মঙ্গলবার   ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ২ ১৪২৬   ১৭ মুহররম ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
দুই মাসে এডিপি বাস্তবায়নের হার বেড়েছে ৪.৪৮ শতাংশ উদ্বোধনের দিনেই পদ্মাসেতুতে ট্রেন চলবে: রেলমন্ত্রী ৮ হাজার ৯৬৮ কোটি ৮ লাখ টাকার প্রকল্প একনেকে অনুমোদন ভারতীয় কোস্টগার্ড ডিজির সঙ্গে রীভা গাঙ্গুলির বৈঠক ইসির চুরি যাওয়া ল্যাপটপ উদ্ধার, আটক ৩ আজ মহান শিক্ষা দিবস প্রধানমন্ত্রী ‘রাজহংস’ উদ্বোধন করবেন আজ রোহিঙ্গা ভোটার: ইসি কর্মচারীসহ আটক ৩ রিফাত-মিন্নির নতুন ভিডিও, বেরিয়ে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য ‘বিজ্ঞান-প্রযুক্তির বিকাশ ছাড়া দেশ উন্নয়ন করা সম্ভব নয়’ রোহিঙ্গা ভোটার খতিয়ে দেখতে চট্টগ্রামে কবিতা খানম আগামী ১০মাসের রোডম্যাপ তৈরি ও তার বাস্তবায়ন করবো - জয় ও লেখক ডেঙ্গুতে সরকারি হিসেবে ৬৮ জনের মৃত্যু আ. লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর সভা ১৮ সেপ্টেম্বর বঙ্গবন্ধুর নাতনি টিউলিপের জন্মদিন আজ আজ থেকে ট্রাকে পেঁয়াজ বিক্রি করবে টিসিবি বিশ্ব ওজন দিবস আজ শিগগিরই বন্দর-ট্রেনে যুক্ত হচ্ছে ত্রিপুরা-বাংলাদেশ দিল্লিতে শেখ হাসিনা-মোদি বৈঠক ৫ অক্টোবর সারাদেশে ৭৫ প্রতিষ্ঠানকে পাঁচ লক্ষাধিক টাকা জরিমানা
৩৪৮

বয়স ভেদে ফেসিয়াল

আকাশলীনা

প্রকাশিত: ২০ ডিসেম্বর ২০১৮  

সুন্দর মুখের জয় সর্বত্র। সেক্ষেত্রে একটা সুন্দর মুখশ্রীর কথা আসে সর্বাগ্রে। গায়ের রং সাদা, কালো যাই হোক না কেন সুন্দর, সতেজ, দাগহীন, নিটোল মুখ একজনকে অপরূপা করে তোলে। কিন্তু চাইলেইতো আর এমন মুখশ্রী পাওয়া যাবেনা। তার জন্য যত্ন চাই। ত্বকের লোমকূপের মধ্যে নানা ময়লা আটকে, মরা কোষ জমে, তেল নিঃসরণ হয়ে চেহারার একেবারে বারোটা বেজে যায়। ব্লাকহেডস, হোয়াইট হেডস, ব্রণ, পিম্পলসহ নানা সমস্যায় তখন হামেশাই পর্যদূস্ত হই আমরা। তাই একটা নিদিষ্ট বয়সের পর আমাদের ত্বককে সতেজ যৌবন দীপ্ত করে তুলতে প্রয়োজন বাড়তি যত্ন আত্তি এবং পুষ্টির। এ জন্যেই সঠিক খাদ্যাভাসের সঙ্গে নিয়মিত ত্বকের যত্ন করা প্রয়োজন। আর ফেসিয়াল ঠিক এ কাজটিই করে সঠিক ভাবে ফেসিয়াল ত্বককে পুষ্টি যোগায়, ত্বকে জমে থাকা মরা কোষ দূর করে রং উজ্জল ও মসৃণ করে, ত্বককে হাইড্রেট করে। ব্লাকহেডস, হোয়াইট হেডস, পিম্পল নিয়ন্ত্রণে রাখে। এক কথায় আমাদের ত্বককে করে তোলে লাবণ্যময় এবং সুন্দর যা আমাদের একান্ত কাম্য। 

কতদিন পরপর ফেসিয়ালঃ    ত্বক পরিস্কার রাখার জন্যে ১৫ দিন পরপর ফেসিয়াল করা ভাল। আর ট্রিটমেন্ট বেজড ফেসিয়ালগুলো ৩ মাস পরপর করলে ভাল রেজাল্ট মিলবে। 

ফেসিয়ালের জন্যে বয়সঃ    আমরা অনেকেই ফেসিয়াল সম্পর্কে নেতিবাচক ধারনা পোষণ করি। আবার অনেকেরই মনে ফেসিয়াল করার বয়স সম্পর্কে নানা ভ্রান্ত ধারনা আছে। ফেসিয়াল করার মূল উদ্দেশ্য হলো ত্বক পরিস্কার করা। আর ত্বকতো সব বয়সেই পরিস্কার করা দরকার। তাই বলা যায় সব বয়সেই ফেসিয়াল করা যায়। বরঞ্চ অল্প বয়স থেকেই সচেতন ভাবে ত্বক পরিস্কার করার এ কৌশল গ্রহণ করলে বয়স হওয়ার পরও ত্বক থাকবে আকর্ষণীয় এবং সুন্দর। তবে বয়স ভেদে যেহেতু ত্বকের পরিবর্তন হয় তাই বয়সভেদে ফেসিয়ালের ধরণেও আসে তারতম্য। আজকে তাই জেনে নিন বয়সভেদে ফেসিয়ালের রকমফের গুলোঃ 

১৭-২০ বছরঃ    টিন এইজে আমাদের ত্বকে তৈলাক্ত ভাব বেশী থাকে। তাছাড়া হরমোণের প্রভাবে এ সময়ে ব্রণ/পিম্পল প্রভৃতি হয়ও বেশী। এ সময়ে কলেজ, বন্ধু-বান্ধব, খেলাধুলা প্রভৃতির জন্যে বাইরের রোদ বৃষ্টি, ধূলায় ঘোরাঘুরিও হয় বেশী। তাই এ বয়স থেকেই ত্বক পরিস্কার রাখার ব্যাপারে মনোযোগ দেওয়া দরকার। হারবাল ফেসিয়াল এ বয়সে বেশ কার্যকর। হানি, অরেঞ্জ, কিউকাম্বার, মিন্ট – এসব ফেসিয়ালগুলো এ বয়সের জন্যে পারফেক্ট।


২১-৩০ বছরঃ    ২০ বছরের পর সকলেরই ফেসিয়ালটা করা দরকার। তেমন কোন সমস্যা না থাকলে এ সময়েও হারবাল ফেসিয়াল করা যাবে। পার্ল ফেসিয়ালও অধিকাংশের জন্যে ভাল। তবে সেনসেটিভ স্কিন হলে পার্ল ফেসিয়াল এড়িয়ে চলবেন। এ বয়সে মাঝেমাঝে গোল্ড ফেসিয়াল বা পার্ল ফেসিয়াল চেহারায় আলাদা উজ্জ্বলতা ও চটক আনবে। 

৩১-৪০ বছরঃ    সাবধানতার বয়স শুরু এখান থেকেই। সাধারণত এ সময় থেকেই ত্বকের ময়েশ্চারাইজার কমতে থাকে এবং ক্রমশ নানা সমস্যা বাড়তে থাকে। তাই খুব যত্ন এবং সাবধানতার সঙ্গে এ সময় এমন ফেসিয়াল করতে হবে যেন ত্বক প্রপারভাবে ময়েশ্চারাইজার পায়। ফ্রুট ফেসিয়াল এ বয়সে দারুণ কার্যকর। তাছাড়া অ্যান্টি অক্সিড্যান্ট/অ্যান্টি রিঙ্কল ফেসিয়ালও ত্বকের যত্নে কার্যকরী ভূমিকা রাখবে। তাই বেছে নিতে পারেন এগুলো থেকে যে কোনটা। 


৪১-৫০ বছরঃ    এই সময়ে আমরা ক্রমশ এগিয়ে যাই প্রৌঢ়ত্বের দিকে। অনেকেরই চেহারায় কালো কালো ছোপ পড়তে থাকে। অন্যান্য সমস্যাগুলোও প্রকট আকার ধারণ করতে থাকে। তাই এখন সময় বিশেষ সাবধানতার। বিশেষজ্ঞর কাছ থেকে সমস্যা অনুযায়ী ফেসিয়াল ঠিক করে নেওয়া ভাল। অ্যান্টিরিঙ্কেল, চকলেট ফেসিয়াল, থার্মোহার্ব ফেসিয়াল এগুলো এসময় ভাল কাজ করবে। 

৫১ উর্দ্ধঃ    জীবনের অনেকটা সময় পার হয়ে এসেছেন ইতিমধ্যে। এ সময় তাই শরণাপন্ন হোন বিশেষজ্ঞদের। ত্বকের ধরণ এবং সমস্যা অনুযায়ী তাদের দেওয়া  পরামর্শমত ত্বকের যত্ন নিন। ভাল থাকুন, সুস্থ থাকুন, সুন্দর থাকুন সব বয়সেই।