয়া গেছে। তবে বেশিরভাগ আশ্রয় কেন্দ্রই এখনো জনমানবশূন্য অবস্থায়ই রয়েছে।

তবে, আজ দুপুরের মধ্যেই ঝুঁকিপূর্ণ বসতির লোকজনকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেয়ার ব্যবস্থা করা হবে।

বরগুনার আলো
বরগুনা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর