শনিবার   ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৩ ১৪২৬   ০৯ রবিউস সানি ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
বঙ্গবন্ধুকে ‘ড. অব ল’ সম্মাননা দেবে ঢাবি ইংরেজির পাশাপাশি বাংলায়ও রায় লেখার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর সবাই যেন ন্যায়বিচার ও আইনের আশ্রয় পায়: প্রধানমন্ত্রী আজ আন্তর্জাতিক বেসামরিক বিমান চলাচল দিবস দেশে ফিরছেন মিয়ানমারের জলসীমায় আটক ১৭ জেলে আ`লীগের সংসদীয় ও স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের সভা সোমবার ফাইনাল নিশ্চিতের লড়াইয়ে টস হেরে ব্যাটিংয়ে সৌম্য-আফিফরা জাতীয় বিচার বিভাগীয় সম্মেলন আজ আওয়ামী লীগের খাদ্য উপ-কমিটির সভা আজ সভাপতির পদ ছাড়া যেকোনো পদে পরিবর্তন হতে পারে : কাদের ভারত-বাংলাদেশের সম্পর্ক চিরকালীন: রীভা গাঙ্গুলী সৌম্যের ফিফটিতে ভুটানকে উড়িয়ে দিল বাংলাদেশ বিএনপি বিশৃঙ্খলা করলে আওয়ামী লীগও প্রস্তুত: কাদের চাল নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ নেই : কৃষিমন্ত্রী দেশ বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণের পথে এগিয়ে চলছে: তথ্যমন্ত্রী বিএনপিপন্থিদের হট্টগোল কলঙ্কজনক-আদালত অবমাননা অন-অ্যারাইভাল ভিসাসহ বাংলাদেশ-ভারতের নৌপথে খুলছে অনেক জট ‘বিশ্বসুন্দরী’র রোমান্টিক গান নিয়ে হাজির সিয়াম-পরী মেয়েদের রৌপ্য, বাকী জিতেছেন ব্রোঞ্জ আইনজীবী তালিকাভুক্তি নিবন্ধন পরীক্ষা ২৮ ফেব্রুয়ারি
৩৭

মালিতে জঙ্গি হামলায় ২৪ সেনা নিহত

প্রকাশিত: ১৯ নভেম্বর ২০১৯  

পশ্চিম আফ্রিকার দেশ মালির পূর্বাঞ্চলের নাইজার সীমান্তবর্তী গাও অঞ্চলে অভিযান চালানোর সময় জঙ্গি হামলায় দেশটির ২৪ সেনা নিহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) দেশটির সেনাবাহিনীর বরাতে এ তথ্য জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম।

সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, সোমবার (১৮ নভেম্বর) গাও অঞ্চলে পার্শ্ববর্তী দেশ নাইজারের সঙ্গে যৌথভাবে জঙ্গিবিরোধী এক অভিযান চালায় মালি সেনাবাহিনী। এসময় জঙ্গিদের হামলায় দেশটির ২৪ সেনা নিহত হয়। এছাড়া আহত হয়েছেন আরও ২৯ সেনা।

এদিকে জঙ্গিবিরোধী অভিযানে ১৭ জঙ্গিকে হত্যা করা হয়েছে এবং ১০০ সন্দেহভাজন জঙ্গিকে আটক করে নাইজারের সীমান্তবর্তী টিলোয়া শহরে রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছে মালি সেনাবাহিনী।

এর আগে ২ নভেম্বর মালির উত্তরাঞ্চলের মেনাকা রাজ্যে সন্ত্রাসী হামলায় ৫৪ সেনা নিহত হয়েছিলেন। এক দশকের মধ্যে এটি ছিল অন্যতম ভয়াবহ হামলা।

মালিতে প্রায়ই এ ধরনের জঙ্গি হামলা হয়। ২০১২ সালে দেশটির উত্তরাঞ্চলে বসবাসরত তুয়ারেগ বিদ্রোহীদের সমর্থনে ওই এলাকার নিয়ন্ত্রণ নেয় জঙ্গিরা। মূলত এরপর থেকেই গোটা দেশটিতে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে।

পরবর্তীকালে ফ্রান্সের সহায়তায় মালির সেনাবাহিনী জঙ্গিদের কাছ থেকে হারানো শহরগুলো উদ্ধার করে নেয়। তবে এরপরও জঙ্গিদের হামলার পরিমাণ কমেনি।

জঙ্গি হামলার পাশাপাশি দেশটিতে জাতিগত সহিংসতাও ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পড়েছে।

জাতিসংঘের মতে, জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত মালি ও বুরকিনা ফাসোতে সহিংসতায় প্রায় দেড় হাজার বেসামরিক নাগরিক প্রাণ হারিয়েছেন। 

মালির চলমান পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বর্তমানে সেখানে শান্তিরক্ষী বাহিনীর ১৫ হাজার সদস্য নিয়োজিত রয়েছেন।

মালি, মৌরিতানিয়া, শাদ, নিগার, বুরকিনা ফাসো- এ পাঁচটি দেশ মিলে সন্ত্রাসবাদ ও জঙ্গিহামলা প্রতিরোধে জি-৫ গঠন করলেও দেশগুলোতে সন্ত্রাসী হামলা ও সহিংসতা বেড়েই চলেছে।

এই বিভাগের আরো খবর