• বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ৮ ১৪৩০

  • || ১০ শা'বান ১৪৪৫

বরগুনার আলো
ব্রেকিং:
অশিক্ষার অন্ধকারে কেউ থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী একুশ মাথা নত না করতে শেখায়: প্রধানমন্ত্রী একুশে পদক তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস আগামীকাল মিউনিখ সম্মেলনে শেখ হাসিনাকে নিমন্ত্রণ বাংলাদেশের গুরুত্ব বুঝায় গুণীজনদের সম্মাননা ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে অনুপ্রাণিত করবে : রাষ্ট্রপতি একুশে পদকপ্রাপ্তদের অনুসরণ করে তরুণরা সোনার বাংলা বিনির্মাণ করবে আজ একুশে পদক তুলে দেবেন প্রধানমন্ত্রী মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে যোগদান শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী মিউনিখ সফর শেষে ঢাকার পথে প্রধানমন্ত্রী বরই খেয়ে দুই শিশুর মৃত্যু, কারণ অনুসন্ধান করবে আইইডিসিআর দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের উপযুক্ত জবাব দিন: প্রধানমন্ত্রী গাজায় যা ঘটছে তা গণহত্যা: শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাক্ষাৎ নেদারল্যান্ডস, যুক্তরাজ্য, আজারবাইজান থেকে বড় বিনিয়োগ আহ্বান জার্মান চ্যান্সেলরের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বৈঠক শান্তি ফর্মুলা বাস্তবায়নে শেখ হাসিনার সহযোগিতা চাইলেন জেলেনস্কি কাতারের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেছেন শেখ হাসিনা কিছু খুচরো দল তিড়িং বিড়িং করে লাফাচ্ছে: শেখ হাসিনা মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীকে বিশ্বনেতাদের অভিনন্দন

রেললাইনে শুয়ে থাকা যুবককে বাঁচালেন আনসার সদস্যরা

বরগুনার আলো

প্রকাশিত: ৫ ডিসেম্বর ২০২৩  

নওগাঁর রাণীনগরে রেললাইনে আত্মহত্যা করতে যাওয়া এক মানসিক প্রতিবন্ধী যুবক বারিক প্রামানিকের (৪০) প্রাণ বাঁচিয়েছেন রেলওয়ের দুই আনসার সদস্য। সোমবার সকাল পৌনে ১০টার দিকে রাণীনগর উপজেলার গোনা রেলসেতু এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আত্মহত্যার চেষ্টাকারী যুবক বারিক প্রামানিক উপজেলার বেতগাড়ি-ভবানীপুর গ্রামের মৃত বাহার আলীর ছেলে। তিনি মানসিক প্রতিন্ধী যুবক।

রেলওয়ের আনসার সদস্য (পিসি) শামীম হোসেন জানান, রেলওয়ের নিরাপত্তার জন্য সোমবার সকাল থেকে আমি ও সহকর্মী মিনার হোসেন গোনা রেলসেতু এলাকায় ডিউটি করছিলাম। সকাল আনুমানিক পৌনে ১০টার দিকে রাজশাহীগামী বরেন্দ্র এক্সপ্রেস ট্রেন রাণীনগর স্টেশন ছেড়ে গোনা এলাকায় পৌঁছায়।

এ সময় গোনা রেলসেতুর পাশে রেললাইনের ওপরে এক যুবককে আমরা শুয়ে থাকতে দেখে অনেক ডাকাডাকি করি। কিন্তু তিনি কোনো উত্তর দিচ্ছিলেন না। তখন ট্রেনটি দুই-তিন শ’ মিটার দূরে ছিল। এ সময় আমরা দ্রুতগতিতে দৌঁড়ে গিয়ে ওই মানসিক প্রতিবন্ধী যুবককে উদ্ধার করে প্রাণে বাঁচাই। এরপর তার পরিবারে খবর দিলে তার বোন এসে স্থানীয় লোকজনের উপস্থিতিতে ভাইকে নিয়ে যান।

বারিকের বোন মোছা. যমুনা বলেন, খবর পেয়ে আমি বাড়ি থেকে ছুটে আসি। এসে দেখি ভাই বারিককে নিয়ে দুই আনসার সদস্য ও স্থানীয় কয়েকজন বসে আছেন। এসে শুনি আমার ভাই আত্মহত্যা করার জন্য রেললাইনে শুয়ে ছিলেন। এ সময় ডিউটিরত দুই আনসার সদস্য আমার ভাইয়ের প্রাণ বাঁচিয়েছেন।

তিনি বলেন, আমার ভাই একজন মানসিক প্রতিবন্ধী। ভাইকে প্রাণে বাঁচানো জন্য ওই দুই আনসার সদস্যের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

বরগুনার আলো