বৃহস্পতিবার   ১৭ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ১ ১৪২৬   ১৭ সফর ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
কমছে রাতের তাপমাত্রা, প্রকৃতিতে শীতের আগমনী বার্তা কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা এসআই আকরামসহ ১১ জন জেলহাজতে মানবতাবাদী নাট্যকার আর্থার মিলারের জন্ম মুখের কথায় চলে সাইদের ‘আশ্চর্য মোটরসাইকেল’ নীলনদের তীরে মিললো ‘গুরুত্বপূর্ণ’ প্রাচীন কফিন    পর্দা নামলো ডিজিটাল ডিভাইস অ্যান্ড এক্সপোর কুষ্টিয়ায় শুরু হলো তিনদিন ব্যাপী লালনমেলা বাংলাদেশই বিশ্বসেরা, প্রবৃদ্ধি হবে ৭.৮ শতাংশ হাজার কোটি টাকার চেকের কপি প্রতারক চক্রের বাসায়! ৯ কর্মীকে তলব, একজনের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ ইন্দোনেশিয়া থেকে সরাসরি পণ্য আমদানির সুযোগ চায় বাংলাদেশ পার্বত্য জেলায় সন্ত্রাস-মাদক নির্মূল করা হবে-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাবেক সহকারী কর কমিশনারকে গ্রেপ্তার করল দুদক র‌্যাগিংয়ের অভিযোগ পেলেই শাস্তি: আইনমন্ত্রী একাদশ সংসদের পঞ্চম অধিবেশন শুরু ৭ নভেম্বর যেখানে দুর্নীতি-টেন্ডারবাজি সেখানে অভিযান- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ফাহাদ হত্যা মামলায় বিশেষ প্রসিকিউশন টিম হবে: আইনমন্ত্রী ন্যাম সম্মেলনে যোগ দিতে বাকু যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী রিফাত হত্যা : প্রধান আসামির জামিন নামঞ্জুর
১১

সিলেটে বিএনপি সমাবেশ, ভাড়া করে কর্মী সংগ্রহের গুঞ্জন!

প্রকাশিত: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে থেকেই নানা কোন্দলে জর্জরিত ছিলো সিলেট বিএনপির রাজনীতি। সে কোন্দল দিনে দিনে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে বলে জানা গেছে। সেই কোন্দলের প্রভাব পড়েছে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সমাবেশে।

জানা গেছে, পূর্ব প্রস্তুতি থাকলেও সিলেট মহাসমাবেশে গ্রুপিংয়ের কারণে কর্মীদের একত্রিত করতে পারেনি নেতারা। ফলে সমাবেশকে ঘিরে কর্মী সংকট দেখা দেয়ায় জনপ্রতি ৩০০ থেকে ৫০০ টাকার বিনিময়ে সমাবেশে কর্মী সমাগম করেছেন সিলেট বিভাগের বিএনপি নেতারা।

সূত্র বলছে, বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সিলেটের রেজিস্ট্রি মাঠে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ শুরুর দিকে কিছুটা লোক সমাগম কম থাকলেও তা ধীরে ধীরে বাড়তে শুরু করে। কিন্তু যারা সমাবেশে উপস্থিত হয়েছিলেন তাদের অধিকাংশই কর্মী নামের ভাড়া করা লোকজন বলে সন্দেহের জেরে তাদের জিজ্ঞাসাবাদে এমন তথ্য বেরিয়ে এসেছে।

সমাবেশস্থলে উপস্থিত একাধিক ব্যক্তির সঙ্গে কথা হলে তারা অধিকাংশই সিলেটের কোন অঞ্চলের বিএনপি কর্মী তা বলতে পারেনি। এ প্রসঙ্গে কথা হয় আবুল ফজল নামের একজন ব্যক্তির সঙ্গে। তিনি নিজেকের একজন বিএনপির কর্মী হিসেবে দাবি করেন। কার কর্মী হিসেবে তিনি সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন তা জিজ্ঞাসা করলে সদুত্তর দিতে পারেননি। পরে বিভিন্ন প্রশ্নে হতবাক হয়ে তিনি বলেন, তাকে ৩০০ টাকার বিনিময়ে সমাবেশে আনা হয়েছে।

একই ধরণের জিজ্ঞাসাবাদে মঞ্জুর আলম বলেন, সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীমের হয়ে আমি সমাবেশে এসেছি। সমাবেশ শেষে ৫০০ টাকা দেয়ার কথা আছে। কিন্তু যার মাধ্যমে এখানে এসেছি তাদের কাউকেই খুঁজে পাচ্ছি না। আমরা ৫ বন্ধু এখানে এসেছি। আরও ৪ জনও এই ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

এদিকে সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীমের সাথে কর্মী ভাড়া করার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিএনপির এমন বেহাল দশা হয়নি যে ভাড়া করা মানুষ দিয়ে সমাবেশ করতে হবে। কিছু নেতা-কর্মীরা যারা পদ পাননি তারা এমন গুজব রটাচ্ছেন। সমাবেশ সফল হয়েছে, সেটি আমাদের বড় অর্জন। কে কি বললো তা নিয়ে আমাদের কোনো মাথা ব্যথা নেই।

এই বিভাগের আরো খবর