• সোমবার   ১৭ মে ২০২১ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২ ১৪২৮

  • || ০৪ শাওয়াল ১৪৪২

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
২৪ ঘণ্টা করোনায় আরও ৪০ মৃত্যু, আক্রান্ত ১১৪০ আল-আকসা মসজিদে হামলায় প্রধানমন্ত্রীর নিন্দা খালেদা জিয়ার চিকিৎসার ব্যাপারে সরকার আন্তরিক: হানিফ লাইলাতুল কদর এক মহিমান্বিত রজনী: প্রধানমন্ত্রী ২৪ ঘণ্টায় করোনায় দেশে ৪৫ মৃত্যু খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেয়ার প্রয়োজন নেই : হানিফ তাণ্ডবকারীদের আইনের আওতায় আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনলাইনে পরীক্ষা নিতে পারবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো আজই ফিরছেন সাকিব-মুস্তাফিজ খালেদা জিয়ার আবেদন পেয়েছি, দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে: আইনমন্ত্রী গ্রামে বাড়ি নির্মাণে ইউনিয়ন পরিষদের অনুমতি লাগবে: তাজুল করোনা প্রাণ নিল আরও ৫০ জনের, নতুন শনাক্ত ১৭৪২ ধান-চাল ক্রয়ের জন্য অত্যন্ত যৌক্তিক দাম নির্ধারণ: কৃষিমন্ত্রী শপিংমল খোলা রাত ৮টা পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডবের ঘটনায় আরো ১০ জন গ্রেফতার করোনায় একদিনে আরও ৬১ জনের মৃত্যু জুনায়েদ আল হাবিব আরও ৪ দিনের রিমান্ডে নাশকতার মামলায় ফের ৫ দিনের রিমান্ডে মামুনুল হক জামায়াত-শিবিরের ৮ নেতাকর্মী আটক করোনায় প্রাণ গেল আরও ৬৫ জনের, শনাক্ত ১৭৩৯

স্বার্থ শেষ বলেই খালেদার খোঁজ নেননি ‘দুধের মাছি’ ফালু!

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ২৯ মার্চ ২০২০  

দুই বছরেরও অধিক সময় ধরে দুর্নীতি মামলায় কারান্তরীণ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া সরকারের মহানুভবতায় বুধবার (২৫ মার্চ) শর্তসাপেক্ষে মুক্তি পেয়েছেন। তার কারামুক্তির খবরে দলীয় অন্যান্য নেতাকর্মীরা রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে উপস্থিত হলেও একটিবারের জন্য খোঁজ নেননি বিএনপি চেয়ারপারসনের এক সময়ের উপদেষ্টা ও দুর্নীতিগ্রস্ত পলাতক ব্যবসায়ী মোসাদ্দেক আলী ফালু। এমনকি পরবর্তীতে খালেদা তার বাসভবন ফিরোজাতে গেলেও তিনি ফোন করে খবর নেননি।

এ নিয়ে দলভ্যন্তরে গুঞ্জন উঠেছে, তবে কী কেবল সুবিধা নিতেই ফালু এতোদিন দলীয় নেত্রীর আশপাশে ঘোরাফেরা করতেন! আর সে কারণেই তিনি নেত্রীর মুক্তির পর ভুলেও খোঁজ নেননি!

দায়িত্বশীল একটি সূত্র জানিয়েছে, বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে দলীয় চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আশপাশে ছায়ার মতো থাকতেন ফালু। সরকার বা দলের গুরুত্বপূর্ণ প্রায় সবধরণের সভাতেও দেখা যেতো তাকে। এ কারণে চেয়ারপারসনের ঘনিষ্ঠ হিসেবে তার পরিচিতি ছিল বেশ। কিন্তু সেই ফালুই খোঁজ নেননি সদ্য কারামুক্তি প্রাপ্ত দলীয় চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার। অথচ করোনাভাইরাস পরিস্থিতির মধ্যেও ভাইরাস সংক্রমণের পূর্ণ ঝুঁকি নিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) যান দলের মহাসচিবসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা। এমনকি ফালু পরবর্তীতে খালেদা জিয়া তার বাসভবনে যাওয়ার পরও তার সঙ্গে অনলাইন কিংবা মুঠোফোনে কোনরূপ যোগাযোগ করেননি।

এ নিয়ে দলের জ্যেষ্ঠ নেতারা বলছেন, ঠিক কী কারণে মোসাদ্দেক আলী ফালু ম্যাডামের (খালেদা জিয়া) সঙ্গে এমন করলেন তা তাদের জানা নেই। তবে এমন আচরণ করা মোটেও ঠিক হয়নি তার। কারণ ম্যাডাম তাকে অনেক পছন্দ করেন। তাহলে কী এখন আমরা সবাই এটাই ধরে নেবো, ফালু সাহেব সম্পদের পাহাড় গড়তে দলীয় পরিচয়কে ব্যবহার করেছিলেন? আর সে কারণেই এখন বিএনপি নেত্রীর দুঃসময়ে তার খোঁজ নেই।

এ বিষয়ে রাজনৈতিক বিশ্লেষক সুভাষ সিংহ রায় বলেন, বিএনপির রাজনৈতিক মতাদর্শ নিয়ে নতুন করে বলার কিছু নেই। তাদের দলীয় আদর্শ লুটতরাজ ও দুর্নীতির তুলিতে আঁকা। মোসাদ্দেক আলী ফালুও সে পথে হেঁটেছেন। আর নিজের স্বার্থ চরিতার্থ সম্পন্ন হয়েছে বলেই তিনি খালেদা জিয়ার কারামুক্তি পরবর্তী অবস্থার খোঁজ-খবর নেননি। এ থেকে সহজেই অনুমেয়, বিএনপি কোন ধারার রাজনীতিতে অভ্যস্ত এবং সঙ্গত কারণেই ‘দুধের মাছি’ ফালু দলীয় নেত্রীর সর্বশেষ অবস্থা জানতে বা তার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে অনাগ্রহতা দেখিয়েছে।

প্রসঙ্গত, মোসাদ্দেক আলী ফালু বিএনপির আগের কমিটিতে খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। রাজনীতির পাশাপাশি ব্যবসায়ী হিসেবেও তার পরিচিতি আছে। সিকিউরিটিজ, আবাসন, অ্যাগ্রো, আমদানি-রপ্তানি ব্যবসায় জড়িত এই ব্যবসায়ী এনটিভির চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক। তার বিরুদ্ধে অর্থ পাচারসহ দুদকের বেশ কয়েকটি মামলা রয়েছে। দুদকের পক্ষ থেকে দায়ের করা এসব মামলায় গত অক্টোবরে তার কয়েকশ কোটি টাকার সম্পদ জব্দ করা হয়।

বরগুনার আলো