সোমবার   ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৪ ১৪২৬   ১১ রবিউস সানি ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ সালমান-ক্যাটরিনার বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে সনু নিগমের গান এনডিসি গ্র্যাজুয়েটদের জ্ঞান উন্নয়নের কাজে লাগানোর আহ্বান ভিপি নুরকে কাজে লাগিয়ে চলছে বিএনপির অপরাজনীতি! চাঞ্চল্যকর মামলা নিবিড় তদারকির নির্দেশ আইজিপির বঙ্গবন্ধু বিপিএলের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী মাছ দিয়ে পদ পাওয়া যাচ্ছে সিংড়া বিএনপিতে, কমিটি নিয়ে অসন্তোষ চরমে! মাদক সেবনকালে নয়াপল্টন এলাকা থেকে ৭ বিএনপি কর্মী আটক! পরকীয়ায় ব্যস্ত খালেদার আইনজীবী, জামিনে মনোযোগ নেই! বরগুনায় তিন দিনব্যাপি কৃষি প্রযুক্তি মেলা শুরু নারীরা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে এগিয়ে যাবেন  নারীর স্বনির্ভরতা অর্জনে সকলকে একযোগে কাজ করতে রাষ্ট্রপতির আহবান সচিবালয়ের আশপাশে হর্ন বাজালেই জেল-জরিমানা পরস্পরের সালাম শুভেচ্ছা বিনিময়ের শ্রেষ্ঠ প্রথা মানবাধিকার দিবসে প্রকাশ্যে আসছেন এসিডদগ্ধ দীপিকা দেশের প্রথম আইটি বিজনেস ইনকিউবেটর নির্মাণকাজের উদ্বোধন   শুরু হলো বঙ্গবন্ধু বিপিএলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বিজয়ীদের চলচ্চিত্র পুরস্কার তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী বিপিএল উদ্বোধনীতে সালমান খান ও ক্যাটরিনা কাইফ মঞ্চ প্রস্তুত, অপেক্ষা কিছুক্ষণের
২০৫

ভারতে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় ‘গাজা’, নিহত ৬

প্রকাশিত: ১৬ নভেম্বর ২০১৮  

গভীর বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘গাজা’ প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়ে ভারতের তামিলনাড়ুতে আঘাত হেনেছে। এখন পর্যন্ত এ ঘুর্ণিঝড়টির আঘাতে ভারতে নিহতের সংখ্যা ছয় জন বলে জানা গেছে।

আজ শুক্রবার ভোর রাতে এটি তামিলনাড়ুর নাগাপট্টিনাম ও ত্রিভারুর নামে দুটি জেলায় আঘাত হানে বলে জানিয়েছে বিভিন্ন ভারতীয় সংবাদমাধ্যম। এ সময় বাতাসের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১২০ কিলোমিটার।

ঘূর্ণিঝড়টি আঘাত হানার আগেই ৭৬ হাজার মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয় ভারত। এছাড়া স্থানীয় স্কুল-কলেজসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি ঘোষণা করা হয়। লোকজনকে ৩০০টি আশ্রয়কেন্দ্রে সরিয়ে নেয়া হয়। নাগাপাত্তিনাম, পুডুকোত্তাই, রামানাথাপুরাম ও তিরুভারুরসহ ছয় জেলার আশ্রয়কেন্দ্রে আশ্রয় নেন মানুষ।

ঘূর্ণিঝড় ‘গাজা’র আঘাতে তামিলনাড়ুতে ভূমিধসের ঘটনাও ঘটেছে বলে জানা গেছে।

আগামী ছয় ঘণ্টার মধ্যে ঘূর্ণিঝড়টি শক্তি হারিয়ে দুর্বল হয়ে পড়বে বলে জানা গেছে। এ ছাড়া ভারতের নাগাপাত্তিনাম, তিরুভারুর ও থানজাভুরে ভূমিধস এবং ভারী বৃষ্টিপাত হবে বলে সতর্ক করা হয়েছে।

এ ঘূর্ণিঝড়ের কারণে বাংলাদেশের সমুদ্রবন্দরগুলোকে ২ নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারী সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবহাওয়া অধিদফতর।

এটি গত মধ্যরাতে চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ৭৭০ কি. মি. দক্ষিণপশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ৭২০ কি. মি. দক্ষিণপশ্চিমে, মংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ৬৩০ কি. মি. দক্ষিণপশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ৬৪০ কি. মি. দক্ষিণপশ্চিমে অবস্থান করছিল।