• শনিবার   ১৬ জানুয়ারি ২০২১ ||

  • মাঘ ২ ১৪২৭

  • || ০২ জমাদিউস সানি ১৪৪২

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
২২ সালের মধ্যে ঢাকা-কক্সবাজার রেল চালু হবে: রেলমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও ১৬ জনের মৃত্যু ৬২ সহযোগীর মাধ্যমে অর্থপাচার, পিকে হালদারের হাজার কোটি টাকা ফ্রিজ কোনো প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ানো হবে না : উশৈসিং বাংলাদেশে বিশ্বের সেরা মানের পাট উৎপাদিত হয়: পাটমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ১৪ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৮৯০ পিকে হালদারের বান্ধবী গ্রেফতার করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ১৬, শনাক্ত ৭১৮ আওয়ামী লীগ সরকারে আছে বলেই দেশ স্বনির্ভর হয়ে উঠছে: প্রধানমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২২, শনাক্ত ৮৪৯ ভাসানচর নিয়ে আন্তর্জাতিক এজেন্সির সাপোর্ট পাচ্ছি: মোমেন এইচএসসির ফল ২৮ জানুয়ারির মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর জা রওশন আরা ওয়াহেদ আর নেই সংগঠন গড়ার জন্য বঙ্গবন্ধু মন্ত্রিত্ব ছেড়ে দিয়েছিলেন: শেখ হাসিনা প্রতারণার মামলায় রিজেন্ট সাহেদের জামিন নামঞ্জুর আমাদের দলে মুক্তভাবে কথা বলার অধিকার সবার আছে- তথ্যমন্ত্রী দুদকের মামলায় সাবেক ওসি প্রদীপের জামিন নামঞ্জুর বাংলাদেশ ও বাঙালির অনুপ্রেরণার উৎস বঙ্গবন্ধু: রাষ্ট্রপতি করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২২, শনাক্ত ৬৯২ সাম্প্রদায়িক উগ্রবাদের বিষদাঁত ভেঙে দেওয়া হয়েছে: কাদের

শিশুর জন্মের পর ইসিতে জানানোর আইন চান সিইসি

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ২০ অক্টোবর ২০১৯  

 

কোনো শিশুর জন্মের পর কিংবা কেউ মারা গেলে, সে তথ্য থানা নির্বাচন কর্মকর্তাকে জানাতে হবে-এমন একটি আইন চাইলেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা। 

তিনি বলেছেন, জাতীয় পরিচয়পত্রে (এনআইডি) সঠিক বয়স লিপিবদ্ধ করা এবং মৃত ভোটার তালিকা থেকে কর্তন করা একটা সমস্যা। এই সমস্যা থেকে উত্তোরণের জন্য শিশুর জন্মের পর এবং কেউ মারা গেলে সে তথ্য থানা নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে মৌখিক বিবৃতি আকারে জানানোর বিষয়টি নিয়ে ভাবতে হবে।

নির্বাচন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে (ইটিআই) আয়োজিত আগারগাঁওয়ে এক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিইসি এসব কথা বলেন।

কেএম নূরুল হুদা বলেন, মৃত ভোটার একটা সমস্যা। ব্রিটিশ আমলে একটা নিয়ম ছিল, কেউ মারা গেলে থানায় ভারবাল স্টেটমেন্ট দিতে হতো। কোনো বাড়িতে কোনো বাচ্চা জন্ম নিলে বা মারা গেলে থানায় মৌখিক তথ্য দিতে হতো। চকিদার যেয়ে বলত যে, ওই বাড়িতে অমুকের একটা সন্তান জন্ম নিয়েছে। কিংবা ওই গ্রামের ওই বাড়ি অমুক মৃত্যুবরণ করেছে।

‘থানায় এখন সেটা বলা সম্ভব কিনা, তবে চকিদার থানা নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে এ তথ্য দিতে পারে কিনা ভাবা দরকার।’

তিনি বলেন, মৃত ভোটার বাদ দেওয়া খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। জীবিত ভোটারও অনেক সময় মৃত হয়ে যায়। এটা কিভাবে হয়? এটা হলে নির্ভুল ভোটার তালিকায় নির্বাচন করা অসম্ভব।

সিইসি বলেন, এনআইডি প্রাপ্তিও গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। কেননা, এটা না হলে কোনো সেবাই পাওয়া যায় না। প্রবাসীদের তো আরও বেশি প্রয়োজন। ভোটার তালিকার মাধ্যমে এনআইডি দেওয়া হচ্ছে। তাই ভোটার তালিকা করার সময় বয়সের সঠিকতা যাচাই সঠিক হতে হবে। সঠিক সত্য তথ্য না দিলো অনেক সমস্যা হয়ে যায়।

‘দুঃখজনক যে জন্মনিবন্ধন কার্যকর নয়। যে কারণে ৪২ বছর বয়সের লোক ২৪, ২৪ বছর বয়সের লোক ৪২ হতে চায়। অনেকে বিএ পাস করার পর বলে পাসই করে নাই। নানা কারণে এটা করে থাকেন। এতে দেখা যায় ছেলের বয়সের চেয়েও ছোট হয়ে যায় বাবা।’ 

প্রশিক্ষণার্থীদের উদ্দেশ্যে সিইসি কেএম নূরুল হুদা বলেন, প্রাইমারি পরীক্ষার সনদ দিলেও বয়স ঠিক করা সম্ভব। একেবারে সঠিক বয়স দিয়ে, পিতা-মাতার নাম দিয়ে, ঠিকানা দিয়ে ভোটার তালিকা করার এখনও সময় বোধহয় আসেনি। আপনারা তবু চেষ্টা করছেন।

‘বয়স ঠিক মতো নেওয়া একটি জটিল সমস্যা। এই সমস্যা আপনাদের মোকাবেলা করার পথ বের করতে হবে। সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। ভোটার তালিকা ও এনআইডি মুদ্রার এপিঠ-ওপিঠ। একটার কারণে আরেকটার গুরুত্ব অনেক বেড়ে গেছে।’

কেএম নূরুল হুদা বলেন, এক সময় কোনো তালিকাই ছিল না। ভোটার যেয়ে বলতো ভোট দিবো। তখনও নির্বাচন হতো, ভোট দিত। স্থানীয় নির্বাচনগুলোতে এমন হতো।  
‘ভারতবর্ষে ভোট দেওয়া শুরু হয়। পাকিস্তান আমলে ভোটাধিকারই ছিল না। প্রতিনিধিরা ভোট দিত। সে অবস্থা উন্নতি হয়েছে। ভবিষ্য তো আরও হবে।’

ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম যুযোগপযোগী করা এবং ভোটার নিবন্ধন সংক্রান্ত ফরমসমূহ পুনর্বিন্যাসকরণ শীর্ষক কর্মশালায় ইসির অতিরিক্ত সচিব মো. মোখলেছুর রহমান সভাপতিত্ব করেন। এতে অন্য নির্বাচন কমিশনাররাও উপস্থিত ছিলেন।

বরগুনার আলো