• সোমবার   ১৮ জানুয়ারি ২০২১ ||

  • মাঘ ৫ ১৪২৭

  • || ০৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
২৬ জানুয়ারির মধ্যে সেরামের টিকা আসবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় চলচ্চিত্র নির্মাণের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর পরিবার নিয়ে দেখা যায় এমন সিনেমা তৈরি করুন: প্রধানমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২১, শনাক্ত ৫৭৮ ২২ সালের মধ্যে ঢাকা-কক্সবাজার রেল চালু হবে: রেলমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও ১৬ জনের মৃত্যু ৬২ সহযোগীর মাধ্যমে অর্থপাচার, পিকে হালদারের হাজার কোটি টাকা ফ্রিজ কোনো প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ানো হবে না : উশৈসিং বাংলাদেশে বিশ্বের সেরা মানের পাট উৎপাদিত হয়: পাটমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ১৪ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৮৯০ পিকে হালদারের বান্ধবী গ্রেফতার করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ১৬, শনাক্ত ৭১৮ আওয়ামী লীগ সরকারে আছে বলেই দেশ স্বনির্ভর হয়ে উঠছে: প্রধানমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২২, শনাক্ত ৮৪৯ ভাসানচর নিয়ে আন্তর্জাতিক এজেন্সির সাপোর্ট পাচ্ছি: মোমেন এইচএসসির ফল ২৮ জানুয়ারির মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর জা রওশন আরা ওয়াহেদ আর নেই সংগঠন গড়ার জন্য বঙ্গবন্ধু মন্ত্রিত্ব ছেড়ে দিয়েছিলেন: শেখ হাসিনা প্রতারণার মামলায় রিজেন্ট সাহেদের জামিন নামঞ্জুর আমাদের দলে মুক্তভাবে কথা বলার অধিকার সবার আছে- তথ্যমন্ত্রী

শিশুকে গণধর্ষণের পর হত্যা করে ওয়াজ মাহফিলে যোগ দেয় ওরা!

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ২৬ ডিসেম্বর ২০২০  

বগুড়ার ধুনটে আট বছরের শিশু তাবাসসুমকে ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। ঘটনা ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে ওয়াজ মাহফিলের ভলান্টিয়ারের দায়িত্বও পালন করেছে হত্যাকারীরা। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা অপরাধের কথা পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে। 

পূর্ব শত্রুতার জের ধরেই পরিকল্পিতভাবে এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে বগুড়া পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভুঞা প্রেস ব্রিফিং-এ বিষয়টি জানান। গ্রেফতারকৃতরা হলো বগুড়ার ধুনট উপজেলার নশরতপুর গ্রামের তোজাম্মেল হকের পুত্র কলেজ ছাত্র বাপ্পি আহম্মেদ (২২), দলিল উদ্দিন তালুকদারের পুত্র মুদি দোকানদার কামাল পাশা (৩৫), সানোয়ার হোসেন এর পুত্র রাজমিস্ত্রি শামীম রেজা (২২), মৃত সাহেব আলীর পুত্র রং মিস্ত্রি লাবলু শেখ (২১)।

শনিবার বেলা ১১ টায় পুলিশ সুপারের সভাকক্ষে ব্রিফিংকালে পুলিশ সুপার জানান, গ্রেফতারকৃত বাপ্পি পরিবারের সাথে শিশু তাবাসসুমের বাবার পরিবারের দ্বন্দ্ব ছিল। ঘটনার ৩ মাস পূর্বে বাপ্পি শিশু তাবাসসুমকে হত্যা করে প্রতিশোধ নেয়ার পরিকল্পনা করে। ঘটনার দিন ১৪ নভেম্বর বাপ্পিসহ গ্রেফতারকৃতরা তাবাসসুমকে ধর্ষণ করে হত্যার পরিকল্পনা করে। ঐদিন তাবাসসুম (৮) দাদা-দাদি ও দুই ফুফুর সঙ্গে নসরতপুর গ্রামের ওয়াজ মাহফিলে যায়। ওয়াজ মাহফিল চলাকালে সে শিশুদের সাথে পাশের দোকানে বেলুন কিনতে যায়। পরিকল্পনা অনুযায়ী বাপ্পি রাত ৯ টায় বাদাম কিনে দেয়ার লোভ দেখিয়ে তাবাসসুমকে ফুসলিয়ে হাজী কাজেম জুবেদা টেকনিক্যাল কলেজে নিয়ে যায়। সেখানে বাপ্পি, কামাল পাশা, শামীম রেজা ও লাবলু শেখ ঐ শিশুকে মুখ চেপে ধরে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। অতিরিক্ত রক্তক্ষরনের ফলে শিশুটি নিস্তেজ হয়ে পড়লে বাপ্পি তাবাসসুমকে গলা টিপে হত্যা করে এবং কাটিং প্লাস দিয়ে হাতের আঙ্গুল কাটে যাতে সবাই মনে করে কোন জন্তু কামড়ে দিয়েছে। পরে বাপ্পি শিশুটির লাশ কাঁধে করে বাদশার বাঁশঝাড়ে ফেলে রেখে যায় যাতে করে বাদশার ছেলে রাতুলকে সবাই সন্দেহ করে। এরপর বাপ্পি চলে যায় এবং বাকি ৩ জন ওয়াজ মাহফিলে ভলান্টিয়ারের দায়িত্ব পালন করে। এদিকে শিশুর লাশ উদ্ধারের ঘটনায় থানায় মামলা করে শিশুর বাবা বেলাল হোসেন খোকন। মামলার দায়েরের পর পুলিশ অভিযান চালিয়ে ২৫ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় তাদের নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে। 

শেরপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গাজিউর রহমান জানান, গ্রেফতারকৃতরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনা স্বীকার করেছে। তাদের আদালতে হাজির করে ৮ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হবে।

বরগুনার আলো