• বুধবার   ১৫ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ৩০ ১৪২৭

  • || ২৪ জ্বিলকদ ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত ৩১৬৩, মৃত্যু ৩৩ রিজেন্টের সাহেদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৩৯ মৃত্যু, শনাক্ত ৩০৯৯ চলতি মাসেই নিউজ পোর্টালের নিবন্ধন শুরু : তথ্যমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৪৭ মৃত্যু, শনাক্ত ২৬৬৬ করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৩০ মৃত্যু, শনাক্ত ২৬৮৬ লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশিকে হত্যার ঘটনায় চক্রের দুই সদস্য কারাগারে করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৪১ মৃত্যু, শনাক্ত ৩৩০৭ এইচএসসিতে ভর্তি কার্যক্রম শুরু শিগগিরই: শিক্ষামন্ত্রী করোনায় মৃত প্রবাসীর পরিবার পাবে ৩ লাখ টাকা করে: প্রধানমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৪৬ মৃত্যু, শনাক্ত ৩৪৮৯ করোনা শনাক্তে প্রতারণায় কঠোর অবস্থানে সরকার : ওবায়দুল কাদের করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৫৫ মৃত্যু, শনাক্ত ৩০২৭ চলে গেলেন বরেণ্য সংগীতশিল্পী এন্ড্রু কিশোর করোনায় আরও ৪৪ মৃত্যু, শনাক্ত ৩২০১ ভিসার মেয়াদ বাড়ালো সৌদি আরব: পররাষ্ট্রমন্ত্রী গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত ২৭৩৮, মৃত্যু ৫৫ কাউকেই ভূতুড়ে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করতে হবে না: বিদ্যুৎ সচিব আজ থেকে অধস্তন আদালতে আত্মসমর্পণ করা যাবে করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ২৯ মৃত্যু, শনাক্ত ৩২৮৮
১১৩

ভুলে ফেলে যাওয়া ক্যাপের সূত্র ধরেই খুনি ধরলো ডিবি

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ৩ জুন ২০২০  

ঝিনাইদহের হরিণাকুণ্ড উপজেলার দখলপুর গ্রামের বেলেমাঠে কৃষক নূর ইসলাম ওরফে বুড়োকে কুপিয়ে হত্যার রহস্য উদঘাটন করেছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। পান বরজে ভুলে ফেলে যাওয়া হত্যাকারীদের একজনের মাথার ক্যাপের সূত্র ধরে ক্লুলেস এই হত্যার মূল ঘটনা উদঘাটন করা হয়। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত তিন জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর মধ্যে দু’জন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। মঙ্গলবার (২ জুন) ঝিনাইদহ ডিবি পুলিশ সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেফতারকৃতরা হলো, বরিশখালী গ্রামের মতিচুর রহমান, জিনারুল ইসলাম, শামীম হোসেন। এদের মধ্যে মতিচুর জামিনে মুক্ত হয়ে পলাতক। জিনারুল ও শামীম আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

জানা গেছে, গত বছরের ৫ মে বিকালে দখলপুর গ্রামের বেলেমাঠ থেকে নূর ইসলামের ক্ষত-বিক্ষত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় ওই দিন নিহতের ভাই আজিজুল ইসলাম বাদী হয়ে হরিণাকুণ্ড থানায় অজ্ঞাতদের আসামি করে হত্যা মামলা করেন। মামলা দায়েরের পর হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও মূল ঘটনা জানতে তদন্তে নামে থানা পুলিশ। একজনকে গ্রেফতার করা হলেও মূল ঘটনা আড়ালেই থেকে যায়। পরে গত বছরের ২৯ ডিসেম্বর আদালত মামলা ডিবিতে হস্তান্তর করে। ঝিনাইদহ ডিবি পুলিশের ওসি আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে মামলার তদন্ত শুরু করেন পুলিশ পরিদর্শক নজরুল ইসলাম।

ঘটনার বিষয়ে পুলিশ সুপার হাসানুজ্জামান জানান, হত্যার ২-৩ দিন আগে কৃষক নূর ইসলাম তার পান বরজের জমির আইল কাটছিল। পাশের জমির মালিক মতিচুর রহমান জমির আইল কাটতে বাধা দেয়। এ নিয়ে দু’জনের বাক-বিতণ্ডা হয়। হত্যার দু’দিন আগে সন্ধ্যায় মতিচুর বরিশখালী বাজারের একটি চায়ের দোকানে আসামিদের নিয়ে নূরকে হত্যার পরিকল্পনা করে। পরিকল্পনা মোতাবেক ঘটনার দিন ৫ মে নূরের পান বরজে যায় হত্যাকারীরা। কিলিং মিশনে অংশ নেয় ৬ জন। প্রথমে নূরকে চড়-থাপ্পড় মারলে সে পড়ে যায়। সেখান থেকে দৌড়ে পাশের পান বরজে গেলে তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করে। এরপর আসামিরা যার যার মতো চলে যায়। তবে রক্তমাখা ক্যাপ পরে জিনারুল তার নিজের পান বরজে যায়। সেখানে তার ক্যাপটি ভুলে ফেলে রেখে যায়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আলামত হিসেবে সেটি উদ্ধার করে।

মামলার দায়িত্ব পাওয়ার পর পুলিশ পরিদর্শক নজরুল ইসলাম ক্যাপের মালিক খোঁজা শুরু করেন। স্থানীয় ও গ্রামবাসী ক্যাপটি জিনারুলের বলে জানায়। এরপর জিনারুলকে গ্রেফতারে অভিযান শুরু করে। হত্যার পর থেকে জিনারুল সাভার ও আশুলিয়া এলাকায় আত্মগোপনে ছিল। মোবাইল ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে তার অবস্থান শনাক্ত করা হয়। নির্মাণ শ্রমিক, হকার সেজে সেখানে অভিযান শুরু করে ডিবি। পরে ঢাকা থেকে জিনারুলকে ৩০ মে  গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় ডিবি। ঝিনাইদহে আনার পর পুলিশ সুপার হাসানুজ্জামান, ডিবি ওসি আনোয়ার হোসেন ও পুলিশ পরিদর্শক নজরুল ইসলামের জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে হত্যার কথা স্বীকার করে। ৩১ মে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয় সে। পরে তার স্বীকারোক্তি মোতাবেক ৩১ মে শামীম হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়। শামীম সোমবার (১ জুন) আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

পুলিশ সুপার বলেন, এখন পর্যন্ত তিন জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে। দ্রুতই তাদের গ্রেফতার করা হবে।

বরগুনার আলো
অপরাধ বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর