সোমবার   ২০ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ৬ ১৪২৬   ২৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
শহীদ আসাদ দিবস আজ বৈষম্য বিলোপ আইনের খসড়া তৈরির কাজ চলছে: আইনমন্ত্রী মানবতার কল্যাণ কামনায় শেষ হলো বিশ্ব ইজতেমা আখেরি মোনাজাতে অংশ নিতে লাখো মুসল্লি তুরাগতীরে আমতলীতে কন্যা সন্তান হওয়ায় হত্যা,পাষন্ড বাবা গ্রেফতার পুরো পরীক্ষাই পেছাবে, নতুন সূচি আজ : শিক্ষামন্ত্রী ফাইভজির স্বপ্ন বাস্তবে পরিণত হবে শিগগির: অর্থমন্ত্রী ঢাকা সিটি ভোট পিছিয়ে ১ ফেব্রুয়ারি করার সিদ্ধান্ত ইসির এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা পিছিয়ে ৩ ফেব্রুয়ারি সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় সোমবার মান্নানের জানাজা এমপি আব্দুল মান্নানের মৃত্যুতে গভীর শোক রাষ্ট্রপতির পদ্মা সেতুর ২২তম স্প্যান বসছে এ মাসেই আব্দুল মান্নানের মৃত্যুতে ওবায়দুল কাদেরের শোক এমপি মান্নানের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক বয়ানে চলছে দ্বিতীয় দিনের ইজতেমা,কাল আখেরী মোনাজাত বিপিএলে প্রথম শিরোপার স্বাদ পেলো রাজশাহী আদালতে মজনুর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সাউন্ড সিস্টেমে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা যাবে ১ ফেব্রুয়ারি থেকে এসএসসি শুরু প্রথম আলোর সম্পাদকসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা
২৩৯

ভারতে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় ‘গাজা’, নিহত ৬

প্রকাশিত: ১৬ নভেম্বর ২০১৮  

গভীর বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘গাজা’ প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়ে ভারতের তামিলনাড়ুতে আঘাত হেনেছে। এখন পর্যন্ত এ ঘুর্ণিঝড়টির আঘাতে ভারতে নিহতের সংখ্যা ছয় জন বলে জানা গেছে।

আজ শুক্রবার ভোর রাতে এটি তামিলনাড়ুর নাগাপট্টিনাম ও ত্রিভারুর নামে দুটি জেলায় আঘাত হানে বলে জানিয়েছে বিভিন্ন ভারতীয় সংবাদমাধ্যম। এ সময় বাতাসের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১২০ কিলোমিটার।

ঘূর্ণিঝড়টি আঘাত হানার আগেই ৭৬ হাজার মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয় ভারত। এছাড়া স্থানীয় স্কুল-কলেজসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি ঘোষণা করা হয়। লোকজনকে ৩০০টি আশ্রয়কেন্দ্রে সরিয়ে নেয়া হয়। নাগাপাত্তিনাম, পুডুকোত্তাই, রামানাথাপুরাম ও তিরুভারুরসহ ছয় জেলার আশ্রয়কেন্দ্রে আশ্রয় নেন মানুষ।

ঘূর্ণিঝড় ‘গাজা’র আঘাতে তামিলনাড়ুতে ভূমিধসের ঘটনাও ঘটেছে বলে জানা গেছে।

আগামী ছয় ঘণ্টার মধ্যে ঘূর্ণিঝড়টি শক্তি হারিয়ে দুর্বল হয়ে পড়বে বলে জানা গেছে। এ ছাড়া ভারতের নাগাপাত্তিনাম, তিরুভারুর ও থানজাভুরে ভূমিধস এবং ভারী বৃষ্টিপাত হবে বলে সতর্ক করা হয়েছে।

এ ঘূর্ণিঝড়ের কারণে বাংলাদেশের সমুদ্রবন্দরগুলোকে ২ নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারী সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবহাওয়া অধিদফতর।

এটি গত মধ্যরাতে চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ৭৭০ কি. মি. দক্ষিণপশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ৭২০ কি. মি. দক্ষিণপশ্চিমে, মংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ৬৩০ কি. মি. দক্ষিণপশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ৬৪০ কি. মি. দক্ষিণপশ্চিমে অবস্থান করছিল।