রোববার   ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০   ফাল্গুন ১১ ১৪২৬   ২৮ জমাদিউস সানি ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
পতাকার মর্যাদা ধরে রাখতে সেনা সদস্যদের প্রতি রাষ্ট্রপতির আহ্বান জুয়ার আসর থেকে আটক ২৬ দুই ইউনিভার্সিটিকে ১০ লাখ টাকা করে জরিমানা দৃশ্যমান পদ্মা সেতুর পৌনে চার কিলোমিটার সারা দেশে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত ইংরেজি উচ্চারণে বাংলা বলার সমালোচনা প্রধানমন্ত্রীর উন্নত দেশ গড়তে বেসরকারি সহযোগিতা প্রয়োজন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী মুজিববর্ষে বিএনপিকেও আমন্ত্রণ জানানো হবে: কাদের ভণ্ডপীরসহ ৯ জনের কারাদণ্ড প্রধানমন্ত্রী সব সময় শিক্ষাকে গুরুত্ব দেন: পরিকল্পনামন্ত্রী মুজিব বর্ষে নতুন শিল্প কারখানা স্থাপন করা হবে: শিল্প প্রতিমন্ত্রী আসন্ন সেচ মৌসুমে লোডশেডিংয়ের শঙ্কা নেই : বিদ্যুৎ বিভাগ একুশে পদক হাতে তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস শুক্রবার একুশে পদক মেধা ও মনন চর্চার ক্ষেত্র সম্প্রসারিত করবে : রাষ্ট্রপতি আজ একুশে পদক প্রদান করবেন প্রধানমন্ত্রী এনামুল বাছিরের পদোন্নতির আবেদন হাইকোর্টে খারিজ ডাকঘর সঞ্চয়ের সুদহার পুনর্বিবেচনা করা হবে : অর্থমন্ত্রী মুঠোফোন প্রতারক জিনের বাদশা গ্রেফতার করোনাভাইরাস নিয়ে গুজবে কান দিবেন না : স্বাস্থ্যমন্ত্রী
১০

মুজিববর্ষের অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা মোদী, আসবেন একদিন আগে

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ২৯ জানুয়ারি ২০২০  

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্তারা জানিয়েছেন, সবকিছু ঠিক থাকলে অনুষ্ঠানের একদিন আগেই ঢাকায় পৌঁছে যাবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকীতে প্রধান বক্তা হবেন তিনি। আগামী ১৭ মার্চ ঢাকায় শুরু হবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শততম জন্মবার্ষিকীর বর্ষব্যাপী উদযাপন।  এই উপলক্ষে সেদিন এক বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।  আর সেখানেই প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর।  এই আমন্ত্রণের মাধ্যমে আরও স্পষ্ট হয়ে গেল ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে কোনও চিড় ধরেনি।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, একদিকে যখন সিটিজেনশিপ অ্যামেন্ডমেন্ট অ্যাক্ট এবং এনআরসি নিয়ে দুই দেশের মধ্যে চলছে চাপা উত্তেজনা, সেই সময়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বাংলাদেশ যাওয়া নিঃসন্দেহে তাত্‍পর্যপূর্ণ।  শেখ হাসিনার শাসনকালে অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে রয়েছে দেশের পূর্ব সীমান্তে সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ।  কড়া নজরে রয়েছে কট্টরপন্থী সংগঠন জামাত-উল-মুজাহিদীন বাংলাদেশও।  বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক তৈরি হয়েছে ভারতের বিএসএফ কর্মী এবং বাংলাদেশ রাইফেলস-এর সেনাদের মধ্যেও।

বরগুনার আলো
এই বিভাগের আরো খবর