রোববার   ২৯ মার্চ ২০২০   চৈত্র ১৪ ১৪২৬   ০৪ শা'বান ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
বাংলাদেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত নেই : আইইডিসিআর পদ্মা সেতু‌তে বসলো ২৭তম স্প্যান, দৃশ্যমান হলো ৪ হাজার ৫০ মিটার সব পোশাক কারখানা বন্ধের নির্দেশ পবিত্র শবে বরাত ৯ এপ্রিল অতি প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে যাবেন না : প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী মুক্তি পেলেন খালেদা জিয়া সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে আজ ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী নিষেধাজ্ঞা অক্ষরে অক্ষরে পালন করুন : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরগুনায় সকল প্রকার যানবাহন চলাচল বন্ধ রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশেই খালেদা জিয়াকে মুক্তির সিদ্ধান্ত করোনা ছোঁয়াচে, এক মিটার দূরত্বে থাকার পরামর্শ ২৬ মার্চ থেকে সারাদেশে ১০ দিন গণপরিবহন বন্ধ মাঠে নেমেছে সেনাবাহিনী সকল বেসরকারি প্রতিষ্ঠানও বন্ধের নির্দেশ সরকারি অফিস-আদালত বন্ধ ঘোষণা করোনায় আরেকজনের মৃত্যু, আক্রান্ত বেড়ে ৩৩ ২৫ মার্চ জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী সতর্কীকরণে বাংলাদেশ সুনাম অর্জন করেছে: প্রধানমন্ত্রী
১৯

রোহিঙ্গা সংকট: জার্মানীর প্রতি অর্থবহ পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান 

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন রাখাইন থেকে বাস্তুচ্যূত রোহিঙ্গারা যেন তাদের জন্মভূমিতে নিরাপদে, সম্মানের সাথে ও টেকসই পরিবেশে ফিরে যেতে পারে, সে জন্য সেখানে একটি উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টিতে মিয়ানমারকে বাধ্য করার লক্ষ্যে অর্থবহ পদক্ষেপ গ্রহণে জার্মানীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।
জার্মানীর সফররত অর্থনৈতিক সহযোগিতা ও উন্নয়নমন্ত্রী ড. গ্রেড মুলারের সাথে মঙ্গলবার রাতে পার্লামেন্টে এক বৈঠকে মোমেন এ আহ্বান জানান।
এ সময় জার্মান মন্ত্রী রোহিঙ্গা সংকটের একটি টেকসই সমাধান এবং মিয়ানমারকে সম্প্রতি ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিস (আইসিজে)’র নির্দেশ সম্পূর্ণভাবে মেনে চলতে বাধ্য করার জন্য তার দেশ দৃঢ় প্রতিজ্ঞ বলে মন্তব্য করেন।
বর্তমানে বাংলাদেশ ১১ লাখ রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিচ্ছে। এদের মিয়ানমার সরকার জোরপূর্বক ভিটেমাটি থেকে উচ্ছেদ করেছে। এ দেশে আশ্রিতদের অধিকাংশই মিয়ানমারের ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট মিয়ানমার সেনা সদস্যদের নির্মম দমনপীড়ন শুরু হওয়ার পর সেখান থেকে প্রাণ রক্ষার্থে পালিয়ে এসেছে। বর্বরোচিত এই ঘটনাকে জাতিসংঘ ‘জাতিগত নির্মূলের প্রকৃষ্ট উদাহরণ’ এবং মানবাধিকার সংস্থাগুলো ‘গণহত্যা’ হিসেবে উল্লেখ করেছে।
বৈঠককালে, মোমেন বাংলাদেশের অসামান্য আর্থ সামাজিক উন্নয়ন বিশেষত এ দেশকে বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলায় রূপান্তরিত করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রূপকল্প ২০২১ ও রূপকল্প ২০৪১ এর সাথে সঙ্গতি রেখে বিগত এক দশকের অভূতপূর্ব উন্নয়নের কথা তুলে ধরেন।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী ২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে বছরব্যাপী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী উদ্যাপন সম্পর্কে অবগত করেন এবং এই উৎসবে অংশ গ্রহণের জন্য জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মের্কেলকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে আমন্ত্রণ জানান।
মোমেন জার্মান বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশে বিশেষত বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল ও হাই-টেক পার্কে বিনিয়োগের আহ্বান জানান। তিনি আকর্ষণীয় ইনসেন্টিভ প্যাকেজ এবং সহজলভ্য দক্ষ জনশক্তি ও আইটি পেশাজীবীদের সুবিধা গ্রহণের পাশাপাশি ক্রমবর্ধমান মধ্যম আয়ের ভোক্তাদের কথা মাথায় রেখে জার্মান বিনিয়োগকারীদের এদেশে বিনিয়োগের জন্য আমন্ত্রণ জানান।
তিনি বাংলাদেশে বিএমডব্লিউ এর মতো জার্মান বৃহৎ মোটরযান নির্মাতা কোম্পানিগুলোর অ্যাসামব্লিং কারখানা স্থাপনের পরামর্শ দেন।
কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন শেষে আজ জার্মান মন্ত্রী এবং তার প্রতিনিধিদলের ভারত যাবার কথা রয়েছে।

বরগুনার আলো
এই বিভাগের আরো খবর