শুক্রবার   ০৩ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ১৯ ১৪২৬   ০৯ শা'বান ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
প্রতি উপজেলা থেকে নমুনা সংগ্রহ করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে সমালোচনা করছে বিএনপি : কাদের দেশে আক্রান্তদের মধ্যে এ পর্যন্ত ২৬ জন সুস্থ : স্বাস্থ্যমন্ত্রী সেনাবাহিনী কতদিন মাঠে থাকবে সরকার বিবেচনা করবে: সেনাপ্রধান করোনায় খাদ্য ঘাটতি হবে না : কৃষিমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে বক্তব্য রাখ‌ছেন প্রধানমন্ত্রী আজ সকালে ৬৪ জেলার কর্মকর্তাদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর কনফারেন্স পিপিই যেন নষ্ট না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনা মোকাবিলায় সরকার জনগণের পাশে আছে -প্রধানমন্ত্রী ছুটিতে কর্মস্থল ছাড়া যাবে না : সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন করোনা সংকটকালে জনগণের পাশে থাকবে আ.লীগ: কাদের আমি করোনায় আক্রান্ত হইনি : স্বাস্থ্যমন্ত্রী বাংলাদেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত নেই : আইইডিসিআর পদ্মা সেতু‌তে বসলো ২৭তম স্প্যান, দৃশ্যমান হলো ৪ হাজার ৫০ মিটার সব পোশাক কারখানা বন্ধের নির্দেশ পবিত্র শবে বরাত ৯ এপ্রিল অতি প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে যাবেন না : প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী মুক্তি পেলেন খালেদা জিয়া সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী

মুক্তি পাচ্ছেন খালেদা জিয়া, কিংকর্তব্যবিমূঢ় তারেক!

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ২৫ মার্চ ২০২০  

 সরকারের মহানুভবতায় শর্ত সাপেক্ষে মুক্তি পেতে যাচ্ছেন প্রমাণিত দুর্নীতি মামলায় কারান্তরীণ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। তার মুক্তিতে বোন সেলিমা ইসলাম সরকারকে ধন্যবাদ জানালেও প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেননি লন্ডনে পলাতক বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও খালেদাপুত্র তারেক রহমান। উপরন্তু তিনি পড়েছেন মহাচিন্তায়। কারণ খালেদা মুক্তি মানেই, তার সাম্রাজ্যের পতন।

একটি গোপন সূত্রে জানা গেছে, খালেদা জিয়া মুক্তি পাচ্ছেন শুনে পরিবারের সবাই খুশিতে লাফিয়ে উঠলেও মুখে হাত দিয়ে বসেছেন লন্ডনে পলাতক বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। কারণ, খালেদা জিয়ার মুক্তি হলেই দলীয় কর্তৃত্ব চলে যাবে তার দখলে। নেতাকর্মীরা তার বদলে ঝুঁকবেন খালেদার দিকে। এমনকি বহির্বিশ্বের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা, ফান্ডিং সবকিছুতেই থাকবে তার আধিপত্য। ক্রমান্বয়ে সংকুচিত হতে থাকবে ক্ষমতা, এক সময় হয়ে যাবে নিঃশেষ। এতে তারেকপুষ্টরা পদ হারিয়ে তার সান্নিধ্য ত্যাগ করে ঘনিষ্ঠ হবেন খালেদার। বন্ধ হয়ে যাবে পদ-মনোনয়ন বাণিজ্য। এসব নিয়েই দুশ্চিন্তায় পড়েছেন তারেক রহমান। এজন্য এখনো অবধি তিনি কোন প্রতিক্রিয়া জানাননি। এমনকি তার কাছে প্রতিক্রিয়া জানতে একাধিকবার দলের পক্ষ থেকে স্কাইপিতে কল দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।

বিষয়টিকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন খালেদাপন্থীরা। তারা বলছেন, তারেক রহমান তার প্রতিক্রিয়া জানালেই বা কী, আর না জানালেই বা কী! তিনি এতোদিন তার মায়ের মুক্তির ব্যাপারে খুব বড় ধরণের কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেননি। কারণ তিনি খুব ভালোভাবেই জানেন যে, খালেদার মুক্তি মানেই তার মাতব্বরি শেষ। একারণেই এখন তিনি এমন আচরণ করছেন।

এ বিষয়ে রাজনৈতিক বিশ্লেষক বিভুরঞ্জন সরকার বলেন, তারেক রহমান কেন তার মায়ের মুক্তি চান না, এটা সকলেরই জানা। এমনকি খালেদা জিয়া নিজেও তা জানেন। আর জানেন বলেই তিনি আইনজীবীর মাধ্যমে সরকারের দ্বারস্থ হয়েছিলেন। সরকার পরিস্থিতি ও শারীরিক অবস্থা মানবিক বিবেচনায় নিয়ে শর্তসাপেক্ষে তার মুক্তির সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আর এতেই মুখ কালো হয়ে গেছে খালেদাপুত্রের। কারণ তিনি জেনে গেছেন, মায়ের মুক্তির মাধ্যমেই তার বিদায় ঘণ্টা বেজে গেলো।

বরগুনার আলো
এই বিভাগের আরো খবর