সোমবার   ২৬ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ১০ ১৪২৬   ২৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
বঙ্গবন্ধুর আদর্শ থেকে শিক্ষা নিতে হবে : স্পিকার ‘মুখরোচক কথায় দালালের খপ্পরে পড়ে বিদেশ যাবেন না’- প্রধানমন্ত্রী আজ কুমিল্লায় পারিবারিক কবরস্থানে মোজাফফর আহমদের দাফন অ্যামাজন পুড়ছে, আমরা যেন না পুড়ি: পরিবেশমন্ত্রী জেলা সরকার এখন সময়ের দাবি: পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওএসডি হচ্ছেন জামালপুরের সেই ডিসি রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে: দীপু মনি সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধায় সিক্ত অধ্যাপক মোজাফফর বরগুনায় উচ্ছেদ অভিযানে জেলা প্রশাসন মোজাফফর আহমদের মরদেহে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা হাইভোল্টেজ ম্যাচে লড়বে লিভারপুল-আর্সেনাল গ্রেনেড হামলার মাস্টারমাইন্ডদের সর্বোচ্চ শাস্তি হবে- কাদের আইভি রহমানের সমাধিতে আওয়ামী লীগের শ্রদ্ধা আইভী রহমানের ১৫তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ মোজাফফর আহমদের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক ৯০ ভাগ ডেঙ্গু রোগী বাড়ি ফিরেছে: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে সরকার হাল ছাড়েনি: ওবায়দুল কাদের ২৩ আগস্টের ঘটনায় সেনাবাহিনী দায়ী নয়-ঢাবি উপাচার্য যে করেই হোক রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠাবোই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী মুক্তিযোদ্ধাদের চূড়ান্ত তালিকা বিজয় দিবসের আগেই: মন্ত্রী
২৭

বরগুনায় ধর্ষণের দায়ে একজনের যাবজ্জীবন

প্রকাশিত: ৭ আগস্ট ২০১৯  

বরগুনায় ধর্ষণের দায়ে এক ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়া তিন লাখ টাকা জরিমানার পাশাপাশি ধর্ষণের ফলে জন্ম নেওয়া শিশুর পিতৃপরিচয় না দেওয়ায় ধর্ষককে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। এজন্য আড়াই বছরের ওই শিশুকে প্রতিমাসে তিন হাজার টাকা করে খোরপোষ দেওয়ার আদেশ দিয়েছেন আদালত।

জরিমানার তিন লাখ টাকা আসামির কাছ থেকে বরগুনার জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদায় করে ভিকটিমকে দেবেন বলে রায়ের সময় উল্লেখ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৬ আগস্ট) বিকেলে বরগুনার নারী ও শিশু নিযার্তন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক ও জেলা জজ হাফিজুর রহমান এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি বরগুনা সদর উপজেলার বদরখালী ইউনিয়নের পাতাকাটা গ্রামের আজাহার ঘরামীর ছেলে বেল্লাল হোসেন স্বপন (২৭)। তিনি রায় ঘোষণার সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

বিচারক তার রায়ে আরও উল্লেখ করেন- জরিমানার ৩ লাখ টাকা বরগুনার জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আসামির কাছ থেকে আদায় করে বাদীকে দেবেন। একই সঙ্গে আসামি প্রতি মাসে ৩ হাজার টাকা করে ওই বাচ্চাকে খোরপোষ দিতে আদেশ দেওয়া হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১২ সালে ১০ ফেব্রুয়ারি ধর্ষণের ঘটনায় একই বছরের ১৯ আগস্ট ট্রাইব্যুনালে অভিযোগ দায়ের করেন বাদী। এতে উল্লেখ করা হয়, আসামি তাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ওই তারিখে সকাল ১০টার দিকে বাদীর বাবার বাড়িতে ধর্ষণ করে। ধর্ষণ পরবর্তী সময়ে বাদী গর্ভবতী হয়ে পরে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে একটি ছেলে সন্তানের জন্ম দেয়। সন্তানটির বয়স এখন আড়াই বছর।

বাদী আদালতের বারান্দায় দাঁড়িয়ে বলেন, এ সন্তানের নাম রেখেছেন আসামি নিজে। আমি তার সংসার করতে চেয়েছি। কিন্তু আসামির মা আমাকে সংসার করতে দেয়নি।

আসামি বেল্লাল হোসেন বলেন, এ রায়ের বিরুদ্ধে আমি উচ্চ আদালতে যাবো।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন বিশেষ পিপি মোস্তাফিজুর রহমান। আসামি পক্ষে ছিলেন আইনজীবী এম মজিবুল হক কিসলু।

এই বিভাগের আরো খবর