শনিবার   ২৩ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৮ ১৪২৬   ২৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
সরকার আলেমদের সঙ্গে নিয়ে দেশের উন্নয়ন করতে চায়: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী নরসিংদীর এমপি বুবলীকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার চালের বাজার অস্থিতিশীল করলে কাউকে ছাড় নয়: খাদ্যমন্ত্রী ভারত মুক্তিযুদ্ধের সময় পাশে ছিল তা ভুলিনি: প্রধানমন্ত্রী চিকিৎসকদের নৈতিক শিক্ষা খুবই প্রয়োজন: পরিকল্পনামন্ত্রী সামাজিক মাধ্যমে গুজব বন্ধে বিধিমালা হচ্ছে- তথ্যমন্ত্রী শুক্রবারের মধ্যে যান চলাচল স্বাভাবিক হবে: কাদের ঘণ্টা বাজিয়ে খেলার উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সশস্ত্র বাহিনীকে গড়ে তোলা হবে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে সশস্ত্র বাহিনীকে কাজ করার আহ্বান সড়ক পরিবহন আইনের অসঙ্গতি দূর করা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ‘বিএনপি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব সৃষ্টি করছে’- কাদের অনার্স ২য় বর্ষের ২৫ নভেম্বরের পরীক্ষা স্থগিত কোন অপপ্রচারে কান না দিতে জনগণের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান ‘গোলাপি’ যাত্রা রাঙ্গাতে কাল মাঠে নামছে বাংলাদেশ সারাবিশ্বে বাংলাদেশ এখন সম্মানের দেশ: প্রধানমন্ত্রী সশস্ত্র বাহিনী দিবসের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী আজ সন্ধ্যায় আ. লীগের অভ্যর্থনা উপকমিটির সভা ইউনেস্কোর সাধারণ অধিবেশনে অংশ নিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী শিখা অনির্বাণে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
৪০

`মৃত` বলে ফিরিয়ে দিল হাসপাতাল, বাড়ি ফিরতেই বেঁচে উঠলেন বৃদ্ধা!

প্রকাশিত: ৬ নভেম্বর ২০১৯  

হাসপাতাল থেকে  ৭৮ বছর বয়সী এক বৃদ্ধাকে 'মৃত' বলে ফিরিয়ে দিয়েছিল। কিন্তু বাড়ি ফিরতেই বেঁচে উঠেছেন তিনি। এমনটাই দাবি করেছে তার পরিবার। সম্প্রতি এ ঘটনা ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে। 

ওই নারীর নাম আনন্দময়ী দাস। হাসপাতাল থেকে  বাড়িতে আনার পর দেখা গেছে রীতিমতো শ্বাস চলছে ওই বৃদ্ধার। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে বীরভূমের বোলপুরে। ফের বোলপুর মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় ওই বৃদ্ধাকে। পরে সেখানেই তাঁর মৃত্যু হয়। এরপরই গাফিলতির অভিযোগে ব্যাপক উত্তেজনার সৃষ্টি হয় হাসপাতাল চত্বরে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে পুলিশ। বেশ খানিকক্ষণ পর নিয়ন্ত্রণে আসে পরিস্থিতি।

জানা গেছে, বোলপুরের ২ নম্বর ওয়ার্ডের কুমোরপুকুর পাড়ার বাসিন্দা আনন্দময়ী দাস। বার্ধক্যজনিত কারণে তাঁকে বোলপুর মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। 

পরিবারের অভিযোগ, হাসপাতালের চিকিৎসক পঙ্কজ বিশ্বাস বৃদ্ধাকে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর মৃত বলে জানিয়ে দেন। বৃদ্ধাকে আর হাসপাতালে ভর্তি নেওয়া হয়নি। দেহ নিয়ে বাড়ি ফিরে যান স্বজনরা।

মৃত নারীর ছেলে নিতাই দাস বলেন, বাড়ি ফিরে দেখা যায় মায়ের শ্বাস চলছে। 

বাড়িতে আনার পর আনন্দময়ী দাস পানিও পান করেছেন বলে দাবি করেছেন পরিবারের লোকেরা। এরপরই তড়িঘড়ি ফের তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে সেখানে বৃদ্ধার মৃত্যু হয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগে হাসপাতাল চত্বরে বিক্ষোভ করেন পরিবারের লোকজন। 

তাঁদের অভিযোগ, প্রথমবার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর সঠিক চিকিৎসা হয়নি। কোনও চিকিৎসা না করিয়েই ফিরিয়ে দেওয়া হয় তাঁদের। সে সময় সঠিক চিকিৎসা হলে আনন্দময়ী দাস প্রাণে বেঁচে যেতেন।

এদিকে, বিক্ষোভের খবর পেয়েই  ঘটনাস্থলে আসে বোলপুর থানার পুলিশ। অভিযুক্ত চিকিৎসক পঙ্কজ বিশ্বাস সমস্ত অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন। তিনি দাবি করেছেন, নার্ভ পাচ্ছিলাম না, আমার সিনিয়ররাও নার্ভ পাচ্ছিলেন না। তাই তাদের জানিয়ে দিই। তারা দেহ নিয়ে চলে যায়। এবার এসে বলছে বাড়িতে পানি খেয়েছে। এখন দেখলাম রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

এই বিভাগের আরো খবর