শুক্রবার   ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০   ফাল্গুন ১৬ ১৪২৬   ০৪ রজব ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন খারিজ বঙ্গবন্ধু অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ দিয়েছেন : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মশা যেন ভোট খেয়ে না ফেলে, নতুন মেয়রদের প্রধানমন্ত্রী তাপস-আতিককে শপথ পড়ালেন প্রধানমন্ত্রী আমার কাছে রিপোর্ট আসছে, কাউকে ছাড়ব না : প্রধানমন্ত্রী দ্বিতীয় কিস্তির ২৭ কোটি ৬০ লাখ টাকা বিটিআরসিকে দিল রবি মাধ্যমিক পর্যন্ত বিজ্ঞান বাধ্যতামূলকের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ওপর নজরদারি বাড়াতে বললেন প্রধানমন্ত্রী বরগুনায় ওয়ারেন্ট ভুক্ত দুই আসামী গ্রেপ্তার আজকের স্বর্ণপদক প্রাপ্তরা ২০৪১ এর বাংলাদেশ গড়ার কারিগর যে কোন অর্জনের পেছনে দৃঢ় মনোবল এবং আত্মবিশ্বাস গুরুত্বপূর্ণ ‘প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক’ পেলেন ১৭২ শিক্ষার্থী আজ ১৭২ শিক্ষার্থী প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক পাচ্ছেন অশান্ত দিল্লিতে কারফিউ, নিহত ১৭ পিকে হালদারসহ ২০ জনের ব্যাংক হিসাব জব্দের আদেশ বহাল ৭ মার্চ জাতীয় দিবস ঘোষণা করে হাইকোর্টের রায় ১৪ দিনেই ভালো হচ্ছেন করোনা রোগী : আইইডিসিআর মুশফিক-নাঈমে ইনিংস ব্যবধানে দূর্দান্ত জয় টাইগারদের পিলখানা ট্র্যাজেডি দিবস আজ রিফাত হত্যা মামলার আসামি সিফাতের বাবা গ্রেফতার
১৫৩

বামনায় তিন শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ চেষ্টায় গ্রেফতার ২  

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

 

বরগুনার বামনা উপজেলার রামনা শেরে বাংলা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণিতে পড়ুয়া তিন ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে দুই স্কুল শিক্ষার্থীকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠিয়েছে বামনা থানা পুলিশ। এ ঘটনায় ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে বামনা থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।   
মামলার আসামিরা হলো, উত্তর রামনা গ্রামের খলিলুর রহমান খানের ছেলে মিলন খান (১৬) ও একই গ্রামের সুলতান হাওলাদারের ছেলে সুজন হাওলাদার (১৬)। 
শনিবার (৭ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টায় উপজেলার রামনা লঞ্চঘাট এলাকার সিকদার বাড়ির পরিত্যক্ত একটি বাড়িতে একই বিদ্যালয়ের তিন স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করে ওই দুই স্কুলছাত্র।
নির্যাতিতা স্কুল ছাত্রীরা জানায়, তারা তিনজন মিলে গোপনে একটি মোবাইল ফোন ব্যবহার করতো। ঘটনাটি বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী জানতে পারে। বিষয়টি সে তার এক বন্ধুকে জানায়। বৃহস্পতিবার (৫ সেপ্টেম্বর) বিদ্যালয় ছুটির পর ওই ছাত্রীদের কাছে থাকা মোবাইল ফোনটি ছিনিয়ে নেয়। ওই ফোনটি ফিরে পেতে তারা দুইজন ছাত্রীদের কাছে এক হাজার টাকা দাবি করে। ছাত্রীরা ওই টাকা দিতে রাজি হলে তাদেরকে টাকা নিয়ে রামনা লঞ্চঘাট এলাকার সিকদার বাড়ির একটি পরিত্যক্ত টিনের ঘরে আসতে বলে। ছাত্রীরা তাদের মোবাইল ফোন ফেরত নিতে শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে সেখানে যায়। সেখানে ওত পেতে থাকা দুই শিক্ষার্থী তাদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে তাদেরকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। ছাত্রীরা সংখ্যায় তিনজন হওয়ায় তাদের ধর্ষণ চেষ্টা ব্যর্থ হয়। 
ভুক্তভোগী ছাত্রীরা অভিযোগ করে বলে, ওরা ধর্ষণ করতে অনেক চেষ্টা করেছে কিন্তু না পেরে  আমাদের ওপর শারীরিক নির্যাতন চালায় ও তাদের ফোন দিয়ে জোর করে কয়েকটি ছবি তোলে। এই ঘটনাটি কাউকে জানালে ওই ছবিগুলো ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দেয়। পরে আমরা সেখান থেকে দৌড়ে পালিয়ে বিদ্যালয়ে এসে শিক্ষকদের কাছে বিষয়টি জানাই। 
বিদ্যালয়টির সহকারী শিক্ষক আবুল কালাম জানান, নির্যাতিত অষ্টম শ্রেণির তিন শিক্ষার্থী এসে  তার কাছে কান্নায় ভেঙে পরে। পরে তাদের কাছ থেকে বিষয়টি জেনে ঘটনার সঙ্গে জড়িত দশম শ্রেণির ছাত্রকে তাৎক্ষনিক বিদ্যালয়ের লাইব্রেরী কক্ষে আটকে রাখে এবং রামনা থানা পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করেন। 
অভিযুক্ত ওই স্কুল ছাত্রকে প্রথমে বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা বিদ্যালয়ের একটি কক্ষে আটকে রাখে পরে রামনা থানা পুলিশ গিয়ে গ্রেফতার করে। অপর অভিযুক্ত ছাত্র পালিয়ে যাওয়ার সময় রামনা খেয়াঘাট থেকে স্থানীয় সাংবাদিক ও এলাকাবাসী তাকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। 
রামনা থানার অফিসার ইনচার্জ এস এম মাসুদুজ্জামান বলেন, ঘটনার সঙ্গে জড়িত দুইজনকে পুলিশ তাৎক্ষণিক গ্রেফতার করেছে। এ ঘটনায় নির্যাতিত ছাত্রীদের পক্ষ থেকে মামলা দায়ের করা হয়েছে মামলায় দুইজনকে আসামি করা হয়েছে এবং দুজনকেই বরগুনা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। 

বরগুনার আলো
এই বিভাগের আরো খবর