বৃহস্পতিবার   ২১ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৭ ১৪২৬   ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সশস্ত্র বাহিনীকে গড়ে তোলা হবে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে সশস্ত্র বাহিনীকে কাজ করার আহ্বান সড়ক পরিবহন আইনের অসঙ্গতি দূর করা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ‘বিএনপি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব সৃষ্টি করছে’- কাদের অনার্স ২য় বর্ষের ২৫ নভেম্বরের পরীক্ষা স্থগিত কোন অপপ্রচারে কান না দিতে জনগণের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান ‘গোলাপি’ যাত্রা রাঙ্গাতে কাল মাঠে নামছে বাংলাদেশ সারাবিশ্বে বাংলাদেশ এখন সম্মানের দেশ: প্রধানমন্ত্রী সশস্ত্র বাহিনী দিবসের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী আজ সন্ধ্যায় আ. লীগের অভ্যর্থনা উপকমিটির সভা ইউনেস্কোর সাধারণ অধিবেশনে অংশ নিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী শিখা অনির্বাণে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা দুদকের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ সশস্ত্র বাহিনী নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করবেন- প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে আইভোরি কোস্টের রাষ্ট্রদূতের বিদায়ী সাক্ষাৎ সশস্ত্র বাহিনী জাতির গর্বের প্রতীক : রাষ্ট্রপতি আজ বিশ্ব টেলিভিশন দিবস সারাদেশের পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহার ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন লিখতে হবে স্পষ্ট অক্ষরে: হাইকোর্ট আজ সশস্ত্র বাহিনী দিবস
১৩৭৫

রোহিঙ্গা ডাকাত আস্তানার সন্ধান পেয়েছে র‌্যাব

প্রকাশিত: ৭ নভেম্বর ২০১৯  

বেপরোয়া হয়ে উঠা রোহিঙ্গা ডাকাত দলের খোঁজে পাহাড়গুলোতে এবার হেলিকপ্টার দিয়ে অভিযান শুরু করেছে র‌্যাব। বুধবার (৬ নভেম্বর) দুর্গম পাহাড়ে হেলিকপ্টার দিয়ে অভিযান চালিয়ে বেশ কয়েকটি আস্তানার সন্ধানও পেয়েছে তারা।

এদিকে, স্থানীয়দের দাবি, দুর্ধর্ষ রোহিঙ্গা হাকিম ডাকাতসহ ১৫টির বেশি বাহিনী ইয়াবা ব্যবসা, অপহরণের পর মুক্তিপণ আদায়, হত্যা এবং প্রত্যাবাসন বিরোধী কর্মকাণ্ডে জড়িত।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের পাশে বিশাল পাহাড়। দুর্গম এসব পাহাড়ে আস্তানা বানিয়েছে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর পৃষ্ঠপোষকতায় বেপরোয়া হয়ে উঠা রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের ১৫টির বেশি বাহিনী। খুন, অপহরণ, চাঁদাবাজি, ডাকাতিসহ এমন কোনো অপরাধ নেই যা করে না এসব বাহিনী। পরে নিরাপদে ঢুকে পড়ে এসব দুর্গম পাহাড়ে।

এবার এসব বাহিনীকে দমনে অভিযান শুরু করেছে র‌্যাব। পাহাড়গুলোতে ড্রোন অভিযান পরিচালনার পর হেলিকপ্টার দিয়ে অভিযান শুরু করেছে র‌্যাব। এ অভিযানে এসব বাহিনীর বেশ কয়েকটি আস্তানারও সন্ধান মিলেছে বলে দাবি করেন কক্সবাজার র‌্যাব-১৫ রামু ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক উইং কমান্ডার আজিম আহমেদ।

নির্যাতন সহ্য করেও রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী বাহিনীগুলোর ভয়ে মুখ খোলেন না কক্সবাজারের ক্যাম্পে থাকা রোহিঙ্গারা। আর স্থানীয়দের দাবি, এসব রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী বাহিনীর কারণে তারাও আতংকে রয়েছেন।

এ বিষয়ে বিশেষজ্ঞ তোফায়েল আহমেদ জানান, এদের নেপথ্যে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর পৃষ্ঠপোষকতা রয়েছে। তাই দ্রুত এসব বাহিনীকে নিয়ন্ত্রণে আনা প্রয়োজন।

এর আগে গত ২৫ অক্টোবর প্রথমবারের মতো র‌্যাব হেড কোয়ার্টার থেকে ড্রোন এনে উড়িয়ে রোহিঙ্গা ডাকাতদের আস্তানায় অভিযান চালায় র‌্যাব। তবে সে সময় কাউকে ধরতে পারেননি তারা।

এই বিভাগের আরো খবর