• বুধবার   ০৮ এপ্রিল ২০২০ ||

  • চৈত্র ২৫ ১৪২৬

  • || ১৪ শা'বান ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
নিয়োগ পেলেন নতুন আইজিপি বেনজীর, র‌্যাব মহাপরিচালক মামুন মাজেদের মৃত্যু পরোয়ানা জারি যারা সাহায্য চাইতে পারবে না তাদের তালিকা করতে বললেন প্রধানমন্ত্রী দেশে করোনায় আরও ৫ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত বেড়ে ১৬৪ কারাগারে বঙ্গবন্ধুর পলাতক খুনি ক্যাপ্টেন মাজেদ বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনি ক্যাপ্টেন মাজেদ আদালতে বঙ্গবন্ধু হত্যা: আত্মস্বীকৃত খুনি ক্যাপ্টেন মাজেদ গ্রেফতার চিকিৎসকরা কেন চিকিৎসা দেবে না, এটা খুব দুঃখজনক : প্রধানমন্ত্রী দীর্ঘদিন জেলখাটা আসামিদের মুক্তির নীতিমালা করার নির্দেশ রমজানে সরকারি অফিস ৯টা থেকে সাড়ে ৩টা প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়ন হলে অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াবে: অর্থমন্ত্রী করোনা: ৭৩ হাজার কোটি টাকার আর্থিক সহায়তা প্যাকেজ ঘোষণা বেসরকারি হাসপাতাল চিকিৎসা না দিলেই ব্যবস্থা: স্বাস্থ্যমন্ত্রী প্রতি উপজেলা থেকে নমুনা সংগ্রহ করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে সমালোচনা করছে বিএনপি : কাদের দেশে আক্রান্তদের মধ্যে এ পর্যন্ত ২৬ জন সুস্থ : স্বাস্থ্যমন্ত্রী সেনাবাহিনী কতদিন মাঠে থাকবে সরকার বিবেচনা করবে: সেনাপ্রধান করোনায় খাদ্য ঘাটতি হবে না : কৃষিমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে বক্তব্য রাখ‌ছেন প্রধানমন্ত্রী আজ সকালে ৬৪ জেলার কর্মকর্তাদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর কনফারেন্স
১০

সাংগঠনিক কার্যক্রম নেই, সহাস্যে হোম কোয়ারেন্টাইনে বিএনপি নেতারা!

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ২৪ মার্চ ২০২০  


 সাংগঠনিক ব্যর্থতায় প্রায় শূন্য জনসমর্থন নিয়ে চলছে বিএনপি রাজনীতি। যে কারণে অদ্যাবধি অনুষ্ঠিত সবগুলো নির্বাচনে তাদের ভরাডুবি হয়েছে বলেই প্রতীয়মান হচ্ছে। মাঠের রাজনীতিতে ব্যর্থ বিএনপির নেই কোন দৃশ্যমান দলীয় কর্মসূচি। এমনকি চলতি করোনাভাইরাস ইস্যুতেও তাদের লক্ষণীয় কোন পদক্ষেপ নেই। যদিও এক-দু’বার তারা রাস্তায় নেমেছে লিফলেট বিতরণে, সেখানেও ছিল রাজনৈতিক উদ্দেশ্য।

জানা গেছে, বিএনপি জনসচেতনতার নামে দলীয় চেয়ারপারসনের কারামুক্তির আর্জি নিয়ে হাজির হয়েছিলো জনতার মঞ্চে। বরাবরের মতো সচেতন মানুষ তাদের অসৎ উদ্দেশ্য বুঝতে পেরে তাদের কৌশলে বর্জন করেছে। এসব অনুধাবন করে দলটির সকল সাংগঠনিক কার্যক্রম আগামী ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। এতে অবশ্য নারাজ নন বিএনপি নেতারা, বরং খুশি হয়ে হোম কোয়ারেন্টাইনে চলে গেছেন তারা।

বিএনপি নেতাদের ভাষ্য, নিজে বাঁচলে বাপের নাম। আগে এই ভাইরাসের কবল থেকে নিজে বাঁচি। তারপর দল ও নেত্রীর কথা ভাবা যাবে। তাছাড়া জনগণের কথা অন্যসময়েও চিন্তা করা যাবে, এখনই কেন? নিজেদের সুরক্ষাই সবার আগে, কারণ নিজে সুস্থ-সবল থাকলে তবেই না সাংগঠনিক কার্যক্রমে অংশ নিতে পারবো।

বিএনপি নেতাকর্মীদের এমন ‘স্বার্থপর আচরণে’ রাজনৈতিক মহলে নিন্দার ঝড় উঠেছে। দেশের বিশিষ্টজনরা বলছেন, বিএনপি কখনোই জনমানুষের কথা ভাবে না। সব সময় নিজের আখের গোছানোর ধান্দায় থাকে। যার প্রমাণ ইতোমধ্যে দেশবাসী পেয়েছেন। একবার নয়, বহুবার। সবচেয়ে দৃশ্যমান প্রমাণ, দুর্নীতির দায়ে বর্তমানে দলটির চেয়ারপারসন কারান্তরীণ। একই অপরাধে লন্ডনে পলাতক দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও খালেদাপুত্র তারেক রহমান। মূল ব্যাপার, তাদের রক্তেই লুটপাট-দুর্নীতি। জনসেবা বা মানুষের কল্যাণ ভাবনা ভুলেও তাদের মানসিকতায় নেই। থাকলে করোনাভাইরাসের মতো পরিস্থিতিতে তারা হাত-পা গুটিয়ে হাসিমুখে কোয়ারেন্টাইনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিতেন না। তাদের সরকারকে দেখে শিক্ষা নেওয়া উচিত। যেখানে দেশে করোনা সংক্রমণের খবর পেয়েই তারা নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন, কিভাবে এই ভাইরাস প্রতিরোধ করা যায়। ইতোমধ্যে সরকার বিভিন্ন দপ্তরের ছুটিও বাতিল করেছেন নিরবচ্ছিন্ন জনসেবার জন্য। সেখানে বিএনপি কিভাবে মানুষের কথা না ভেবে নিজেদের কথা ভেবে নিশ্চিন্তে ঘরে ঢুকে যান, তা বুঝে আসে না। এ থেকেই তাদের অস্বচ্ছ রাজনৈতিক মতাদর্শের পরিচয় মেলে।

প্রসঙ্গত, শনিবার (২১ মার্চ) রাতে দলের স্থায়ী কমিটির বৈঠকে দলটির সব সাংগঠনিক কার্যক্রম বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে বিএনপি। পরে রোববার (২২ মার্চ) দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এ কথা জানানো হয়। এর আগে করোনাভাইরাসের কারণে কারাবন্দী চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারম্যান খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ১১ মার্চের দেশব্যাপী বিক্ষোভ কর্মসূচিও বাতিল করেছিল দলটি।

বরগুনার আলো
রাজনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর