বুধবার   ২৩ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৭ ১৪২৬   ২৩ সফর ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
একজন মায়ের গল্প ইমিগ্রেশন: চোখের আইরিশের তথ্য দেবে ইসি তরুণদের দেখে আমি গর্বিত: সজীব ওয়াজেদ তিন হাজার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির ঘোষণা বুধবার বাংলাদেশকে উন্নয়নের মডেল করেছে স্থিতিশীল সরকার- আইন মন্ত্রী সেতু বিভাগ, পাট ও পিএসসিতে নতুন সচিব ঘুষের টাকাসহ দুদকের হাতে রাজস্ব কর্মকর্তা আটক আবারও ১৪ ভারতীয় জেলে আটক সাতটি অভ্যাস মানুষের ধ্বংস ডেকে আনে দেশজুড়ে তরুণদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে: সজীব ওয়াজেদ চিফ হুইপের সঙ্গে ত্রিপুরা কংগ্রেসের চিফ হুইপের সাক্ষাৎ বাড়তি সুযোগের আশায় ভাসানচর যেতে রাজি রোহিঙ্গারা সরকার গঠনে ব্যর্থ হয়ে শেষমেশ পথ ছাড়লেন নেতানিয়াহু একনেকে ৫ প্রকল্পের অনুমোদন, ব্যয় হবে ৪৬৩৬ কোটি কানাডায় আবারও জয়ী জাস্টিন ট্রুডো নকশা না মেনে গাড়ি নামালে কঠোর ব্যবস্থা: প্রধানমন্ত্রী গতিশীল নেতৃত্বের জন্য প্রধানমন্ত্রী এখন বিশ্ব নেতা- কাদের বছরের প্রতিটি দিনই সড়ক নিরাপদ রাখতে হবে: পলক অস্ত্র মামলায় কারাগারে পাগলা মিজান দৃশ্যমান হলো পদ্মাসেতুর ২২৫০ মিটার
৪৯

রিফাত হত্যা : ৬ কিশোর আসামির জামিন নামঞ্জুর

প্রকাশিত: ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

 

বরগুনার বহুল আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলার চার্জশিটভুক্ত ৬ কিশোর আসামির জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেছেন আদালত। শুনানি শেষে রোববার দুপুরে বরগুনার শিশু আদালতের বিচারক মো. হাফিজুর রহমান অভিযুক্ত তাদের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেন।

তারা হলো- চার্জশিটভুক্ত ১ নম্বর আসামি রাশিদুল হাসান রিশান ফরাজী, ৪ নম্বর আসামি মো. অলিউল্লাহ অলি, ৫ নম্বর আসামি জয় চন্দ্র সরকার চন্দন, ৭ নম্বর আসামি মো. তানভীর হোসেন, ৮ নম্বর অভিযুক্ত মো. নাজমুল হাসান এবং ১৩ নম্বর আসামি রাতুল সিকদার জয়।

জামিন নামঞ্জুর হওয়া এসব আসামির সবাই যশোর শিশু কিশোর সংশোধনাগারে রয়েছে।

এ বিষয়ে আসামি পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট নার্গিস পারভীন সুরমা বলেন, আদালতের নির্দেশে শিশু কিশোর সংশোধনাগারে থাকা এ মামলার চার্জশিটভুক্ত ৬ অপ্রাপ্তবয়স্ক আসামির আইনজীবীরা জামিনের আবেদন করেছিলেন বরগুনার শিশু আদালতে। পরে শুনানি শেষে আদালত সবার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেন।
উল্লেখ্য, গত ২৬ জুন সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে প্রকাশ্যে রামদা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করা হয় রিফাত শরীফকে। স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি হামলাকারীদের সঙ্গে লড়াই করেও সন্ত্রাসীদের ঠেকাতে পারেননি। গুরুতর অবস্থায় রিফাতকে ওইদিন বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে বিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রিফাত শরিফের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনের নাম উল্লেখ ও পাঁচ-ছয়জনকে অজ্ঞাত করে বরগুনা থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলায় রিফাতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে প্রথমে সাক্ষী করা হলেও পুলিশি তদন্তে এ হত্যাকাণ্ডে তার সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ পাওয়ায় পরবর্তিতে তাকেও আসামি করা হয়।

এ মামলার তদন্ত শেষে তদন্তকারী কর্মকর্তা বরগুনা সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্তকর্তা (ওসি-তদন্ত) মো. হামায়ুন কবির চার্জশিটে উল্লেখ করেন, মামলার এজহার ও তদন্তে যাওয়া অভিযুক্তদের বয়সের বিবেচনায় দুভাগে ভাগ করে চার্জশিটটি দাখিল করা হয়েছে। এর মধ্যে প্রাপ্তবয়স্ক অভিযুক্তদের নিয়ে গঠিত চার্জশিতে মোট অভিযুক্তের সংখ্যা ১০ জন আর অপ্রাপ্তবয়স্ক অভিযুক্তদের নিয়ে গঠিত চার্জশিটে মোট অভিযুক্তের সংখ্যা ১৪ জন।

এই বিভাগের আরো খবর