মঙ্গলবার   ১২ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ২৭ ১৪২৬   ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
সংসদে বাংলাদেশের পতাকবাহী জাহাজ (সুরক্ষা) বিলের রিপোর্ট উপস্থাপন মুজিব বর্ষ উদযাপনে ভারতের আগ্রহ রয়েছে: রাম মাধব বাংলা বন্ড চালু বিশ্ব অথনীতিতে একটি বড় পদক্ষেপ:অর্থমন্ত্রী ইন্দো-প্যাসিফিক সহযোগিতা বাড়ানোর ওপর গুরুত্ব আরোপ মোমেনের ২০২০ সালের হজ নিয়ে সৌদির সাথে বাংলাদেশের চুক্তি ১ ডিসেম্বর সম্প্রচারের অপেক্ষায় ১১টি বেসরকারি টিভি মাছের মুখ দেখতে মানুষের মতো! র‌্যাবের অভিযানে রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট তৈরি চক্রের হদিস আন্তর্জাতিক আদালতে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে গাম্বিয়ার মামলা মুক্তিযোদ্ধাদের মর্যাদা ফিরিয়ে দিয়েছেন শেখ হাসিনা: নাসিম বাণিজ্যমন্ত্রীর হাতে ফুল দিয়ে আলোর পথে ১৩ ডাকাত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা লন্ডনে কমনওয়েলথ মেলায় আবাসিকে গ্যাস সংযোগের পরিকল্পনা সরকারের নেই পাঁচ দিনের সফরে কেনিয়া গেলেন পরিকল্পনামন্ত্রী শাহ আমানতে চার্জার লাইটের ব্যাটারি থেকে সোনা জব্দ জ্বিনে ধরেছে আইরিনকে! বরফের সুনামি! সোশ্যাল মিডিয়ায় তোলপাড় (ভিডিও) স্ত্রীর কাটা মাথা নিয়ে থানায় হাজির হলেন স্বামী! বুলবুলের পর এবার ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় `পবন` আইন সংশোধন: পিপিপিতে বছরে একটি সভা

বরগুনায় শিশু হত্যা মামলায় কিশোরের ১০ বছর কারাদণ্ড

প্রকাশিত: ৪ নভেম্বর ২০১৯  

 


 সৎ ভাই জাবেদকে (৭) পানিতে চুবিয়ে হত্যা করে মরদেহ গুম করার অভিযোগে ইমরান সিকদার (১৪) নামে এক কিশোরের ১০ বছর কারাদণ্ড, পাঁচ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ড এবং মরদেহ গোপন করার অভিযোগে আরও দুই বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। 
সোমবার (৪ নভেম্বর) দুপুরে বরগুনার শিশু আদালতের বিচারক ও জেলা জজ মো. হাফিজুর রহমান এ রায় ঘোষণা করেন। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি বরগুনা জেলার বেতাগী উপজেলার বিবিচিনি গ্রামের সোবহান সিকদারের ছেলে ইমরান সিকদার। রায় ঘোষণার সময় আসামি আদালতে উপস্থিত ছিল।
আদালত সূত্রে জানা যায়, দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি ইমরানের বাবা সোবহান সিকদারের দুই স্ত্রী। 
দেশান্তরকাঠিতে দ্বিতীয় স্ত্রী বিউটি বেগম বসবাস করেন। বিউটি বেগমের সাত বছরের ছেলে জাবেদ স্থানীয় ব্র্যাক স্কুলে প্রথম শ্রেণিতে পড়াশুনা করত। সোবহান সিকদার ঢাকায় থাকেন। ধান কাটার মৌসুম হওয়ায় তিনি বিউটিকে ফোন দিয়ে বিবিচিনি সতীনের বাড়িতে আসতে বলেন। 
২০১৮ সালের ১৮ জুন বিকেলে বিউটির সন্তান জাবেদকে নিয়ে সতীনের বাড়িতে আসেন। পরের দিন ১৯ জুন বিকেল ৪টার দিকে ইমরান তার সৎ ভাইকে সাইকেলে চড়িয়ে ঘুরতে নিয়ে যায়। সন্ধ্যা হলেও ইমরান ও জাবেদ বাড়িতে ফিরে না আসায় বিউটি খুঁজতে বের হন। একপর্যায়ে পাশের বাড়ির কলাবাগানে ইমরানকে দেখতে পান। এসময় ইমরান তার সৎ মা বিউটিকে দেখে দৌড় দেয়। তাকে ধরে জাবেদ কোথায় জানতে চাইলে ইমরান স্বীকার করে আবুল মল্লিকের কলাবাগানে কচুরীপানার মধ্য জাবেদকে হত্যা করে মরদেহ লুকিয়ে রেখেছে। পরে ওই পুকুর থেকে জাবেদের মরদেহ উত্তোলন করে বেতাগী থানায় মামলা করেন বিউটি। তদন্ত শেষে চলতি বছরের ২৩ মার্চ আসামি ইমরানের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। 
রাষ্ট্রপক্ষের বিশেষ পিপি মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, বরগুনায় এই প্রথম শিশু আদালতে বিচারক ও আইনজীবীদের কোর্ট ড্রেস ছাড়া শিশুর বিচার হলো। 
তিনি আরও বলেন, ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। আসামি শিশু হওয়ায় শিশু আইনে ১০ বছরের বেশি শাস্তি দেওয়ার বিধান নেই। যার কারণে মৃত্যুদণ্ড বা যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিতে পারেনি আদালত। রায় ঘোষণার পর আসামিকে যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। 
আসামিপক্ষের আইনজীবী বিমান কান্তি গুহ বলেন, এ রায়ের বিরুদ্ধে আসামি হাইকোর্টে আপীল করবে। 

এই বিভাগের আরো খবর