• মঙ্গলবার   ২৭ অক্টোবর ২০২০ ||

  • কার্তিক ১১ ১৪২৭

  • || ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
হাজী সেলিমের ছেলের ১ বছরের কারাদণ্ড করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ১৫, শনাক্ত ১৪৩৬ সাংসদ হাজী সেলিমের ছেলে ইরফান গ্রেপ্তার কেউ অপরাধ করলে তাকে আইনের মুখোমুখি হতে হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ষড়যন্ত্রকারীরাই গণতন্ত্রের মুখোশপড়া ফেরিওয়ালা: কাদের মিল মালিক, পাইকার ও ফড়িয়ারা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত: কৃষিমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২৩, শনাক্ত ১৩০৮ পদ্মা সেতুতে বসলো ৩৪তম স্প্যান নৈরাজ্য সৃষ্টিকারী কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ১৯, শনাক্ত ১০৯৪ ব্যারিস্টার রফিক-উল হক মারা গেছেন সারা দেশের নৌ ধর্মঘট প্রত্যাহার করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ২৪ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৬৯৬ বিপদে নিজেদের একা ভাববেন না: আইনমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২৪, শনাক্ত ১৫৪৫ মাধ্যমিকে বার্ষিক পরীক্ষা বাতিল ১২ বছরের ব্যর্থতার জন্য বিএনপির নেতৃত্বের পদত্যাগ করা উচিত বিদেশে পালালেও এসআই আকবরকে ফিরিয়ে আনা হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী পরিপত্র জারি : ৭ মার্চকে ঐতিহাসিক দিবস ঘোষণা করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২১, শনাক্ত ১৬৩৭

সিডনিতে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে নির্মিত হয়েছে গীতিচিত্র ‘বাবা’ (ভিডিও)

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ২৬ আগস্ট ২০২০  

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে নির্মিত হয়েছে গীতিচিত্র ‘বাবা’। বাবা হারানো সন্তানদের শূন্যতা প্রতিফলিত হয়েছে গানটিতে। গতানুগতিক ধারা থেকে একটু ভিন্ন পথে গিয়ে নির্মাণ করা হয়েছে গীতিচিত্রটি। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টে নিহতদের বেঁচে যাওয়া সন্তান, বিশেষ করে বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যার ব্যাক্তিগত বেদনার গল্প তুলে ধরা হয়েছে এতে।

পরিচালক রেমন্ড সালোমন বলেন, ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস। শৈশব থেকে প্রতি বছর এই দিনে নানান আয়োজন দেখে আসছি। বিশেষ করে কাঙ্গালিভোজে দুস্থদের লাইন ধরে দাঁড়িয়ে থাকা, মঞ্চ থেকে নেতাদের বক্তৃতা, কর্মীদের রাজনৈতিক স্লোগান, মাইকে ভেসে আসা বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ, সংবাদ মাধ্যমে ঘটনার প্রচার। এর মধ্যেই সীমাবদ্ধ জাতীয় শোক দিবস। কিন্তু এর বাইরেও আরেকটি গল্প আছে। যা আমাকে খুব নাড়া দিতো। সেটি হলো নিহতদের বেঁচে যাওয়া সন্তানদের ব্যাক্তিগত বেদনার গল্প। যে কয়জন স্বজন তাঁরা একসাথে হারিয়েছেন, ততগুলো কষ্টকে পৃথকভাবে একত্রেভেবে দেখার অনেক চেষ্টা করেছি। কিন্তু পারিনি। এতো ভয়ঙ্কর বেদনাকে অন্তরে ধারণ করাটা মানবতার পক্ষে সম্ভব নয়।’

তিনি আরও জানান, এমন নিষ্ঠুরভাবে যাঁদের পরিবারকে হত্যা করা হলো, সেইসব সন্তানদের ব্যাক্তি-জীবনের অকল্পনীয় কষ্টকে ফুটিয়ে তুলতেই ‘বাবা’ নামের গানটি লেখা এবং এর চিত্রায়ন নির্মাণ করা। শৈশব, কৈশর ও যৌবনের দুরন্তপনাগুলো নিয়ে আর দশ জনের মতো বাবার স্নেহে যারা বড় হতে পারতো, ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ডের কারণে তাদের জীবন থেকে সেই দুরন্তপনা, স্নেহ এবং স্মৃতি ছিনিয়ে নেয়া হয়েছিল। দেয়া হয়েছিল শূন্যতা। ‘বাবা’ গান এবং গীতিচিত্র সেই শূন্যতাকে প্রতিফলিত করার চেষ্টা করেছে মাত্র। 

অস্ট্রেলিয়ায় নির্মিত এই গীতিচিত্রটি ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টে নিহতদের বেঁচে যাওয়া সন্তানদের প্রতি উৎসর্গ করা হয়েছে। 

গীতিচিত্রটি রচনা, সুরারোপ, পরিচালনা ও প্রযোজনা করেছেন সিডনিবাসী রেমন্ড সালোমন। গেয়েছেন সিডনির ইউটিএস বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী নাফিসা শামা। সংগীত পরিচালনায় জেমস ইংল্যান্ড। মঞ্চসজ্জা ও শিল্প নির্দেশনা রায়হান শাহেদ, আলোকসজ্জায় ফাহাদ আসমার। সিনেমাটোগ্রাফি ও সম্পাদনায় শিমুল শিকদার। 

গীতিচিত্রটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন রহমতউল্লাহ, নাফিসা শামা, ফিত্রিয়া পূর্বাওয়াতি, শেখ দাইয়ান, শাহরিনা শারমিনসহ আরও অনেকে। সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন ড. আবুল হাসনাৎ মিল্টন। 

গীতিচিত্রটি এরই মধ্যে ইউটিউবে উন্মুক্ত হয়েছে।

বরগুনার আলো