• শনিবার   ৩০ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৬ ১৪২৭

  • || ০৭ শাওয়াল ১৪৪১

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
পদ্মাসেতুর সাড়ে ৪ কি.মি. দৃশ্যমান, বসল ৩০তম স্প্যান পদ্মা সেতুর ৩০তম স্প্যান বসছে আজ একদিনে সর্বোচ্চ আড়াই হাজার শনাক্ত, মৃত্যু ২৩ জনের বিকেল ৪টার মধ্যে বন্ধ করতে হবে দোকান-শপিংমল দেশে ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ২ হাজার ছাড়ালো, মৃত্যু ১৫ স্বাস্থ্যবিধি মেনে ৩১ মে থেকে গণপরিবহন চালুর সিদ্ধান্ত দেশে একদিনে নতুন শনাক্ত ১৫৪১, মৃত্যু ২২ জীবন বাঁচাতে জীবিকাও সচল রাখতে হবে: কাদের ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ১৮৭৩ জন শনাক্ত, মৃত্যু আরও ২০ জনের র‌্যাব-৮ এর অভিযানে মাদারীপুর থেকে জেএমবি’র সক্রিয় সদস্য গ্রেফতার ২৪ ঘণ্টায় ২৪ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত ছাড়াল ৩০ হাজার মমতাকে সহমর্মিতা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফোন মোংলা ও পায়রা বন্দরে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত মহাবিপদ সংকেত জারি সকালে, রাতের মধ্যে আসতে হবে আশ্রয় কেন্দ্রে ২ লাখ ৫ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন বাজেট অনুমোদন আম্পানের আঘাতে ১০ ফুটের অধিক উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসের আশঙ্কা আরও ১২৫১ করোনা রোগী শনাক্ত, মৃত্যু ২১ জনের আরও ৭ হাজার কওমি মাদ্রাসাকে প্রধানমন্ত্রীর অর্থ সহায়তা পায়রা-মংলায় ৭, চট্টগ্রাম-কক্সবাজারে ৬ নম্বর বিপদ সংকেত দেশে একদিনে আক্রান্ত ও মৃত্যুর নতুন রেকর্ড
১১২

সীমান্ত নজরদারিতে ইসরাইলি ড্রোন উড়ালো ভারত

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ৫ নভেম্বর ২০১৯  

বাংলাদেশ সীমান্তে নিরাপত্তা জোরদার আর নজরদারি বাড়াতে ইসরাইল থেকে আমদানি করা বেশ কিছু ড্রোন মোতায়েন করেছে ভারত। মেঘালয় থেকে পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার পর্যন্ত বিস্তৃত পুরো ধুবড়ি সেক্টরে টহল দিচ্ছে এসব ড্রোন। দেশটির সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) রয়েছে ড্রোনগুলো পরিচালনার দায়িত্বে।

ভারতীয় গণমাধ্যম দ্য হিন্দু’র এক অনলাইন প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, সীমান্তে সব ধরনের চোরাকারবার ও পাচার বন্ধে এমন কঠোর নজরদারির পদক্ষেপ নিয়েছে ভারত সরকার। তবে কতটি ড্রোন মোতায়েন করা হয়েছে তার সঠিক সংখ্যা সম্পর্কে কিছু জানায়নি বিএসএফ।

আসাম, মেঘালয়, মিজোরাম, ত্রিপুরা ও পশ্চিমবঙ্গের সঙ্গে বাংলাদেশের সীমান্ত সংযোগ রয়েছে ৪ হাজার ৯৬ কিলোমিটারের। আসামের পশ্চিমাঞ্চলে ধুবরি সেক্টরের ৬১ কিলোমাটির দীর্ঘ সীমান্তে আকাশযান (ড্রোন) ছাড়াও মাটির নিচে পুঁতে রাখা যন্ত্র দিয়েও নজরদারি শুরু করেছে বিএসএফ।

ইসরাইল থেকে সম্প্রতি এসব ড্রোন আমদানি করেছে ভারত। বিরতিহীনভাবে দীর্ঘ সময় এগুলো চালু থাকে। যার প্রত্যেকটির দাম ভারতীয় মুদ্রায় ৩৭ লাখ রুপি। ড্রোনগুলোতে ভিশন ক্যামেরা রয়েছে, যা দিয়ে দিনে কিংবা রাতে মাটির ২ কিলোমিটার উপর থেকে ছবি তোলা সম্ভব।

আসামের সঙ্গে বাংলাদেশের ২৬৩ কিলোমিটার দীর্ঘ সীমান্তের মধ্যে ১১৯ কিলোমিটারই নদীসংলগ্ন। রাজ্যটির পশ্চিম দিকে অবস্থিত ধুবরি সেক্টরের ৬১ কিলোমাটির এলাকা দিয়ে ব্রক্ষ্মপুত্র নদ বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। ওই এলাকাটির সীমান্তে নজরদারি আরও বেশি জোরদার করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, বাংলাদেশের সঙ্গে সীমান্ত লাগোয়া আসামের ওই অঞ্চলটিতে নজরদারি করা সীমান্তরক্ষী বাহিনীর জন্য বেশ কঠিন হয়ে পড়ে। বিশেষ করে বর্ষা মৌসুমে পরিস্থিতি আরও জটিল রুপ ধারণ করে। ফলে ওই এলাকা দিয়ে অবৈধ পাচার ও চোরকারবার হয় বেশি।

বিএসএফের গোহাটির ইন্সপেক্টর জেনারেল পিযুশ মর্দিয়া বলেন, ‘মূলত সীমান্তের এলাকায় নজরদারি ব্যবস্থা দুর্বল সেসব এলাকা দিয়ে চোরাচালান বেশি হয়। সাধারণত এসব হয় রাতে। এসব ড্রোন মোতায়েন আমাদের নজরদারি সীমাবদ্ধতা দূর করবে।’

তিনি বলেন, ‘ড্রোনগুলো ১৫০ মিটার উঁচু থেকে প্রতিনিয়ত ছবি তুলে পাঠাবে। চোরকারবারিদের সনাক্ত করবে এসব ড্রোন। তবে বিএসএফ বলছে, নজরদারি জোরদারের চেয়েও এর পেছনে বড় পরিকল্পনা হলো, পাচারকারীদের কাছে এই বার্তা পাঠানো যে, তাদের ওপর সব সময় নজর রাখছে বিএসএফ।’

ড্রোন ছাড়াও আসামের ধুবরি সেক্টরে মাটির নিচে থার্মাল-ইমেজার, স্বয়ংক্রিয় তাপমাত্রা পরিমাপক যন্ত্রও স্থাপন করেছে বিএসএফ। এসবের মাধ্যমে মানুষ, প্রাণী এমনকি অন্যান্য যেকোনো বস্তুর চলাফেরার ওপর নজরদারি করা যায়।

বরগুনার আলো
আন্তর্জাতিক বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর