বৃহস্পতিবার   ১২ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৮ ১৪২৬   ১৪ রবিউস সানি ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
আজকের নবীন কর্মকর্তারাই হবেন ৪১ সালের সৈনিক : প্রধানমন্ত্রী ঘুষ-দুর্নীতির বিরুদ্ধে সজাগ থাকার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর বয়স্ক বাবা-মাকে না দেখলে জেল চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোতে যারা ফখরুল-রিজভীসহ ১৩৫ জনের বিরুদ্ধে দুই মামলা সবার জন্য উন্মুক্ত থাকছে ‘কনসার্ট ফর ডিজিটাল বাংলাদেশ’ এসক্যাপ অধিবেশনে যোগ দিতে শেখ হা‌সিনা‌কে আমন্ত্রণ রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠির ন্যায়বিচার-নিরাপত্তা দাবি অক্সফামের কৃষি আধুনিক হলেই মাথাপিছু আয় বাড়বে: কৃষিমন্ত্রী মাওলানা ভাসানীর জন্মবার্ষিকী আজ কাল নেতাকর্মীদের সতর্ক থাকতে বললেন ওবায়দুল কাদের ‘ফুড চেইনের মাধ্যমে প্লাস্টিক শরীরে প্রবেশ করছে’ বিশাল জয়ে শুরু কুমিল্লার বঙ্গবন্ধু বিপিএল মিশন টাইম ম্যাগাজিনের ‘পারসন অব দ্য ইয়ার’ গ্রেটা থানবার্গ বিদ্যুৎ খাতের উন্নয়নে ৩০ কোটি ডলার দেবে এডিবি ‘বিদেশগামীদের জন্য চালু হচ্ছে প্রবাসী কর্মী বিমা’ প্রেষণে বদলি রাষ্ট্রীয় ব্যাংকের ৯ জিএম জনতা ব্যাংকের অর্থ আত্মসাৎ: আসামিকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ মাদককে দেশ ছাড়া করবো: আইজিপি বিটিসিএলের সব স্কুলের প্রাথমিক শাখা হবে ডিজিটাল
৮৬

মহাকাশে দুই চাঁদের নাচানাচি!

প্রকাশিত: ১৬ নভেম্বর ২০১৯  

মহাকাশে নাচছে চাঁদ! তাও একটা নয়, দুই দুটি। এমনই অভূতপূর্ব ঘটনাটি ঘটেছে আমাদের সৌরমণ্ডলেই। সূর্য থেকে সবচেয়ে দূরবর্তী গ্রহ নেপচুনের আকাশে। নৃত্যরত চাঁদ দুটির একটির নাম 'নাইয়াদ', অন্যটি 'থালাসা'।

'ইকারাস' নামের আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান জার্নাল-এর ১৩ নভেম্বর সংখ্যায় প্রকাশিত এক প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে 'বরফের রাজ্য' নেপচুনে চাঁদের এমন নাচানাচির খবর দিয়েছে ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকা।

সৌরজগতের অষ্টম গ্রহ হিসেবে খ্যাত নেপচুনে এখন পর্যন্ত ১৪টি চাঁদ আবিষ্কৃত হয়েছে। যার মধ্যে ৭টির অবস্থান খুবই কাছাকাছি। এই ৭টির মধ্যে সবচেয়ে সন্নিকটে অবস্থান করছে নাইয়াদ আর থালাসার।
 
যারা নেপচুনকে একবার করে প্রদক্ষিণ করতে সময় নেয় যথাক্রমে ৭ ঘন্টা এবং সাড়ে ৭ ঘন্টা। নিজেদের কক্ষপথে নেপচুনকে প্রদক্ষিণের সময় নাইয়াদ আর থালাসার মধ্যে দূরত্ব থাকে গড়ে প্রায় এক হাজার ৮০০ কিলোমিটার।

গবেষণাপত্রে বিজ্ঞানীরা ধারণা করেন, নেপচুনের সবচেয়ে বড় চাঁদ 'ট্রাইটন'-এর জন্মের সময়েই ওই ছোট চাঁদ দুটির জন্ম হয়েছিল। তারা জানান, থালাসার উপরিতল থেকে দেখলে মনে হবে- নাইয়াদ তাকে উপর ও নিচ দিয়ে দিনে দু'বার করে ঘুর খাচ্ছে।

বিশেষজ্ঞরা জানান, এই দুটি চাঁদের মধ্যে দূরত্ব খুব কম হওয়ায় নিজেদের মধ্যে সংঘর্ষ এড়াতে তারা এভাবে ঘুরছে। নেপচুনের নিজস্ব অভিকর্ষ বলের প্রভাবেই এমনটা হচ্ছে বলেই মনে করছেন তারা।