সোমবার   ৩০ মার্চ ২০২০   চৈত্র ১৬ ১৪২৬   ০৫ শা'বান ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
পিপিই যেন নষ্ট না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনা মোকাবিলায় সরকার জনগণের পাশে আছে -প্রধানমন্ত্রী ছুটিতে কর্মস্থল ছাড়া যাবে না : সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন করোনা সংকটকালে জনগণের পাশে থাকবে আ.লীগ: কাদের আমি করোনায় আক্রান্ত হইনি : স্বাস্থ্যমন্ত্রী বাংলাদেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত নেই : আইইডিসিআর পদ্মা সেতু‌তে বসলো ২৭তম স্প্যান, দৃশ্যমান হলো ৪ হাজার ৫০ মিটার সব পোশাক কারখানা বন্ধের নির্দেশ পবিত্র শবে বরাত ৯ এপ্রিল অতি প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে যাবেন না : প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী মুক্তি পেলেন খালেদা জিয়া সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে আজ ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী নিষেধাজ্ঞা অক্ষরে অক্ষরে পালন করুন : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরগুনায় সকল প্রকার যানবাহন চলাচল বন্ধ রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশেই খালেদা জিয়াকে মুক্তির সিদ্ধান্ত করোনা ছোঁয়াচে, এক মিটার দূরত্বে থাকার পরামর্শ ২৬ মার্চ থেকে সারাদেশে ১০ দিন গণপরিবহন বন্ধ মাঠে নেমেছে সেনাবাহিনী
১০

বড় ক্ষতির ঝুঁকিতে বিশ্ব: এডিবি

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ৮ মার্চ ২০২০  

করোনাভাইরাসের প্রভাবে চলতি বছর বৈশ্বিক উন্নয়ন ব্যাপকভাবে বাধাগ্রস্ত হতে পারে বলে জানিয়েছে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)। চীনের বাইরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের পরিস্থিতি দিন দিন খারাপের দিকে যাচ্ছে। এই ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে বিভিন্ন বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান তাদের কারখানা বন্ধ রেখেছে। এ পরিস্থিতিতে নতুন সতর্কবার্তা দিল এডিবি। প্রতিষ্ঠানটি বলছে, এই ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে বড় ক্ষতির ঝুঁকিতে রয়েছে বিশ্ব।

এডিবি বলেছে, বৈশ্বিক জিডিপি এ বছর শূন্য দশমিক ১ থেকে দশমিক ৪ শতাংশ পর্যন্ত কমতে পারে। এ ছাড়া আর্থিক ক্ষতি হতে পারে ৩৪ হাজার ৭০০ কোটি মার্কিন ডলার পর্যন্ত।

শনিবার এডিবি'র এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিভিন্ন খাতে প্রবাহিত দেশীয় অর্থনীতি, পর্যটন ও ভ্রমণ ব্যবসা, বাণিজ্য ও উৎপাদন ব্যবস্থাসহ স্বাস্থ্য সেবা খাত সমূহে মারাত্মক প্রভাব ফেলবে।

এডিবির বিশ্লেষণে বলা হয়েছে, করোনার প্রভাবে উন্নয়নশীল এশিয়ান অর্থনীতিগুলি বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবে। এই দেশগুলি তাদের মোট জিডিপির ০.১৭ থেকে ০.৪৬ শতাংশ হারাবে। দক্ষিণ এশিয়ার সাতটি দেশের মধ্যে ভারত সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

বর্তমান চিত্রের তথ্যমতে, জানুয়ারির শেষ দিক থেকে শুরু করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত দেশগুলোতে ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হচ্ছে। আর এই নিষেধাজ্ঞার পর ভ্রমণে স্থিতিশীলতা আসতে কমপক্ষে তিনমাস সময় লেগে যাবে। এতে বিশ্বব্যাপী ১৫৬ বিলিয়ন ডলার ক্ষতির সম্মুখীন হতে হবে যা মোট জিডিপি'র ০.২ শতাংশ।

গণপ্রজাতন্ত্রী চীন (পিআরসি) এরইমধ্যে তাদের অর্থনীতিতে ১০৩ বিলিয়ন ডলার অর্থাৎ ০.৮ শতাংশ লোকসানের কথা জানিয়েছে। এতে এশিয়ার অন্যান্য দেশগুলোতে ২২ বিলিয়ন ডলার অর্থাৎ ০.২ শতাংশ হারাবে।

এডিবির চিফ ইকোনমিস্ট ইয়েসুউকি সাওয়াদা বলেন, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে অর্থনীতিতে মারাত্মক প্রভাব পড়তে পারে। এটির জন্য প্রয়োজন সম্ভাব্য ক্ষতির একটি পরিষ্কার চিত্র তুলে ধরা। করোনাভাইরাস পরবর্তী প্রাদুর্ভাব মোকাবিলা করতে আমরা আশা করছি এই বিশ্লেষণ সরকারকে সাহায্য করবে। মানবিক ও অর্থনৈতিক প্রভাব প্রশমিত করতে সুস্পষ্ট সিদ্ধান্ত নিতেও সাহায্য করবে।

বরগুনার আলো
এই বিভাগের আরো খবর