সোমবার   ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯   ভাদ্র ৩১ ১৪২৬   ১৬ মুহররম ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
বঙ্গবন্ধুর নাতনি টিউলিপের জন্মদিন আজ আজ থেকে ট্রাকে পেঁয়াজ বিক্রি করবে টিসিবি বিশ্ব ওজন দিবস আজ শিগগিরই বন্দর-ট্রেনে যুক্ত হচ্ছে ত্রিপুরা-বাংলাদেশ দিল্লিতে শেখ হাসিনা-মোদি বৈঠক ৫ অক্টোবর সারাদেশে ৭৫ প্রতিষ্ঠানকে পাঁচ লক্ষাধিক টাকা জরিমানা প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগের ফল প্রকাশ এ পি জে আব্দুল কালাম স্মৃতি পুরস্কারে ভূষিত শেখ হাসিনা টস হেরে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করুন : প্রধানমন্ত্রী রাজশাহীর পুলিশ একাডেমিতে কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী গণপরিবহনে মাসিক বেতনে চালক নিয়োগের নির্দেশ হাইকোর্টের সারদার পথে প্রধানমন্ত্রী হাজিদের দেশে ফেরার শেষ ফ্লাইট আজ আন্তর্জাতিক গণতন্ত্র দিবস আজ শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ইনস্টিটিউটের কার্যক্রম আজ শুরু বিভিন্ন সংস্থা ও ব্যক্তিকে ১৩ কোটি টাকা দিলেন প্রধানমন্ত্রী ছাত্রলীগের নেতৃত্বে জয়-লেখক ছাত্রলীগের পদ হারালেন শোভন-রাব্বানী যাদের আন্দোলনে স্বাধীনতা, সেই দল ক্ষমতায় থাকলে উন্নয়ন হয়
২১

সময় এসেছে বাংলাদেশের পাশে দাঁড়ানোর: যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশিত: ২৫ আগস্ট ২০১৯  

মিয়ানমারের রাখাইনে গণহত্যার থেকে বাঁচতে রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে পালিয়ে আসার দুই বছর পর আবারও দোষীদের শাস্তির দাবি জানালো ট্রাম্প প্রশাসন। শনিবার এক বিবৃতিতে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর জানায়, তারা দোষীদের বিচারের আওতায় এনে সহিংসতার শিকার রোহিঙ্গাদের ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে চাপ প্রয়োগ করে যাচ্ছে।

 ১০ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দেওয়ায় বাংলাদেশের প্রশংসা করে যুক্তরাষ্ট্র জানায়, এখন সময় এসেছে অন্যান্যদেরও বাংলাদেশের পাশে দাঁড়ানোর। মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র মরগান অর্তেগাস বলেন, মিয়ানমারকে শান্তিপূর্ণ ও উন্নত গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে পরিণত করতে বিচার ও দায়বদ্ধতা অপরিহার্য।

সংশ্লিষ্ট সবাইকে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা ও স্বেচ্ছায় প্রত্যাবাসনের পরিবেশ নিশ্চিতের আহ্বান জানান তিনি। রাখাইনে নিরাপদ পরিবেশ তৈরি করতে ট্রাম্প প্রশাসন আন্তর্জাতিক সংগঠনগুলোকে নিয়ে মিয়ানমারকে চাপ প্রয়োগ করে যাচ্ছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

চলতি সপ্তাহে প্রকাশিত জাতিসংঘের ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং মিশনের প্রতিবেদনে বলা হয়, রোহিঙ্গাদের ওপর গণহত্যার উদ্দেশ্যে অভিযান চালানো হয়। এখনও রাখাইনে তাদের ফিরে যাওয়ার মতো পরিবেশ সৃষ্টি হয়নি। এই পরিবেশ মিয়ানমারকে সবার আগে নিশ্চিত করতে হবে।

এই বিভাগের আরো খবর