বৃহস্পতিবার   ২৪ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৮ ১৪২৬   ২৪ সফর ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
ধর্মঘট প্রত্যাহার, শনিবার অনুশীলনে যোগ দেবেন সাকিবরা বরগুনায় কলেজছাত্রী হত্যায় বিএনপির সাবেক নেতার যাবজ্জীবন তুরস্কে ফিকাহ-বিষয়ক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে বাংলাদেশি গবেষক ডিসেম্বরে মুক্তি পাচ্ছে পরমব্রত-কোয়েলের নতুন সিনেমা মশা-ছারপোকা দূর করবে কর্পূর অছাত্ররা কোনোভাবেই ঢাবির হলে অবস্থান করতে পারবে না-উপাচার্য ধনী-দরিদ্রের বৈষম্য কমার প্রত্যাশা পরিকল্পনামন্ত্রীর আগামী ১ নভেম্বর থেকে সড়ক পরিবহন আইন কার্যকরে গেজেট প্রকাশ ঢাকার দুই সিটি নির্বাচন জানুয়ারিতে! ২০৪০ সালের মধ্যে বাংলাদেশ হবে অধূমপায়ী রাষ্ট্র : তথ্যমন্ত্রী মহাকাশে তোলা সেলফি প্রকাশ বাংলাদেশ সফরে জাপানের সম্রাটকে আমন্ত্রণ রাষ্ট্রপতির এমপিও: ১৭৫ ভোকেশনাল প্রতিষ্ঠানের তালিকা  পরিবেশ সুরক্ষা নিশ্চিতে সরকার কাজ করছে : গণপূর্তমন্ত্রী প্রযুক্তি ব্যবহারে আফ্রিকায় ‘কৃষি বিপ্লব’ দুদক এখন অনেক শক্তিশালী: কমিশনার মোজাম্মেল ‘পায়ের বেড়ি’ খুলছে না সৌদি নারীদের বৃক্ষরোপণে ইসলামের উৎসাহ ও নির্দেশনা পদ্মাসেতুর অবশিষ্ট জমিতে মিলিটারি ফার্ম করবে সেনাবাহিনী শাহজালালে ১ কোটি ২০ লাখ টাকার স্বর্ণসহ যাত্রী আটক

সাইবার সিকিউরিটি চর্চা দেবে সুরক্ষা

প্রকাশিত: ৬ অক্টোবর ২০১৯  

ছোট কিংবা বড় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের আকার যেমনই হোক না কেন– সব জায়গায়ই চাই নিরাপদ সাইবার সিকিউরিটির চর্চা। চলুন, এক নজরে দেখে নেওয়া যাক একটি প্রতিষ্ঠানের সাইবার সিকিউরিটির চর্চাগুলো কেমন হওয়া উচিত:

কর্মী সচেতনতা ও ট্রেনিং:

যেকোনও প্রতিষ্ঠানের সাইবার নিরাপত্তার জন্য সবার আগে প্রয়োজন কর্মী সচেতনতা। বছরে অন্তত একবার নতুন-পুরনো সহকর্মীদের অংশগ্রহণে আয়োজন করুন সাইবার সিকিউরিটি প্রশিক্ষণ। ফিশিং ই-মেইল এবং লিংক সম্পর্কে সচেতন করে তুলুন কর্মীদের। এছাড়া যখনই নতুন কোনও কর্মী প্রতিষ্ঠানে যুক্ত হবেন তখনই তাঁকে প্রতিষ্ঠানের সাইবার সিকিউরিটির সব  নিয়ম জানিয়ে দিন।

সাপ্তাহিক ব্যাকআপ:

বিশেষ দিন, খারাপ আবহাওয়া কিংবা কাজের চাপ যাই থাকুক না কেন সপ্তাহের শেষ দিন ছুটির আগে আগে যার যার পিসির ফাইল ব্যাকআপ করা বাধ্যতামূলক করে দিন। সহকর্মীর সংখ্যা ও কাজের চাপ অনুযায়ী এক বা একাধিক এক্সটার্নাল হার্ডডিস্ক ক্রয় করে নিন। শুরুতে খরচ বেশি হচ্ছে মনে হলেও চূড়ান্ত সময়ে এটি আপনাকে অনেক বিপদ থেকে রক্ষা করবে। এছাড়া ক্লাউড ব্যাকআপের ব্যবস্থা নিতে পারেন।

আপ টুডেট ওএস এবং সফটওয়্যার:

অনেক সময় ডাটা বাঁচাতে ও ইন্টারনেটের গতি ধরে রাখতে বিভিন্ন অফিসে উইন্ডোজের অটো-আপডেট বন্ধ রাখা হয়। এটি যেকোনও সময় ভয়াবহ বিপদ ডেকে আনতে পারে। আপনার কাজের নিরবচ্ছিন্নতা ধরে রাখার জন্যই আপনার অপারেটিং সিস্টেম ও প্রতিদিন ব্যবহার করা সফটওয়্যার নিয়মিত আপডেটেড রাখুন।

নতুন কর্মী নেওয়ার আগে যাচাই করে নিন:

স্টার্টআপের সংখ্যা বাড়ার সঙ্গে বাড়ছে দক্ষ লোকবলের অভাব। কখনও কখনও এক প্রতিষ্ঠানের লোক অন্য প্রতিষ্ঠানে অনুপ্রবেশ করে তথ্য ও কর্মপদ্ধতি জানার আশায়। তাই, নতুন কর্মী নেওয়ার সময় সচেতন হোন, সোশ্যাল মিডিয়ার এই যুগে ফেসবুক প্রোফাইল থেকেও পেয়ে যাবেন যে কারও খুঁটিনাটি।

সর্বোচ্চ সতর্কতা- নিরাপদ অ্যাডমিন ক্রেডেনশিয়াল:

ব্যবসায়ের নথি, অনলাইনে অ্যাডমিন ক্রেডেনশিয়াল ইত্যাদি বিষয়ে সর্বোচ্চ সতর্ক থাকতে হবে। অ্যাডমিন আইডির একসেস যেন নির্ধারিত ব্যক্তির বাইরে না যায় সে বিষয়েও সচেতন থাকতে হবে।

এন্ডপয়েন্ট সিকিউরিটির ব্যবহার:

আপনার প্রতিষ্ঠানে যদি ন্যূনতম ৫টি কম্পিউটারও থাকে তাহলে এন্ডপয়েন্ট সিকিউরিটির ব্যবহার আপনার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সর্বোচ্চ কয়েক হাজার কম্পিউটার হলেও এন্ডপয়েন্ট সিকিউরিটির মাধ্যমে একটি অ্যাডমিন কনসোল থেকেই সব ব্যবহারকারীর তথ্য সুরক্ষিত রাখতে পারবেন। বাংলাদেশে বিশ্বের প্রায় সকল নামীদামী অ্যান্টিভাইরাস ব্র্যান্ডের এন্ডপয়েন্ট সিকিউরিটি পাওয়া যায়।