শনিবার   ১৭ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ২ ১৪২৬   ১৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
ডেঙ্গুজ্বর থেকে মুক্তি পেতে ‘স্টপ ডেঙ্গু’ অ্যাপ চালু দেশব্যাপী সিরিজ বোমা হামলার ১৪ বছর আজ মেসিহীন হার দিয়ে লা লিগা শুরু বার্সার আজ থেকে হজের ফিরতি ফ্লাইট শুরু কবি শামসুর রাহমানের ১৩তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ সোমবার ঢাকায় আসছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী কবিরা গুনাহকারীরা কি চিরকাল জাহান্নামে থাকবে? মিরপুরে বস্তির আগুন নিয়ন্ত্রণে ২০ ইউনিট ১৯ হাজার ৪০০ পিস ইয়াবাসহ আটক দুই বাড়তি ভাড়া আদায়ের অপরাধে ১৭ পরিবহনকে জরিমানা ‘সবসময় যারা আমাদের বাড়িতে ঘোরাঘুরি করতো তারাই সেই খুনি’   হাতঘড়ির ফ্যাশন ফিরে এসেছে দেশে শেখ হাসিনার জীবনই এখন বেশি ঝুঁকিপূর্ণ : কাদের বিশ্বের আট গুরুত্বপূর্ণ শহরে ‘মুজিববর্ষ’ উদযাপন করা হবে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের জন্য প্রাথমিক দল ঘোষণা বাংলাদেশের জিরো টলারেন্স নীতিতে জঙ্গি দমন সম্ভব হয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রবি শাস্ত্রীই কোচের দায়িত্বে থাকছেন: সিএসি মুক্তিযুদ্ধে বিজয়ের প্রতিশোধ নিতেই বঙ্গবন্ধু হত্যা: প্রধানমন্ত্রী ঢাকা-দিল্লির সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় পৌঁছেছে কাশ্মীর: ব্রিটিশ এশিয়ানদের কাছে কতটা গুরুত্বপূর্ণ?
১৯

বরগুনায় কিশোরীকে ধর্ষণের দায়ে যুবকের যাবজ্জীবন

প্রকাশিত: ৮ আগস্ট ২০১৯  

বরগুনায় কিশোরীকে (১৭) ধর্ষণের দায়ে বেল্লাল হোসেন ওরফে স্বপন (২৭) নামে এক যুবককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাঁকে তিন লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। ধর্ষণের ফলে জন্ম নেওয়া শিশুর পিতৃপরিচয় না দেওয়ায় ধর্ষককে দোষী সাব্যস্ত করে ওই শিশুকে প্রতি মাসে তিন হাজার টাকা করে খোরপোষ দেওয়ারও আদেশ দেন বিচারক।

মঙ্গলবার বিকেলে বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক ও জেলা জজ হাফিজুর রহমান এ রায় ঘোষণা করেন।

জরিমানার তিন লাখ টাকা আসামির কাছ থেকে আদায় করে বরগুনার জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ওই কিশোরীকে দেবেন বলে রায়ে উল্লেখ করেন বিচারক। দণ্ডপ্রাপ্ত বেল্লাল হোসেন বরগুনা সদর উপজেলার বদরখালী ইউনিয়নের পাতাকাটা গ্রামের আজহার ঘরামীর ছেলে। রায় ঘোষণার সময় তিনি আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

মামলা এজাহার সূত্রে জানা যায়, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বেল্লাল হোসেন ২০১২ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি কিশোরীর বাবার বাড়িতে তাকে ধর্ষণ করেন। এতে ওই কিশোরী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। কিন্তু এরপর আসামি তাকে বিয়ে না করে নানা রকম টালবাহানা করতে থাকে। একই বছরের ১৯ আগস্ট বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে ওই কিশোরী বাদী হয়ে মামলা করে।

মামলা করার পর বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে একটি ছেলেসন্তানের জন্ম হয়। সন্তানটির বয়স এখন আড়াই বছর।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিশেষ সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) মোস্তাফিজুর রহমান। আসামিপক্ষে ছিলেন আইনজীবী এম মজিবুল হক।

এই বিভাগের আরো খবর