শনিবার   ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৯ ১৪২৬   ১৬ রবিউস সানি ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
বিশ্বের প্রভাবশালী ১০০ নারীর তালিকায় শেখ হাসিনা আজকের নবীন কর্মকর্তারাই হবেন ৪১ সালের সৈনিক : প্রধানমন্ত্রী ঘুষ-দুর্নীতির বিরুদ্ধে সজাগ থাকার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর বয়স্ক বাবা-মাকে না দেখলে জেল চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোতে যারা ফখরুল-রিজভীসহ ১৩৫ জনের বিরুদ্ধে দুই মামলা সবার জন্য উন্মুক্ত থাকছে ‘কনসার্ট ফর ডিজিটাল বাংলাদেশ’ এসক্যাপ অধিবেশনে যোগ দিতে শেখ হা‌সিনা‌কে আমন্ত্রণ রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠির ন্যায়বিচার-নিরাপত্তা দাবি অক্সফামের কৃষি আধুনিক হলেই মাথাপিছু আয় বাড়বে: কৃষিমন্ত্রী মাওলানা ভাসানীর জন্মবার্ষিকী আজ কাল নেতাকর্মীদের সতর্ক থাকতে বললেন ওবায়দুল কাদের ‘ফুড চেইনের মাধ্যমে প্লাস্টিক শরীরে প্রবেশ করছে’ বিশাল জয়ে শুরু কুমিল্লার বঙ্গবন্ধু বিপিএল মিশন টাইম ম্যাগাজিনের ‘পারসন অব দ্য ইয়ার’ গ্রেটা থানবার্গ বিদ্যুৎ খাতের উন্নয়নে ৩০ কোটি ডলার দেবে এডিবি ‘বিদেশগামীদের জন্য চালু হচ্ছে প্রবাসী কর্মী বিমা’ প্রেষণে বদলি রাষ্ট্রীয় ব্যাংকের ৯ জিএম জনতা ব্যাংকের অর্থ আত্মসাৎ: আসামিকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ মাদককে দেশ ছাড়া করবো: আইজিপি
৬৪০

বাংলাদেশের বাইসাইকেলের কদর বিশ্বজুড়ে

প্রকাশিত: ১৩ নভেম্বর ২০১৯  

বিশ্বজুড়েই বাংলাদেশে বাইসাইকেলের কদর বাড়ছে। ইউরোপের ২৮ দেশে বাইসাইকেল রপ্তানিতে বাংলাদেশ তৃতীয়।যুক্তরাজ্যসহ ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত (ইইউ) দেশে রপ্তানি হচ্ছে বাংলাদেশের তৈরি পরিবেশবান্ধব এ বাহনটি। ইইউর বাইরেও বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশ বাইসাইকেল রপ্তানি করে। বাংলাদেশ রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা বলেন, বাইসাইকেল রপ্তানির ভবিষ্যৎ খুবই উজ্জ্বল। প্রতিবছরই বাড়ছে রপ্তানি চাহিদা। তবে স্বয়ংসম্পূর্ণভাবে সাইকেল উৎপাদনের কারখানা স্থাপন করা খুবই ব্যয়বহুল। কারণ, সরঞ্জাম উৎপাদনের পশ্চাৎমুখী কারখানা ছাড়া সাইকেলের ব্যবসায় টিকে থাকা মুশকিল।
ইপিবি সূত্রে চলতি অর্থ বছরের ইইউ ভুক্ত দেশগুলোসহ অন্যান্য দেশে জুলাই থেকে অক্টোবর পর্যন্ত এ চার মাসে বাইসাইকেল রপ্তানিতে আয় হয়েছে ২৫৩ কোটি ৪২ লাখ টাকা। যা গত বছরের এ সময়ে আয় হয়েছিলো ২২২ কোটি ৮৫ লাখ টাকা। সে হিসেবে গত বছরের আলোচ্য সময়ের চেয়ে এ বছর ১৩ দশমিক ৭২ শতাংশ বেশি আয় হয়েছে। চলতি অর্থবছরের লক্ষ্যমাত্রার আলোকে এ সময়ে ১২ দশমিক ৭০ শতাংশ বেশি রপ্তানি হয়েছে। গত অর্থ বছরের বাইসাইকেল রপ্তানি আয় হয়েছে ৭০৭ কোটি ৬১ লাখ টাকা। এ অর্থ বছরের লক্ষ্যমাত্র হচ্ছে ৭১৪ কোটি টাকা।
জানা যায়, ২০১৭ ইইউভুক্ত ২৮ দেশে বাংলাদেশ রপ্তানি করেছে ৬ কোটি ৫৪ লাখ ইউরো বা ৬৪২ কোটি টাকার বাইসাইকেল। ২০১৬ সালে রপ্তানি হয়েছিলো ৬ কোটি ৫১ লাখ টাকার বাইসাইকেল।
জানা যায়, বাইসাইকেল রপ্তানিতে প্রথম মেঘনা গ্রুপ। এ গ্রুপটি গত ২০১৭-১৮ অর্থবছরে প্রায় সাড়ে চার কোটি ডলারের বাইসাইকেল রপ্তানি করেছে। এ ছাড়া তাদের কারখানায় উৎপাদিত টায়ার ও টিউব বিশ্বের ১৮ দেশে সরাসরি রপ্তানি হয়েছে। যার পরিমাণ ২০ লাখ ডলারের কাছাকাছি। রপ্তানির পাশাপাশি দেশের বাজারেও সাইকেল বিক্রি করছে তারা।
বাইসাইকের রপ্তানিকারক ব্যবসায়ী কামরুজ্জামান কামাল বলেন, ইইউতে জিএসপি সুবিধা পাওয়ার কারণে বাইসাইকেল রপ্তানি বাড়ছে। তবে বাইসাইকেলের বিভিন্ন যন্ত্রাংশ আমদানিতে ৫৫ শতাংশ শুল্ক লাগে। সেটি কমানো হলে রপ্তানি আরও বাড়বে। বাইসাইকেল রপ্তানি প্রতিবছরই রপ্তানি বাড়ছে। সেই হিসেবে এ ব্যবসায় ভালো অবস্থান তৈরি হবে। তবে স্বয়ংসম্পূর্ণভাবে সাইকেল উৎপাদনের কারখানা স্থাপন করা খুবই ব্যয়বহুল। 

এই বিভাগের আরো খবর